• বৃহস্পতিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৭

  • || ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫০৯ আন্তঃরাষ্ট্রীয় সুসম্পর্ক বজায় রেখে এগিয়ে যাচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী তিন লাখ ভোটের ব্যবধানে চট্টলার ‘নগরপিতা’ হলেন রেজাউল টিকা কার্যক্রমে ঈদের মতো আনন্দঘন পরিবেশ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী আগে নিলে বলবে কাউকে দিলো না: প্রধানমন্ত্রী ৪০তম বিসিএসের ফল প্রকাশ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫২৮ দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী চাল আমদানির ফলে বাজার স্থিতিশীল হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী করোনার প্রথম টিকা নিলেন নার্স রুনু দেশে করোনা টিকা কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ৭ ফেব্রুয়ারি একযোগে টিকাদান কর্মসূচি শুরু: স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশে করোনায় ১৪ মৃত্যু, শনাক্ত ৫১৫ কারও ব্যবসায়িক স্বার্থে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করেনি সরকার: কাদের দেশের প্রথম নৌপ্রধান ক্যাপ্টেন নুরুল হক আর নেই দেশে ফিটনেসবিহীন গাড়ি চার লাখ ৮১ হাজার: কাদের বৈধ পথে বাড়ছে রেমিট্যান্স: পলক করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৮, শনাক্ত ৬০২ চার ফিফটিতে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৯৭ সব জেলায় ৪-৫ দিনের মধ্যে ভ্যাকসিন পৌঁছে যাবে: পাপন

ডিজিটাল পদ্ধতিতে জাহাজ ভিড়বে চট্টগ্রাম বন্দরে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০২০  

জাহাজ ভেড়ানোর (বার্থিং) পুরনো পদ্ধতির পরিবর্তে নতুন ডিজিটাল পদ্ধতি চালু করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। জেটিতে জাহাজ ভেড়াতে ৩৪ বছরের পুরনো নিয়ম উঠে গেলে শিপিং এজেন্টদেরকে আর বন্দর ভবনে দৈনিক বার্থিং মিটিংয়ে উপস্থিত থাকতে হবে না।

নতুন পদ্ধতিতে জাহাজ জেটিতে বার্থিং নিতে অনলাইনে এজেন্টদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই জাহাজ বার্থিং পেয়ে যাবে। তবে এখনো তা পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে। পূর্ণাঙ্গরূপে ডিজিটাল বার্থিং চালু হতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে। কারণ এখনো শিপিং এজেন্টগুলো তাদের জাহাজের সব ডাটা বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে সরবরাহ করেনি। ফলে ডিজিটাল বার্থিংয়ে ব্যবহৃত সফটওয়্যারে জাহাজের ডাটা ইনপুট করা হয়নি।

বন্দর কর্তৃপক্ষ ও ব্যবহারকারীরা জানান, ডিজিটাল পদ্ধতিতে জাহাজ বার্থিং চালু হলে একদিকে সময় যেমন সাশ্রয় হবে, অপরদিকে কমবে ভোগান্তি। সহজ হবে আমদানি-রফতানি প্রক্রিয়াও । এতে বন্দর জেটিতে থাকা জাহাজ এবং বন্দর জলসীমায় থাকা সব জাহাজের তথ্য হালনাগাদ থাকবে। এ পদ্ধতিতে জাহাজের গড় অবস্থানও কিছুটা কমে আসবে। নতুন এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে অনলাইনে চট্টগ্রাম বন্দরে আসা জাহাজের তথ্য দেবেন শিপিং লাইন বা এজেন্টরা। এরপরই স্বয়ংক্রিয়ভাবে বার্থিংয়ের অনুমতি মিলবে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার ও মেরিন) কমোডর শফিউল বারি বলেন, উন্নত দেশের সমুদ্র বন্দরে আগে থেকেই এই পদ্ধতি চালু রয়েছে। নতুন এই পদ্ধতিতে এখন ট্রায়াল রান বা পরীক্ষামূলক কাজ চলছে। সফটওয়্যার অপারেটিং বা অন্যান্য ক্ষেত্রে কোনো ভুল-ত্রুটি থাকলে তা সংশোধন করা হচ্ছে।

বন্দরে ডিজিটাল অনলাইন বার্থিং মনিটরিং সিস্টেম উদ্ভাবন করায় নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবক নির্বাচিত হয়েছেন চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল জুলফিকার আজিজ। গত ৯ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের আইসিটি শাখার পক্ষ থেকে এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে।

আইসিটি শাখার কর্মকর্তা সৈয়দ মোহাম্মদ অলিউর রহমান জানান, ডিজিটাল অনলাইন বার্থিং মনিটরিং সিস্টেমে বিদেশ থেকে বর্হিনোঙরে জাহাজ আসার পর মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে বন্দর কর্তৃপক্ষকে জানাবে। এরপর ফিরতি এসএমএসে কখন, কোন বার্থে জাহাজটি ভিড়বে, বন্দরের পাইলট কখন জাহাজে উঠবে এসব প্রয়োজনীয় তথ্য আদান-প্রদান করবে।