• মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৫ ১৪২৭

  • || ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
১২ বছরের ব্যর্থতার জন্য বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত বিদেশে পালালেও এসআই আকবরকে ফিরিয়ে আনা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরিপত্র জারি : ৭ মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১, শনাক্ত ১৬৩৭ জনগণের ভাষা বুঝে না বলেই বিএনপি ব্যর্থ: কাদের ৭ কার্যদিবসেই শিশু ধর্ষণ মামলার রায়, আসামির যাবজ্জীবন ২৫ টাকা কেজিতে আলু বিক্রি করবে টিসিবি: বাণিজ্যমন্ত্রী পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী ৩০ অক্টোবর সরকারের আশ্বাসে ইন্টারনেট-ডিশ সংযোগ ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত স্থগিত ইন্টারনেট-ক্যাবল টিভি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৩, শনাক্ত ১২০৯ ৬০ মিশনে দূতাবাস অ্যাপ চালু করা হয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ সঠিক পথেই হাঁটছে: তাজুল ইসলাম করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬০০ টাঙ্গাইলে গণধর্ষণ মামলায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড ভূমিহীনদের ২ শতাংশ জমি দেয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী টেকনাফে সমুদ্র থেকে বাংলাদেশি ৭ জেলে উদ্ধার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩১, শনাক্ত ১৪৭২ পাপিয়া দম্পতির ২৭ বছরের কারাদণ্ড আইন সংশোধনে প্রধানমন্ত্রী নিজেই উদ্যোগ নিয়েছেন: কাদের

কেনো হাসির পাত্রে পরিণত হয়েছে বিএনপি?

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ঈদের পর আন্দোলন, বেগম জিয়ার মুক্তি আদায়ে দলীয় ব্যর্থতার পর সরকারের অনুগ্রহে সাময়িক মুক্তিলাভ, মনোনয়ন বাণিজ্যের জেরে মারামারি- এসব ঘটনা বিএনপিকে রাজনীতিতে হাসির পাত্রে পরিণত করেছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা। রাজপথ বাদ দিয়ে নয়াপল্টনকেন্দ্রীক ঘরোয়া রাজনীতিতে পদার্পণ, আন্দোলনের নামে নেতা-কর্মীদের দীর্ঘ প্রতারণা, মনোনয়ন বাণিজ্য, পদ বাণিজ্য ও ভারসাম্যহীন রাজনীতির জন্য বিএনপির চরম অধঃপতন ঘটেছে এবং দলটির দেশবাসীর কাছে হাসির পাত্রে পরিণত হয়েছে। বিএনপির নাম শুনলেই মানুষ অবজ্ঞার হাসি হাসে বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অভিমত, বিএনপির রাজনীতির বড় ভুল ছিলো ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা। এই হামলায় সরাসরি সম্পৃক্ত ছিলেন তারেক রহমান, বিষয়টির সম্পর্কে পুরোপুরি অবগত ছিলেন বিএনপি নেত্রী বেগম জিয়া। যার কারণে পরবর্তীতে রাজনীতি থেকে ছিটকে পড়েন বেগম জিয়া ও তারেক রহমান। পরবর্তীতে বিভিন্ন ইস্যুতে নেতিবাচক কার্যকলাপের কারণে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে বিএনপি। এরপর গত এক দশকে সরকারবিরোধী আন্দোলনের নামে বিএনপির হাইকমান্ড তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সাথে অনবরত প্রতারণা করেছে। ঈদের পর আন্দোলন, বর্ষার পর আন্দোলন, শীতের পর আন্দোলন-এমন হাস্যকর মন্তব্য করে নেতা-কর্মী ও দেশবাসীর কাছে হাসির খোরাকে পরিণত হয়েছে বিএনপি। বিভিন্ন সময়ে পরীক্ষিত নেতাদের বাদ দিয়ে হাইব্রিড ও বিত্তশালী নেতাদের মনোনয়ন দেয়া, নির্বাচনকালীন দলীয় সংঘাত, তৃণমূল কর্মীদের সাথে রাজনৈতিক প্রতারণার কারণে বিএনপির চরম অধঃপতন ঘটেছে। দীর্ঘ সময়েও দল গোছাতে না পারায় বিএনপির কর্মকাণ্ডে জনগণ হাসে। অনেকেই বিএনপিকে রাজনৈতিক দল নয় বরং সার্কাস পার্টি বলেও অবজ্ঞা করে। রাজনীতি করতে হয় তাই নামমাত্র রাজনীতি করেন মির্জা ফখরুলরা। দেশ ও জনগণের উন্নয়নে তাদের কোনো অবদান না থাকলেও বরাবর জনগণের দল দাবি করায় বিএনপিকে নিয়ে সর্বমহলে হাসাহাসি হয়।

এদিকে বিএনপি ছেড়ে আসা একাধিক নেতার দাবি, স্বল্প শিক্ষিত-অর্ধ শিক্ষিত নেতারা বিএনপিকে নেতৃত্ব দেয়ায় বরাবরই বিএনপি ভুল পথে পরিচালিত হয়ে আসছে। অপকর্ম, দুর্নীতি, অর্থ-পাচার, রাজনৈতিক ব্যর্থতা, জনগণ ও নেতা-কর্মীদের সাথে প্রতারণা করতে গিয়ে নিজেদের হাসির পাত্রে পরিণত করেছেন বেগম জিয়া ও তারেক রহমান। অবস্থার পরিবর্তন না হলে বিএনপি নেতারা জনগণের কাছে আর মুখ দেখাতে পারবেন না। মানুষ হাসে বিএনপি নেতাদের নির্বুদ্ধিতা দেখে। দুবার সরকার পরিচালনাকারী দল ক্ষমতার লোভের কারণে আজ সার্কাস পার্টিতে পরিণত হয়েছে। বিষয়টি দুঃখজনক।