• বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জীবন বাঁচাতে জীবিকাও সচল রাখতে হবে: কাদের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৭৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু আরও ২০ জনের মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন মোংলা ও পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত মহাবিপদ সংকেত জারি সকালে, রাতের মধ্যে আসতে হবে আশ্রয় কেন্দ্রে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন আম্পানের আঘাতে ১০ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা আরও ১২৫১ করোনা রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ২১ জনের আরও ৭ হাজার কওমি মাদ্রাসাকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা পায়রা-মংলায় ৭, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেশে একদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড সমুদ্রসীমায় অবৈধ মৎস্য আহরণ বন্ধ করতে হবে: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী পাঁচ হাজার টেকনোলজিস্ট নিয়োগের ঘোষণা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর করোনা সংক্রমণে বাংলাদেশ কিছুটা ভালো অবস্থানে আছে: কাদের করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৪ মৃত্যু, শনাক্ত ১২৭৩ আম্ফান : সমুদ্রবন্দরে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’, সাগরে ২ নম্বর সংকেত আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ত্রাণ নিয়ে অনিয়ম করলে দলীয় পরিচয় দিলেও ছাড় হবে না : কাদের স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করলে ঘোর অমানিশা নেমে আসবে : সেতুমন্ত্রী
১০১

আজ থেকে আবারও ‘এইসব দিনরাত্রি’

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২০  

১৯৮৫ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত হতো পারিবারিক গল্পের তুমুল জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘এইসব দিনরাত্রি’। দেশের করোনা পরিস্থিতিতে শুটিং বন্ধ থাকায় নাটকটি আবারও প্রচারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
আজ (৪ মে) থেকে এটি দেখানো হবে বলে নিশ্চিত করেছে রাষ্ট্রীয় এ চ্যানেলটি।

এর আগে করোনার পরিস্থিতিতে গত ৬ এপ্রিল থেকে হুমায়ূন আহমেদের ‘কোথাও কেউ নেই’ ও ‌‘বহুব্রীহি’ ধারাবাহিক দুটি প্রচার করেছে তারা।
প্রতিদিন রাত সাড়ে ৮ ও ৯টায় এগুলোর প্রচার হচ্ছিল। এগুলো শেষ হলে ‘বহুব্রীহি’র জায়গায় ‘সংশপ্তক’ ও ‘কোথাও কেউ নেই’-এর স্থানে ‘এইসব দিনরাত্রি’ প্রচারের পরিকল্পনা বিটিভির।
নন্দিত কথাশিল্পী হুমায়ূন আহমেদের রচনায় ‘এইসব দিন রাত্রি’ প্রযোজনা করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান।
বিটিভির অন্যতম প্রশংসিত এ ধারাবাহিক এতটাই জনপ্রিয় ছিল যে, এটা চলাকালীন ঢাকার ব্যস্ত রাস্তা ফাঁকা হয়ে যেত।
এতে রাজধানীতে বসবাসকারী একটি মধ্যবিত্ত পরিবারের গল্প উঠে এসেছে। তাদের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না সবই নিপুণভাবে ফুঠে উঠেছে।

নাটকটি বিটিভির প্রযোজক মাহফুজা ফেরদৌস তত্ত্বাবধানে এবার প্রচারিত হবে। তিনি জানান, ধারাবাহিকটির গল্প এখনও মধ্যবিত্ত শ্রেণির প্রতিনিধিত্ব করে। ৩৫ বছর আগে প্রচার হলেও এটি এখনও মানুষ মনে রেখেছেন। এ কারণে করোনাকালে এটি প্রচারের উদ্যোগ নিয়েছে বিটিভি।

নাটকটিতে অভিনয় করেছেন- বুলবুল আহমেদ (শফিক ), খালেদ খান (আনিস), নায়ার সুলতানা লোপা (টুনি), কাজী মেহফুজুল হক (বাবা), আবুল খায়ের (মামা), শিল্পী সরকার অপু (শাহানা), ইনামুল হক (মি করিম), ডলি জহুর (নীলু), লুৎফুন নাহার লতা (শারমিন) , আসাদুজ্জামান নূর (রফিক) , দিলারা জামান (মা) ও মাসুদ আলী খান (অফিসের কর্মকর্তা)।

বিনোদন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর