শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২০ ১৪২৬   ১০ শা'বান ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ ভোলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নৌ-বাহিনীর টহল পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
৬০

তোতলামো দূর করতে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২২ মার্চ ২০২০  

কথা বলতে গিয়ে কি প্রায়ই কিছু শব্দের শুরুতেই হঠাৎ আটকে যাচ্ছে? এই সমস্যা কি দিনদিন বেড়েই চলেছে? উত্তর যদি হয় হ্যাঁ, তবে এটি তোতলামো জনিত সমস্যা। তোতলামোর সঠিক কারণ আজ পর্যন্ত অজানা।

সাধারণত তিন থেকে সাত বছরের বাচ্ছাদের মধ্যে তোতলামোর সমস্যা বেশি দেখা যায়। তবে অনেক বড়দের মধ্যেও এটা হয়ে থাকে। 

শিশুর যদি তোতলামোর সমস্যা থেকে থাকে, তাহলে এখন থেকেই সচেতন হোন। ছোট থেকেই কিছু ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে তুলুন, তোতলামো দূর হবে শিশু হবে আরও আত্মবিশ্বাসী। বড়রাও চেষ্টা করে দেখতে পারেন যারা তোতলামোর সমস্যায় রযেছেন। 


তোতলামো দূর করতে যা করতে হবে: 

জোরে জোরে বর্ণ উচ্চারণ করুন
স্পষ্ট উচ্চারণে অ, আ, ই, ঈ বা এ, বি, সি, ডি, ই জোরে জোরে বলার অভ্যাস করান। 

থামতে শিখুন

তোতলামো দূর করতে একবারে বড় বাক্য বলার অভ্যাস বাদ দিয়ে ছোট ছোট বাক্য বলতে হবে। একটা শব্দের পর একটু থেমে পরের শব্দটি উচ্চারণ করতে হবে। 


স্ট্র ব্যবহার

ঘরে-বাইরে যেখানেই পানীয় বা পানি যাই পান করা হোক স্ট্র ব্যবহার করলে দ্রুত তোতলামো কমে আসবে। 


গভীরভাবে নিঃশ্বাস 

পেট থেকে নিশ্বাস নিতে চেষ্টা করুন। নিঃশ্বাস কিন্তু গভীরভাবে নেবেন। কারণ পেট থেকে নিঃশ্বাস নিলে পেটের পেশি, স্নায়ুতন্ত্র সবই রিল্যাক্স হয়। ফলে তোতলামোর সমস্যা কমে।

কথা বলুন 
শিশুর হাতে মোবাইল ফোন বা টিভির রিমোট দিয়ে ব্যস্ত না রেখে নিজে কথা বলুন। শিশুকে সময় দিন। তাকে প্রতিটি কথা সুন্দর করে উচ্চারণ করতে শেখান। 


চেষ্টার পরও যদি তোতলামো না কমে, তবে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।