মঙ্গলবার   ৩১ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৬ ১৪২৬   ০৬ শা'বান ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ ভোলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নৌ-বাহিনীর টহল পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে আজ ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নিষেধাজ্ঞা অক্ষরে অক্ষরে পালন করুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত করোনা ছোঁয়াচে, এক মিটার দূরত্বে থাকার পরামর্শ টিসিবি-ভোক্তা অধিদফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে ১০ দিন গণপরিবহন বন্ধ সকল বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও বন্ধের নির্দেশ
৫৪৫

নৌকায় নতুন উঠলেন যারা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৭ নভেম্বর ২০১৮  

অধিকাংশ আসনে বতর্মান সংসদ সদস্যদের রাখলেও সাবেক ছাত্রনেতা, ক্রিকেটার, চলচ্চিত্র তারকা, সাবেক আমলা, কূটনীতিক, পুলিশ কমর্কতার্, চিকিৎসক, ব্যবসায়ী মিলিয়ে এক ঝঁাক নতুন মুখকেও আসন্ন সংসদ নিবার্চনে প্রাথীর্ করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

নতুনদের স্থান করে দিতে বাদ পড়তে যাচ্ছেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রভাবশালী নেতা, হুইপসহ বেশ কয়েকজন বতর্মান সংসদ সদস্য।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নিবার্চন সামনে রেখে রোববার আওয়ামী লীগ তাদের প্রাথীের্দর প্রত্যয়ন দেয়া শুরু করেছে। ৩০০ আসনের মধ্যে জোটের সঙ্গে ভাগাভাগির জন্য কিছু রেখে আওয়ামী লীগ থেকে অন্তত ২৩৮ আসনের জন্য প্রাথীর্ মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

প্রথমবারের মতো দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন দলের দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ। মাদারীপুর-৩ আসনে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমকে বদলে গোলাপেই ভরসা রেখেছে দল।

শরীয়তপুরের দুটি আসনে দুই কেন্দ্রীয় নেতা প্রথমবারের মতো দলের হয়ে লড়ার টিফকট পেয়েছেন। এতে বাদ পড়েছেন প্রভাবশালী অন্য দুই নেতা।

শরীয়তপুর-১ এ দলের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেলকে হটিয়ে মনোনয়ন পেয়েছেন দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন অপু।

শরীয়তপুর-২ আসনে দলের মনোনয়ন পেয়েছে সাংগঠনিক সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এ কে এম এনামুল হক শামীম। ওই আসনে ছিটকে গেছেন বয়সের ভারে ন্যূজ ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বতর্মানে আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন নেত্রকোনা-৩ আসন থেকে। তার স্ত্রী অপু উকিল বতর্মানে এমপি।

মাগুরা-১ থেকে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব সাইফুজ্জামান শিখর। সাবেক এ ছাত্রনেতার বাবা মো. আসাদুজ্জামান মাগুরা থেকে বেশ কয়েকবার সংসদ সদস্য নিবাির্চত হয়েছিলেন। দ্বিতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্বও পালন করেন তিনি।

ঢাকা-১৩ আসনে দলের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানককে হটিয়ে মনোনয়নের চিঠি পেয়েছেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নে চমক দেখা গেছে ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুতর্জার মনোনয়নে। একদিনের ক্রিকেটের এ অধিনায়কের দেশজুড়ে রয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা। নড়াইল-২ থেকে লড়বেন মাশরাফি।

অভিনেতা আকবর হাসান পাঠান ফারুককে নৌকার প্রাথীর্ করা হয়েছে ঢাকার অভিজাত আসন গুলশান-বনানীতে। ফরিদপুর-১ আসনে দলের আরেক যুগ্ম সম্পাদক আবদুর রহমানের আসনে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন সাবেক সচিব ও বতর্মানে রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান মঞ্জুর হোসেন। 

অথর্মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত মনোনয়ন ফরম কিনলেও তিনিও ভোট করতে অনাগ্রহী ছিলেন। তার আসন সিলেট-১-এ নৌকার প্রাথীর্ হিসেবে প্রত্যয়ন পেয়েছেন তার ভাই এ কে আবদুল মোমেন; যিনি জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 

এর আগে দুই বার নিবার্চন করে হারলেও ঢাকা-১ আসন থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। দশম সংসদ নিবার্চনে দোহার ও নবাবগঞ্জের ওই আসনে জাতীয় পাটির্র প্রাথীর্র কাছে পরাজিত হয়েছিল আওয়ামী লীগের প্রাথীর্।

২০০১ সালে নৌকা নিয়ে লড়ে একই আসনে পরাজিত হন সালমান। ১৯৯৬ সালে নিজের গড়া সমৃদ্ধ বাংলাদেশ আন্দোলন নামে দল গঠন করে ধানমÐির আসনে লড়েও জিততে পারেননি। কিশোরগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের টিকিট পেয়ে লড়বেন পুলিশের সাবেক মহাপরিদশর্ক নূর মোহাম্মদ। ২০০৭ সালে সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত¡াবধায়ক সরকার ক্ষমতায় এলে নূর মোহাম্মদ পুলিশ প্রধানের দায়িত্ব পান। পরে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষমতায় এলে পুলিশ থেকে অবসরে যাওয়া নূর মোহাম্মদ রাষ্ট্রদূত ও সচিবের দায়িত্বও পালন করেন।

কুমিল্লা-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রাথীের্ক বাদ দিয়ে নৌকা প্রতীক দেয়া হয়েছে ব্যাবসায়ী সেলিমা আহমাদকে। সেলিমা নিটল-নিলয় গ্রæপের মালিক আবদুল মাতলুব আহমাদের স্ত্রী।

নানা অভিযোগে থাকা বতর্মান সাংসদ আবদুর রহমান বদিকে মনোনয়ন না দিলেও তার আসন কক্সবাজার-৪-এ মনোনয়ন দেয়া হয়েছে তার স্ত্রী শাহিনা আক্তার চৌধুরীকে।

তেমনি আওয়ামী লীগ নেতা হত্যাকাÐের অভিযোগে কারাগারে থাকা বতর্মান সাংসদ আমানুর রহমান খান রানাকে বাদ দিয়ে টাঙ্গাইল-৩ আসনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে তার বাবা আতাউর রহমান খানকে।

চঁাপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনে বতর্মান সাংসদকে পরিবতর্ন করে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ডা. সামিল উদ্দিন আহম্মেদ শিমুলকে। শিমুল আওয়ামী লীগ সমথির্ত স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক। শিমুলের বাবা আওয়ামী লীগ থেকে তিনবার সংসদ সদস্য নিবাির্চত হয়েছিলেন। 

চঁাপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে বতর্মান সাংসদকে বাদ দিয়ে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে নবম সংসদের নিবাির্চত হওয়া জিয়াউর রহমানকে।

আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত আব্দুল জলিলের ছেলে নিজাম উদ্দিন জলিলকে প্রথমবারের মতো দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। বতর্মান সাংসদকে পরিবতর্ন করে মনোনয়ন পাওয়া তরুণ ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল লড়বেন তার বাবার আসন নওগঁা-৫ থেকে।

চট্টগ্রাম-৯-এ মনোনয়ন দেয়া হয়েছে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে। নওফেলের বাবা প্রয়াত মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র ছিলেন। দশম সংসদে মহাজোটের হয়ে জাতীয় পাটির্ থেকে এ আসনে বিজয়ী হয়েছিলেন জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু।

নেত্রকোনা-২ ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়কে বাদ দিয়ে ফিরিয়ে আনা হয়েছে সাবেক সাংসদ আশরাফ আলী খান খসরুকে।

কুষ্টিয়ার দুই আসনে পরিবতর্ন আনা হয়েছে। কুষ্টিয়া-১-এ মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আ ক ম সারোয়ার জাহান। আর কুষ্টিয়া-৪-এ মনোনয়ন পেয়েছেন তরুণ ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জজর্। জজের্র দাদা গোলাম কিবরিয়া বঙ্গবন্ধুর সরকারের সময় আওয়ামী লীগের সাংসদ থাকা অবস্থায় ঈদের নামাজের সময় আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। জজের্র চাচি সুলতানা তরুণ ২০০৮ সালে একই আসনের সাংসদ ছিলেন।

ঝিনাইদহের দুটি আসনে পরিবতর্ন আনা হয়েছে। ঝিনাইদহ-২ আসনে আওয়ামী লীগ ভরসা রাখছে গতবার স্বতন্ত্র থেকে নিবাির্চত সাংসদ তাহজীব আলম সিদ্দিকীর সমির ওপর। সমির বাবা নূরে আলম সিদ্দিকী একসময় ওই আসন থেকেই আওয়ামী সাংসদ হয়েছিলেন। গতবার নৌকার প্রাথীের্ক হারিয়ে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নিবাির্চত হন তাহজীব।

দশম সংসদে মনোনয়ন দেয়া না হলেও ঝিনাইদহ-৩ আসনে আবার ফিরিয়ে আনা হয়েছে সাবেক সাংসদ শফিকুল আযম খানকে।

বতর্মান সাংসদকে বাদ দিয়ে যশোর-২ আসনে নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে মেজর জেনারেল (অব.) নাসির উদ্দিনকে। বতর্মানের স্বতন্ত্র সাংসদ স্বপন ভট্টাচাযের্ক যশোর-৫ থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

বাগেরহাট-২ আসনে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন শেখ হেলালের ছেলে শেখ সারহান নাসের তন্ময়। খুলনা-২ আসনে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল। শেখ হেলাল ও শেখ জুয়েল দুজনই বঙ্গবন্ধুর ভাই শেখ নাসেরের ছেলে।

নুরুল হককে বাদ দিয়ে খুলনা-৬ আসনে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন দেয়া হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকতারুজ্জামান বাবুকে।

নাটোর-১ আসনে আবুল কালাম আজাদকে সরিয়ে শরীফুল ইসলাম বকুলকে প্রাথীর্ করা হয়েছে। সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের বতর্মান সাংসদ গাজী ম ম আমজাদ হোসেন মিলনের পরিবতের্ প্রথমবারের মতো মনোনয়ন দেয়া হয়েছে স্বাচিপ নেতা ডা. আবদুল আজিজকে।

পাবনা-২ আসনে প্রথমবারের মতো দলের মনোনয়ন পেয়েছেন আহমেদ ফিরোজ কবির। সাবেক সাংসদ প্রয়াত আহমেদ তফিজ উদ্দিনের ছেলে কবির এর আগে উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন।

পটুয়াখালী-১ আসনে জাতীয় পাটির্র সংসদ সদস্য রুহুল আমীন হাওলাদারকে গতবার ছেড়ে দিলেও প্রাথীর্ হিসেবে ফিরিয়ে আনা হয়েছে সাবেক ধমর্ প্রতিমন্ত্রী শাহজাহান মিয়াকে।

পটুয়াখালী-২ (বাউফল) আসনে প্রথমবারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সুপ্রিম কোটের্র আইনজীবী খোন্দকার শামসুল হক রেজা। পটুয়াখালীতে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও প্রয়াত সাবেক এমপি আবদুল আজিজ খন্দকারের ছেলে শামসুল হক রেজা।

পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) সংসদীয় আসনে প্রথমবারের মতো নৌকার টিকিট পেয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এস এম শাহাজাদা। তিনি প্রধান নিবার্চন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার ভাগ্নে।

পটুয়াখালী-৪ আসনে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন মুহিবুর রহমান মুহিব।

বরিশাল-৫-এ বেগম জেবুন্নেছা আফরোজকে বাদ দিয়ে সাবেক সেনা কমর্কতার্ জাহিদ ফারুক শামীমকে প্রাথীর্ করা হয়েছে।

পিরোজপুর-১ আসনে প্রথমবারে মতো মনোনয়ন পেয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় আইন সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম।

কয়েকবার সংসদ নিবাির্চত হলেও বরগুনা-১ আসনে ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু নৌকা প্রতীক পাচ্ছেন কিনা, তা নিশ্চিত না। তার সঙ্গে যুগ্মভাবে দলের টিকিট পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির।

ঢাকার পাশের টাঙ্গাইলে চারটি আসনের বতর্মান সাংসদরা বাদের তালিকায় ঢুকেছেন। টাঙ্গাইল-২-এ সাবেক সচিব খোন্দকার আসাদুজ্জামানকে বাদ দিয়ে দলীয় প্রতীক দেয়া হয়েছে তানভীর হাসানকে (ছোট মনির)।

টাঙ্গাইল-৬-এ খন্দকার আবদুল বাতেনকে সরিয়ে নৌকা দেয়া হয়েছে আহসানুল ইসলাম টিটুকে। টিটুর বাবা মকবুল হোসেন ১৯৯৬ সালে ঢাকার মোহাম্মদ থেকে সাংসদ নিবাির্চত হয়েছিলেন।

টাঙ্গাইল-৮-এর বতর্মান সাংসদ অনুপম শাহজাহান জয়কে বাদ দিয়ে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জোয়াহেরুল ইসলামকে।

জামালপুর-৪-এ বতর্মান সাংসদকে সরিয়ে সাবেক সাংসদ মুরাদ হাসানকে প্রত্যয়ন দেয়া হয়েছে। জামালপুর-৫- এ বতর্মান সাংসদ রেজাউল করিম হীরার পাশাপাশি মোজাফ্ফর হো?সেনকেও মনোনয়নের তালিকায় রাখা হয়েছে।

নেত্রকোনা-১ আসনে প্রথমবারের মতো মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মানু মজুমদার।

শারীরিক অসুস্থতায় বিদেশে চিকিৎসাধীন দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে দলের টিকিট দেয়া হলেও তার সঙ্গে কিশোরগঞ্জ-১ আসনে প্রাথীর্ও রাখা হয়েছে মশিউর রহমান হুমায়নকে।

এই বিভাগের আরো খবর