• মঙ্গলবার   ০৪ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২০ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৫০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৯১৮ করোনায় আরও ৪৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৯৫ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অসচ্ছল গর্ভবতী নারীরা পাবে চার হাজার টাকা ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণ, ‘নব্য জেএমবির সদস্য’ আটক করোনায় আরও ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০০৯ ১২ কোটি টাকা আত্মসাত করে গ্রেফতার যমুনা ব্যাংকের ম্যানেজার থানায় বিস্ফোরণে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা নেই : পুলিশ ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ২৯৬০, মৃত্যু ৩৫ হাতের তালু দিয়ে আকাশ ঢাকা যায় না: বিএনপিকে কাদের দেশে একদিনে ৩৭ মৃত্যু, আক্রান্ত ২৭৭২ সাবরিনার অবৈধ সম্পদ অনুসন্ধানে ৪ জনকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৫৪, শনাক্ত ২২৭৫ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ মৃত্যু, শনাক্ত ২৫২০ তিন দিনের রিমান্ডে শারমিন টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা যুবক নিহত করোনাভাইরাসে আরও অর্ধশত মৃত্যু করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪২ মৃত্যু, শনাক্ত ২৭৪৪ সরকারের পদক্ষেপে দেশ মৎস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ : প্রধানমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪১ মৃত্যু, শনাক্ত ৩০৫৭
৪৯

ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণ, ‘নব্য জেএমবির সদস্য’ আটক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৯ জুলাই ২০২০  

গত ফেব্রুয়ারিতে নগরের দুই নম্বর গেইট এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও এক যুবককে আটক করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার হারবাং এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হয়েছে বলে জানা গেছে।

আটক যুবকের নাম মো. শাহেদ (২৪)। তিনি চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার পদুয়া মৌলভীপাড়া এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে। শাহেদ নব্য জেএমবির সদস্য বলে দাবি করেছে পুলিশ।

সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পলাশ কান্তি নাথ বলেন, ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণের ঘটনায় চকরিয়া উপজেলার হারবাং এলাকা থেকে শাহেদ নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে আসা হয়েছে।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে দুই নম্বর গেইট এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে দুই পুলিশ সদস্যসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়।  আহতদের মধ্যে ছিলেন: ট্রাফিক সার্জেন্ট আরাফাত হোসেন ভুঁইয়া, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. আতাউদ্দিন, স্থানীয় দুই যুবক জাহিদ বিন জাহাঙ্গীর ও মো. সুমন।

হামলার ঘটনার পর তদন্তে নেমে পুলিশ নব্য জেএমবির সদস্যদের সম্পৃক্ততা পায়। পরে গত ৩ মে হামলার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট।

গ্রেফতার তিনজন হলো- সাতকানিয়া উপজেলার দক্ষিণ ঢেমশা হাদুরপাড়া এলাকার মো. ইসহাক মিয়ার ছেলে মো. সাইফুল্লাহ (২৪), একই উপজেলার দক্ষিণ মারফলা এলাকার মনির আহমদের ছেলে মো. এমরান (২৫) ও উত্তর ঢেমশা মাইজপাড়া এলাকার মহরম আলীর ছেলে মো. আবু সালেহ (২৫)।  

এদের মধ্যে মো. সাইফুল্লাহ চকবাজার এলাকার নুরা এন্টারপ্রাইজ নামে একটি কম্পিউটার দোকানের কর্মচারী, এমরান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ছাত্র ও আবু সালেহ ন্যাশনাল পলিটেকনিকের ছাত্র। 

অপরাধ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর