• শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৯ ১৪২৭

  • || ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
সবার আগে আমি ভ্যাকসিন নেব : অর্থমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৫৮৪ সার্জেন্টের ওপর হামলাকারী সেই যুবক গ্রেপ্তার পিকে হালদারের দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে দুদক প্রতিক্রিয়াশীলতা বিএনপির রাজনৈতিক চরিত্র: কাদের সরকারের সাফল্যে বিএনপি উদ্ভ্রান্ত হয়ে গেছে : তথ্যমন্ত্রী বাইডেন কমলাকে রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন সীমান্তে শান্তি-শৃঙ্খলা বিরাজ করছে : সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় পৌঁছে গেছে করোনার টিকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে উড়িয়ে শুভ সূচনা টাইগারদের পৌর নির্বাচনে নৌকার বিপক্ষে গেলেই কঠোর ব্যবস্থা: কাদের রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা দিতে ভাসানচরে নতুন থানা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথমে ঢাকায় টিকা কর্মসূচি শুরু হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০, শনাক্ত ৭০২ চলতি অর্থবছরে ১২ শিল্পনগরী স্থাপন হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী বিদ্রোহী প্রার্থীদের সঙ্গে কোনো আপস নয়: কাদের মেডিক্যালে ভর্তি পরীক্ষা এপ্রিলে, বাড়ছে ১১শ’ আসন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৬৯৭ কাউন্সিলর মৃত্যুর ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হবে: কাদের হাতিয়ায় বিবস্ত্র করে নির্যাতন ও ভিডিও: ৫ জন গ্রেফতার

একসঙ্গে বেগুন ও মুলা চাষে সফল কৃষক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৮ নভেম্বর ২০২০  

ফসলের ক্ষেতে একসঙ্গে মুলা ও বেগুন চাষ করে সফল হয়েছেন ফারুক আহমেদ। তিনি কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বলিদাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তার মতো আরো অনেকেই সবজি চাষে ঝুঁকছেন। 

তাদের সবজি চাষের কারণে বলিদাপাড়ার তামাক চাষের খ্যাতি মুছে যেতে বসেছে। কয়েক বছর আগে যেসব জমিতে তামাক চাষ হতো এখন সেখানে হচ্ছে সবজি চাষ। এ সবজি চাষে অনেকেই ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়েছেন। ভালো উপার্জনের পাশাপাশি সংসারে ফিরিয়ে এনেছেন স্চ্ছলতা। 

ফারুকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেলো, তিনি বছর চারেক আগে ৩ বিঘা জমি লিজ নিয়ে সবজি চাষ শুরু করেন। এরপর থেকে সেই জমিতে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সবজি চাষ করেন। এবার একবিঘা জমিতে বেগুন চাষ করেছেন সেই সঙ্গে মুলাও।
  
শনিবার সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, বাজারে বিক্রির জন্য স্ত্রীকে নিয়ে মুলা তুলছেন। বেগুন চাষ করে লাভবান হয়েছেন তিনি। কৃষি বিভাগের পরামর্শে এ বছর ৩৩ শতক জমিতে বেগুন চাষ করেছেন। ২৫-৩০ হাজার টাকা খরচ করে এরইমধ্যে ৪০ হাজার টাকার মুলা বিক্রি করেছেন। বেগুন বিক্রি শুরু করেছেন।

কৃষক ফারুক আহমেদ বলেন, আগে অন্যের জমিতে কৃষি কাজ করতাম। এরপর কৃষি অফিসারের পরামর্শে চার বছর আগে ৩ বিঘা জমি লিজ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের সবজির আবাদ শুরু করি। এখন জমিতে বেগুন রয়েছে। আবার একই জমিতে মুলা চাষও করেছি। এছাড়াও ফুলকপি রয়েছে কিছু জমিতে এবং পেঁয়াজ চাষের জন্য দেড় বিঘা জমি তৈরি করছি।

তিনি আরো বলেন, ৩৩ শতক জমিতে বেগুন চাষ করেছিলাম। ২৫-৩০ হাজার টাকা খরচ করে এরইমধ্যে ৪০ হাজার টাকার মুলা বিক্রি করেছি। এছাড়া ক্ষেতে যা বেগুন আছে তা বিক্রি করলে লাখ ৭০—৮০ হাজার পাওয়া যাবে। 

এ বিষয়ে মিরপুর উপজেলা উপসহকারী কৃষি অফিসার মাহিরুল ইসলাম বলেন, উপজেলায় বিভিন্ন শাক সবজির চাষ দিন দিন বৃদ্ধি পেয়েছে। কৃষক ফারুক আহমেদ বেগুন ক্ষেতে সাথী ফসল হিসেবে মুলা চাষ করে লাভবান হয়েছেন। এছাড়াও তার ক্ষেতে অন্যান্য সবজি আছে। আমরা তাকে সার—বীজসহ বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেছি।