• সোমবার   ২১ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪২৮

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
মঙ্গলবার থেকে সাত জেলায় লকডাউন, বন্ধ গণপরিবহন সেনাবাহিনীর অপারেশনাল সক্ষমতা বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী একসঙ্গে ঘর পেল ৫৩ হাজার অসহায় পরিবার, বিশ্বে নজিরবিহীন বিশ্ব শান্তি সূচকে সাত ধাপ এগোলো বাংলাদেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্র গঠনে অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলেন রাষ্ট্রপতি বিধিনিষেধ বাড়লো আরো এক মাস দেশের উন্নয়নে যেন কোনোভাবেই সুন্দরবন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় রাষ্ট্রপতি কাজাখ রাজধানীতে ওআইসি সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যোগ দিবেন এসএসএফের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী একটা করে বনজ, ফলজ ও ভেষজ গাছ লাগান: প্রধানমন্ত্রী করোনায় কোনো রকম রিস্ক না নিতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী এয়ার মার্শাল র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরলেন নতুন বিমানবাহিনী প্রধান স্কুল-কলেজে ছুটি আবার বাড়ল গণতন্ত্রের মুক্তি দিবস ১১ জুন মডেল মসজিদের মাধ্যমে ইসলামের মর্মবাণী বুঝবে মানুষ ইসলাম আমাদের মানবতার শিক্ষা দিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী খুন করে কি বেহেশতে যাওয়া যায়, প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন ‘লেবাস নয়, ইনসাফের ইসলামে বিশ্বাস করি’ একযোগে ৫০ মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী করোনা থেকে রক্ষা পেতে সকল রাষ্ট্রকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে

মার্কেটে গিয়ে ঈদের কেনাকাটায় সাবধান

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ মে ২০২১  

কিছুদিন পরেই মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদ মানেই আনন্দ, নতুন জামাকাপড়, বাহারি খাবার ইত্যাদি। টানা এক মাস অনাহারে থেকে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় সিয়াম পালন করেন মুসলিমরা। অবশেষে এই কষ্টের পর ঘরে ঘরে ঈদের উৎসবে মেতে ওঠেন সবাই।  

দেখা যায়, প্রতিবছর এই ঈদকে কেন্দ্র করে দেশের বিপনিকেন্দ্রগুলোতে মানুষের কেনাকাটার ধুম পড়ে। প্রত্যেকের যার যার সাধ্যের মধ্যে ঈদকে রাঙিয়ে তুলতে চান। কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রতিকূল বাস্তবতায় গতবারের মতো এবারও ঈদ এসেছে ভিন্ন রূপে। চারপাশে থমথমে আহব। উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা আর দুশ্চিন্তা মানুষের মনে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্ত আর মৃত্যুর সংখ্যা।

তাই বলে তো ঈদের আনন্দকে একেবারে মাটি করা যায় না। যেহেতু ঈদ মানেই খুশি, ঈদ মানেই আনন্দ। আর সেই খুশি আর আনন্দের বড় অনুষঙ্গ নতুন পোশাক। ঈদের দিন গায়ে নতুন পোশাক না থাকলে কি চলে! তবে করোনার এই সংক্রমণের কালে ঈদের কেনাকাটায় অবশ্যই সাবধান থাকতে হবে।

এ বিষয়ে কিছু টিপস তুলে ধরা হলো যা আপনাদের এই কঠিন পরিস্থিতে সতর্ক থাকতে সহায়তা করবে-

>> শপিং সেন্টারে যাওয়ার আগে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করুন।

>> যতটা সম্ভব কম সময়ে কেনাকাটা শেষ করুন।

>> সবাই মিলে শপিংয়ে যাওয়ার দরকার নেই।

>> ভালো করে খেয়াল করুন, আপনি যে দোকানে কেনাকাটা করতে চাইছেন সেখানে বিক্রেতারা হ্যান্ডগ্লাভস, মাস্ক পড়েছেন কিনা।

>> জনসমাগম এড়াতে দিনের শুরুতেই যা কেনার কিনে নিয়ে আসুন। কারণ সকাল সকাল মানুষের ভিড়টা একটু কম থাকে।

>> অনেক সময় আমরা পছন্দের পোশাকটি কতটা মানানসই হবে সেটা ট্রায়াল করি। কিন্তু করোনাকালীন ট্রায়াল না করাই ভালো। কারণ এই পোশাকটিতে আরও অনেক ক্রেতার হাতের স্পর্শ লেগে থাকতে পারে।

>> সম্ভব হলে নতুন কাপড় বাসায় এনে ধুয়ে ইস্ত্রি করে নিন। তাতে স্বাস্থ্যঝুঁকি কম থাকবে।