• সোমবার   ০৬ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৩ ১৪২৬

  • || ১২ শা'বান ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ রমজানে সরকারি অফিস ৯টা থেকে সাড়ে ৩টা প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার
৩২

চাকরি হবে যোগ্যতায়, সুপারিশে নয়: বঙ্গবন্ধু

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

 

 


প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষণা করেছেন, মেধা অনুসারে যোগ্য ব্যক্তিকে সরকারি চাকরিতে নিয়োগের জন্য কমিশন গঠন করা হবে। চাকরিতে নিয়োগ, বদলি এবং পদোন্নতির ব্যাপারে সুপারিশ না করার জন্য তিনি জননেতা ও পরিষদ সদস্যদের অনুরোধ করেন।
একাত্তরে নির্যাতনের শিকার নারীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাদের সাহস যোগান বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব। এইদিনে তাকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিল। আর পূর্বের ঘোষণার পথ ধরে মুজিব বাহিনীসহ সব মুক্তিফৌজ সংস্থার বিভিন্ন পদ বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। সব মিলিয়ে এ সময়ে বঙ্গবন্ধু তার সহযোদ্ধা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে দেশ গঠনে জরুরি সিদ্ধান্তগুলো গ্রহণ ও বাস্তবায়নে বেশি গুরুত্ব দেন।
সুপারিশসহ আবেদন গৃহীত হবে না
বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাবনা জেলার নগরবাড়ী ঘাটে এক জনসভায় বলেন, ‘কোনও পরিষদ সদস্যর সুপারিশ নয়, একমাত্র সুযোগ্য কমিশনের মাধ্যমে নিরপেক্ষভাবে নির্বাচিত ও উপযুক্ত সরকারি কর্মচারীদের দ্বারা সরকারি প্রশাসন যন্ত্র সুষ্ঠুভাবে চলতে পারে।’
সরকারি দফতরগুলোতে এই ঘোষণার আগেই নির্দেশ জারি করা হয়েছিল যে, সুপারিশ সহকারে কোনও আবেদনপত্র যেন গ্রহণ না করা হয়।’ সুপারিশসহ আবেদনপত্র বাতিল বলে গণ্য করার জন্য সব সরকারি অফিসে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় উল্লেখ করেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মেধার ভিত্তিতে নিরপেক্ষভাবে নির্বাচিত সরকারি কর্মচারীদের নিয়োগের জন্য সরকার কমিশন গঠন করবে। সেই কমিশন বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ঘুরে ঘুরে উপযুক্ত প্রার্থী নির্বাচন করবে। দলের লোকজনকে খুশি করার জন্য কেউ যেন কাউকে সুপারিশ না করেন।’ তিনি বলেন, ‘সুপারিশ করলেই প্রার্থীর আবেদনপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে।’

