• মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৫ ১৪২৭

  • || ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
১২ বছরের ব্যর্থতার জন্য বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত বিদেশে পালালেও এসআই আকবরকে ফিরিয়ে আনা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরিপত্র জারি : ৭ মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১, শনাক্ত ১৬৩৭ জনগণের ভাষা বুঝে না বলেই বিএনপি ব্যর্থ: কাদের ৭ কার্যদিবসেই শিশু ধর্ষণ মামলার রায়, আসামির যাবজ্জীবন ২৫ টাকা কেজিতে আলু বিক্রি করবে টিসিবি: বাণিজ্যমন্ত্রী পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী ৩০ অক্টোবর সরকারের আশ্বাসে ইন্টারনেট-ডিশ সংযোগ ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত স্থগিত ইন্টারনেট-ক্যাবল টিভি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৩, শনাক্ত ১২০৯ ৬০ মিশনে দূতাবাস অ্যাপ চালু করা হয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ সঠিক পথেই হাঁটছে: তাজুল ইসলাম করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬০০ টাঙ্গাইলে গণধর্ষণ মামলায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড ভূমিহীনদের ২ শতাংশ জমি দেয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী টেকনাফে সমুদ্র থেকে বাংলাদেশি ৭ জেলে উদ্ধার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩১, শনাক্ত ১৪৭২ পাপিয়া দম্পতির ২৭ বছরের কারাদণ্ড আইন সংশোধনে প্রধানমন্ত্রী নিজেই উদ্যোগ নিয়েছেন: কাদের

বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস আজ

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০  

বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও আজ (মঙ্গলবার) পালিত হবে বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস-২০২০। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ৬০টি সংস্থার যৌথ উদ্যোগে অনলাইন সেমিনারসহ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

সোমবার ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচির কথা জানানো হয়। বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস উদযাপন জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উত্থাপন করেন ডিটিসিএর নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত নির্বাহী পরিচালক জাকির হোসেন মজুমদার, মিডিয়া কমিটির আহ্বায়ক সাংবাদিক নিখিল ভদ্র প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বছর ‘হাঁটা ও সাইকেলে ফিরি, বাসযোগ্য নগর গড়ি’ স্লোগানে ৬০টি সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সম্মিলিত উদ্যোগে দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে। বর্তমান (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে এ বছর বাইরে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে না। দিবসটি উপলক্ষে কর্মসূচিকে ভিন্নভাবে সাজানো হয়েছে। 

দিবসটি উপলক্ষে শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে হাঁটা ও সাইকেল চালানোর প্রতি উৎসাহিত করতে প্রবন্ধ ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া ফেসবুক প্রোফাইল ফ্রেম তৈরি, দিবসের দিন ‘আমি ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করবো না’ মর্মে অনলাইন ক্যাম্পেইন ও মতামত নেয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে পোস্টার, লিফলেট এবং বিভিন্ন সড়ক দ্বীপে ফেসটুন স্থাপন করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, নাগরিকদের ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার না করে বরং সাইকেল, হাঁটা বা গণপরিবহন ব্যবহারে উৎসাহিত করতে ৭০’র দশকে ইউরোপে গাড়িমুক্ত দিবসের সূচনা হয়। ২০০৬ সাল থেকে দেশে বেসরকারি উদ্যোগে দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে। তবে ২০১৬ সালে প্রথমবারের মতো সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সমন্বয়ে এটি পালন শুরু হয়। এই দিবসের অঙ্গীকার অনুযায়ী সরকারের পক্ষ থেকে ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার সীমিত বা নিয়ন্ত্রিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।