শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২০ ১৪২৬   ০৯ শা'বান ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান করোনায় খাদ্য ঘাটতি হবে না : কৃষিমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখ‌ছেন প্রধানমন্ত্রী আজ সকালে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কনফারেন্স পিপিই যেন নষ্ট না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা মোকাবিলায় সরকার জনগণের পাশে আছে -প্রধানমন্ত্রী ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়া যাবে না : সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন করোনা সংকটকালে জনগণের পাশে থাকবে আ.লীগ: কাদের আমি করোনায় আক্রান্ত হইনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নেই : আইইডিসিআর পদ্মা সেতু‌তে বসলো ২৭তম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো ৪ হাজার ৫০ মিটার সব পোশাক কারখানা বন্ধের নির্দেশ ভোলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নৌ-বাহিনীর টহল পবিত্র শবে বরাত ৯ এপ্রিল অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না : প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

‘বেদের মেয়ে জোছনা’ সিনেমার প্রযোজক আর নেই

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২০  

না ফেরার দেশে চলে গেলেন ‘বেদের মেয়ে জোছনা’খ্যাত প্রযোজক মতিউর রহমান পানু।

মঙ্গলবার রাত ১১টা ২০ মিনিট উত্তরার নিজ বাসায় তিনি ইন্তেকাল করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

তার মৃত্যু সংবাদটি চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু নিশ্চিত করেছেন।

খসরু জানান, বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন পানু ভাই। মঙ্গলবার রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন এই খ্যাতনাম পরিচালক ও প্রযোজক।

তিনি বলেন, পানু ভাই বেদের মেয়ে জোসন, মোল্লা বাড়ির বউ, মনের মাঝে তুমিসহ অসংখ্য চলচ্চিত্রের প্রযোজক এবং প্রখ্যাত পরিচালক। চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির পক্ষ থেকে তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

উল্লেখ্য, ১৯৬৪ সালে প্রথমে সহকারী পরিচালক হিসেবে সিনেমাপাড়ায় হাতেখড়ি হয় মতিউর রহমান পানুর। ১৯৭৯ সালে তিনি ‘হারানো মানিক’ ছবিটি পরিচালনা করে পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।

পানু ১৯৯০-১৯৯১ সালে ভারতের কলকাতায় ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ ছবিটি নির্মাণ করেন, বছর খানেকের মধ্যেই তার সহকারী তোজাম্মেল হক বকুল বাংলাদেশের পটভূমিতে একই শিরোনামে ছবিটি পুনর্নির্মাণ করেন। ২০০২ সালের শেষ দিকে এসে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ‘মনের মাঝে তুমি’ ছবিটি । ২০০৫ সালে সালাউদ্দিন লাভলু পরিচালিত ‘মোল্লা বাড়ীর বউ’ ছবিটিও তিনি প্রযোজনা করেন।

তার নির্মিত অন্যান্য ছবিগুলো হচ্ছে - আপন ভাই, নাগ মহল, নির্দোষ, সাহস, মান মর্যাদা, নির্যাতন, সাথী,ডাক্তার বাড়ি এবং ওরে সাম্পানওয়ালা।

এই বিভাগের আরো খবর