• শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
আগামীকাল ১২টার পরিবর্তে ১১টায় প্রকাশ হবে এসএসসির ফল করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৭৬৪ পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি. দৃশ্যমান, বসল ৩০তম স্প্যান পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যান বসছে আজ একদিনে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার শনাক্ত, মৃত্যু ২৩ জনের বিকেল ৪টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে দোকান-শপিংমল দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২ হাজার ছাড়ালো, মৃত্যু ১৫ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত দেশে একদিনে নতুন শনাক্ত ১৫৪১, মৃত্যু ২২ জীবন বাঁচাতে জীবিকাও সচল রাখতে হবে: কাদের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৭৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু আরও ২০ জনের মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন মোংলা ও পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত মহাবিপদ সংকেত জারি সকালে, রাতের মধ্যে আসতে হবে আশ্রয় কেন্দ্রে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন আম্পানের আঘাতে ১০ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা আরও ১২৫১ করোনা রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ২১ জনের আরও ৭ হাজার কওমি মাদ্রাসাকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা পায়রা-মংলায় ৭, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেশে একদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড
৮৬৫

ঈদের পর বাড়ি যেতে চাওয়ায় খালেদার গৃহকর্মী ফাতেমাকে মারধর

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৮ মে ২০২০  

দুর্নীতি মামলায় ২ বছরের অধিক সময় জেলখাটার পর গত ২৫ মার্চ সরকারের মহানুভবতায় মুক্তি পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপি নেত্রীর সেবায় নিয়জিত ও স্বেচ্ছায় কারাবন্দী গৃহকর্মী ফাতেমাও বেগম জিয়ার সাথে গুলশানের ভাড়াবাড়িতে উঠেছেন।

কিন্তু কারাগার থেকে মুক্ত হলেও এখনই বেগম জিয়ার কাছ থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না ফাতেমা। এমনকি পরিবারের সদস্যদের সাথে দেখা কিংবা কথা বলারও সুযোগ পাচ্ছেন না তিনি।

গোপন সূত্রে জানা গেছে, সেবা দিতে ব্যাঘাত ঘটবে এমন চিন্তা থেকেই বেগম জিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের নিষ্ঠুরতার কারণে নিজ সন্তান ও বাবার সাথে কোন রকম যোগাযোগ করতে পারছেন না ফাতেমা। বাড়িতে যেতে চাইলে করোনার ভয় দেখানো এবং ঈদের পর ছুটি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তাকে দমিয়ে রাখা হচ্ছে। তাই পরিবারের কথা চিন্তা করে আনমনে বেগম জিয়ার সেবা-শশ্রুসায় ভুল করছেন ফাতেমা। যার কারণে বেগম জিয়ার ছোট বোন সেলিমা ইসলামের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন তিনি। বাড়ি যাওয়ার দাবি করায় ফাতেমাকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ফাতেমার বাড়ি যাওয়া ও নির্যাতনের বিষয়ে জানতে চাইলে পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বেগম জিয়ার নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত সিএসএফের এক সদস্য বলেন, জেল থেকে বের হওয়ার পরপর ফাতেমা বাড়ি যেতে চেয়েছিল। কিন্তু ম্যাডাম জিয়ার অনুরোধে সে যায়নি। অবশ্য তার পরিবারের সদস্যদের ঢাকায় আসার কথা ছিল, কিন্তু করোনার কারণে তারা আসতে পারছে না। বাড়ির কাজের লোকরা তো প্রায়শই ভুল করেন, যার কারণে হয়তো ফাতেমাকেও ম্যাডামরা একটু বকেছেন। এটি বড় কোন সমস্যা নয়। আর ফাতেমাকে জোর করে আটকে রাখার তথ্যটি সঠিক নয়। প্রতিমাসে তাকে নিয়মিত বেতন দেয়া হয়। আর গৃহকর্মীরা চাইলেই কি তার সব ইচ্ছা পূরণ করতে হবে, এমনটি কোথায় লেখা নেই।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর