• মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৫ ১৪২৭

  • || ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
১২ বছরের ব্যর্থতার জন্য বিএনপির নেতৃত্বের পদত্যাগ করা উচিত বিদেশে পালালেও এসআই আকবরকে ফিরিয়ে আনা হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী পরিপত্র জারি : ৭ মার্চকে ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২১, শনাক্ত ১৬৩৭ জনগণের ভাষা বুঝে না বলেই বিএনপি ব্যর্থ: কাদের ৭ কার্যদিবসেই শিশু ধর্ষণ মামলার রায়, আসামির যাবজ্জীবন ২৫ টাকা কেজিতে আলু বিক্রি করবে টিসিবি: বাণিজ্যমন্ত্রী পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী ৩০ অক্টোবর সরকারের আশ্বাসে ইন্টারনেট-ডিশ সংযোগ ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত স্থগিত ইন্টারনেট-ক্যাবল টিভি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২৩, শনাক্ত ১২০৯ ৬০ মিশনে দূতাবাস অ্যাপ চালু করা হয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশ সঠিক পথেই হাঁটছে: তাজুল ইসলাম করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬০০ টাঙ্গাইলে গণধর্ষণ মামলায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড ভূমিহীনদের ২ শতাংশ জমি দেয়া হবে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী টেকনাফে সমুদ্র থেকে বাংলাদেশি ৭ জেলে উদ্ধার করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩১, শনাক্ত ১৪৭২ পাপিয়া দম্পতির ২৭ বছরের কারাদণ্ড আইন সংশোধনে প্রধানমন্ত্রী নিজেই উদ্যোগ নিয়েছেন: কাদের

শিগগিরই নির্মিত হচ্ছে দেশের প্রথম হেলিপোর্ট টার্মিনাল

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০  

রাজধানীতে শিগগিরই নির্মিত হচ্ছে দেশের প্রথম হেলিপোর্ট টার্মিনাল। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছেই কাওলায় প্রায় ১শ বিঘা জায়গার ওপর আগামী এক থেকে দেড় বছরের মধ্যেই এটি নির্মিত হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক মানের এই হেলিপোর্ট নির্মাণের নির্দেশনা দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এরইমধ্যে পরামর্শকও নিয়োগ করেছে। 

বেবিচক সূত্রে জানা যায়, ৫শ কোটি টাকা ব্যয়ে আন্তর্জাতিক মানের এই হেলিপোর্টে ৮০টি হেলিকপ্টার একসঙ্গে অবস্থান করতে পারবে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের গোলচত্বর লাগোয়া দক্ষিণে রেললাইনের পূর্ব পাশে বেবিচকের নিজস্ব জমিতেই এটি নির্মিত হবে। 

বেবিচক চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান বলেন, আগামী এক থেকে দেড় বছরের মধ্যেই হেলিপোর্ট টার্মিনাল নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হবে। 

এভিয়েশন বিশ্লেষকদের মতে, যানজট এড়ানো ছাড়াও সময় বাঁচাতে সামর্থ্যবান ব্যবসায়ী, চলচ্চিত্র নির্মাতা, হাসপাতাল মালিক ও বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিকল্প পথ খুঁজছে। এর ধারাবাহিকতায় কর্পোরেট লেভেলে হেলিকপ্টারের ব্যবহার বাড়েছ। ফলে হেলিপোর্ট নির্মাণ করা প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে।

জানা গেছে, ব্যক্তিগত প্রয়োজন, সিনেমার শ্যুটিং, রাজনৈতিক সভা সমাবেশে অংশগ্রহণ, রোগী পরিবহন, বিভিন্ন কোম্পানির বোর্ড মিটিং থেকে শুরু করে ঢাকায় আসা-যাওয়ায় ব্যবহার হচ্ছে হেলিকপ্টার। কিন্তু প্রতিবার উড্ডয়নের জন্য বেবিচক থেকে অনুমতি নিতে হয়। হেলিপোর্ট নির্মিত হলে প্রতিবার আর অনুমতি নেয়ার প্রয়োজন হবে না।

বেবিচক সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে নয়টি প্রতিষ্ঠানের হেলিকপ্টারের লাইসেন্স রয়েছে। তাদের ২৭টি হেলিকপ্টার রয়েছে। আরো কয়েকটি কোম্পানি এরইমধ্যে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছে। 

বাংলাদেশে বাণিজ্যিকভিত্তিতে হেলিকপ্টার সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সিকদার গ্রুপের মালিকানাধীন আরঅ্যান্ডআর এয়ারলাইন্সের সাতটি হেলিকপ্টার আছে। 

এছাড়া সাউথ এশিয়ান এয়ারলাইন্সের চারটি, বসুন্ধরা গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপ ও স্কয়ার গ্রুপের ৩টি করে হেলিকপ্টার রয়েছে। পিএইচপি গ্রুপের ও বাংলা ইন্টারন্যাশনালের ১টি হেলিকপ্টার রয়েছে। আর বিআরবি কেবল, ইমপ্রেস এভিয়েশন ও এমএএস বাংলাদেশের ২টি করে হেলিকপ্টার রয়েছে। এর মধ্যে আরঅ্যান্ডআর, বিআরবি কেবল, বাংলা ইন্টারন্যাশনাল, পিএইচপি এয়ারলাইন্সের শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হ্যাঙ্গার রয়েছে।