• রোববার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭

  • || ২০ রবিউস সানি ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক নীতিমালা তৈরি করা হবে: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ১০ জেলায় করোনার অ্যান্টিজেন টেস্ট উদ্বোধন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: তথ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৩১৬ বিদ্রোহী প্রার্থীদের পরবর্তীতে আর মনোনয়ন নয়: ওবায়দুল কাদের ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ: ছাত্র অধিকার পরিষদের তিন নেতা রিমান্ডে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১৯৮ বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিক হত্যা মামলায় ৭ জনের মৃত্যুদণ্ড ফাইজারের ভ্যাকসিন অনুমোদন দিলো যুক্তরাজ্য করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩১, শনাক্ত ২২৯৩ ঘরোয়া অনুষ্ঠানের কথাও পুলিশকে জানাতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি ৭ জানুয়ারি ভাস্কর্য নিয়ে উস্কানি ছড়ালে সরকার বসে থাকবে না: তথ্যমন্ত্রী চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, ২৮ প্রতারক আটক করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৯, শনাক্ত ১৭৮৮ ঢাকা থেকে পায়রাবন্দর পর্যন্ত রেললাইন নিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদকপ্রাপ্ত ওস্তাদ শাহাদাত হোসেন খান আর নেই করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৬, শনাক্ত ১৯০৮ ভ্যাকসিনের জন্য ৫০ শতাংশ টাকা ছাড়: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৭, শনাক্ত ২২৯২

টেকসই পরিবেশ সৃষ্টিতে সরকার কাজ করছে : পরিবেশমন্ত্রী

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০২০  

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেছেন, ব্যাপকভাবে বনায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন এবং সকল প্রকার দূষণ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে টেকসই পরিবেশ সৃষ্টিতে কাজ করছে সরকার

বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে পরিবেশমন্ত্রীর সঙ্গে নরওয়ের রাষ্ট্রদূত এসপেন রিক্টার সেন্ডসান এক ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এখন জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে নেতৃত্ব দিচ্ছে। ক্লাইমেট ভালনারাবিলিটি ফোরাম ও গ্লোবাল সেন্টার অব এডাপটেশনের ঢাকার আঞ্চলিক অফিস কাজ শুরু করায়, জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে আন্তর্জাতিক ফোরামে বাংলাদেশ আরও জোরালো ভূমিকা পালন করতে পারবে।

সাক্ষাৎকালে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী, অতিরিক্ত সচিব (জলবায়ু পরিবর্তন) মো. মিজানুল হক চৌধুরী এবং পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. এ. কে. এম রফিক আহাম্মাদ বক্তব্য রাখেন।

নরওয়ের রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও নরওয়ের মধ্যে পরিবেশগত অনেক মিল আছে। উভয় দেশই সমুদ্রের পাড়ে অবস্থিত। সেজন্য দুই দেশের সমুদ্র নিয়ে কাজ করার সুযোগ আছে।

তিনি আরও বলেন, নরওয়ের জাহাজ ভাঙা শিল্পে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। এক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি করা যেতে পারে। নরওয়ে এখন ব্যবসায় ও বিনিয়োগ করতে আগ্রহী বলে তিনি জানান।

আলোচনাকালে তারা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা, দারিদ্র্য দূরীকরণ, প্লাস্টিক দূষণ নিয়ন্ত্রণসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে একযোগে কাজ করা সম্ভাবনার বিষয়ে আলোচনা করেন। তারা বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, বায়োগ্যাসসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম এবং জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত বিভিন্ন ক্ষেত্রে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। এ সময় সহযোগিতার ক্ষেত্রগুলো চিহ্নিত করে ভবিষ্যতে একসঙ্গে এগিয়ে যাওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।