ঘাটে জনসভায় ব্ক্তৃতাকালে বঙ্গবন্ধু (১৯৭২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারির পত্রিকার ছবি)
সমাজবিরোধীদের তৎপরতা রুখে দিতে আহ্বান
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা অটুট রাখার জন্য জনগণকে সমাজবিরোধীদের তৎপরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে বলেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলন আমি করেছি, দেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষকে নিয়ে। তাই সমাজবিরোধী ও বিশৃঙ্খলাকারীদের তৎপরতা বন্ধের জন্য আমি জনগণের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’
বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘পুলিশ দিয়ে আমি আন্দোলন করিনি। তাই পুলিশ ব্যবহার করতে চাই না। বাংলাদেশের শান্তিপ্রিয় মানুষ সব সমাজবিরোধী তৎপরতা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে।’ দুর্বৃত্ত ও সমাজবিরোধীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যেসব সমাজবিরোধী ব্যক্তি শান্তিপ্রিয় নাগরিকদের হয়রানি করছে এবং যারা দেশে শান্তি ও শৃঙ্খলা স্থাপনে বাধা সৃষ্টি করছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকার ইতস্তত করবে না।’ সমাজের সব অপতৎপরতার বিরুদ্ধে অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে এগিয়ে আসতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান বঙ্গবন্ধু।
পাকিস্তানে দুর্দশায় রয়েছে বাঙালিরা
পাকিস্তানে আটকে পড়া বাঙালিদের নিয়ে এ সময়ে একটানা কথা বলছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। জাতিসংঘ, আশেপাশের এলাকার রাষ্ট্রপ্রধানদের সবার মাধ্যমে পাকিস্তানের ওপর চাপপ্রয়োগ এবং আটকে পড়া বাঙালিদের জন্য যা যা করণীয় ছিল, সেসবই তিনি করছেন। তিনি বিষয়টি পাকিস্তানে আটকে পড়া বাঙালিদের স্বজনদেরও জানান। বাসস তাদের সংবাদে উল্লেখ করে যে, নগরবাড়ী ঘাটে এই জনসভায় বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের বিভিন্ন অংশে অবস্থানকারী বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রসঙ্গে বলেন, ‘পাকিস্তানে আটকদের নিজ বাসভূমে ফিরিয়ে আনার জন্য সরকার সবরকম চেষ্টা করছে।’ তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানে কয়েক লাখ বাঙালি আটক অবস্থায় রয়েছে। সেখানে তাদের অহেতুক হয়রানি করা হচ্ছে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে তাদের ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে।’ পাকিস্তানের প্রধান সামরিক প্রশাসক ও জুলফিকার আলী ভুট্টোর আগেকার আহ্বানের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার দেশের মানুষকে তাদের বাড়িতে ফিরে আসতে দিন ও আপনার দেশের মানুষকে আপনি তাদের ঘরে ফিরিয়ে নিয়ে যান।’

১৯৭২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারির পত্রিকার ছবি
মুক্তিফৌজ সংস্থা বাতিল
বাংলাদেশ সরকার মুক্তিফৌজ এবং মুজিব বাহিনীর সব সংস্থা ও বিভিন্ন পদ বিলুপ্ত ঘোষণা করে। ১৯৭২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি এক সরকারি প্রেসনোটে বলা হয়, এখন থেকে এসব সংস্থার দায়িত্ব বেসামরিক সংস্থার ওপর বর্তাবে। প্রেসনোটে আরও বলা হয়, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ও তৎপরবর্তী সময়ে গঠিত জোনাল কাউন্সিল, জোনাল অ্যাডমিন, সিভিল লিয়াজোঁ অফিসার, মুজিব বাহিনীর সংস্থাসহ সব সংস্থা— তা সেটা যে নামেই পরিচিত হোক না কেন, বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এ ধরনের সংস্থা অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। এসব সংস্থা কোনোভাবেই কোনও সম্পত্তি দখল বা অধিকারে রাখতে পারবে না এবং তাদের বিলুপ্ত অফিসের নামেও আদেশ জারি করতে পারবে না।
নির্যাতনের শিকার নারীদের পাশে বেগম মুজিব
১৯৭২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অবস্থানরত নির্যাতনের শিকার নারীদের সঙ্গে কথাবার্তা বলার সময় বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব বলেন, ‘আমি তোমাদের মায়ের মতো। তোমাদের সব সমস্যা নিয়ে আমার কাছে আসতে পারো।’ তিনি নির্যাতনের শিকার নারীদের দুটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন। বেগম মুজিব বলেন এবং তাদের আশ্বাস দেন যে, পুনর্বাসনে ব্যাপারে সরকার সম্ভাব্য সব রকম ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তিনি বলেন, ‘জাতি আপনাদের জন্য গর্বিত। আপনারা সম্মান ও মর্যাদা ভোগ করবেন।’ খবরটি বাসস পরিবেশন করে।
বঙ্গবন্ধুর হাতে চেক হস্তান্তর
তথ্য ও বেতার মন্ত্রণালয়ের সচিব হোসেন আলী প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছে ছয় লাখ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করেন। ভারতে বাংলাদেশ মিশনের প্রধান থাকাকালে হোসেন আলী ১৫ লাখ ২৮ হাজার ৪২২ টাকা দান হিসেবে পান। স্বাধীনতা সংগ্রামীদের প্রয়োজনীয় এবং আনুষঙ্গিক খরচ বহনের পর, বাকি ছয় লাখ টাকার চেক প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য তহবিলে দেওয়া হয়।

জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর