• সোমবার   ২৫ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৭

  • || ০২ শাওয়াল ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জীবন বাঁচাতে জীবিকাও সচল রাখতে হবে: কাদের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৭৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু আরও ২০ জনের মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন মোংলা ও পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত মহাবিপদ সংকেত জারি সকালে, রাতের মধ্যে আসতে হবে আশ্রয় কেন্দ্রে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন আম্পানের আঘাতে ১০ ফুটের অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা আরও ১২৫১ করোনা রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ২১ জনের আরও ৭ হাজার কওমি মাদ্রাসাকে প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা পায়রা-মংলায় ৭, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেশে একদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড সমুদ্রসীমায় অবৈধ মৎস্য আহরণ বন্ধ করতে হবে: প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী পাঁচ হাজার টেকনোলজিস্ট নিয়োগের ঘোষণা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর করোনা সংক্রমণে বাংলাদেশ কিছুটা ভালো অবস্থানে আছে: কাদের করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১৪ মৃত্যু, শনাক্ত ১২৭৩ আম্ফান : সমুদ্রবন্দরে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’, সাগরে ২ নম্বর সংকেত আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ত্রাণ নিয়ে অনিয়ম করলে দলীয় পরিচয় দিলেও ছাড় হবে না : কাদের স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করলে ঘোর অমানিশা নেমে আসবে : সেতুমন্ত্রী
৪১

শিশুসন্তান হত্যা,করোনার ঘাড়ে দোষ চাপালেন তুরস্কের ফুটবলার

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২০  

 


নিজ ছেলে পাঁচ বছরের শিশু কাসিম তোকতাসকে পছন্দ করতেন না বাবা তুরস্কের ফুটবলার সিভহার তোকতাস। আর তাই সুযোগ বুঝে কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন শিশু সন্তানকে শাঁসরোধ করে হত্যা করেন এই ফুটবলার। হত্যার দোষ চাপিয়েছিলেন করোনাভাইরাসের ওপর।
গত ২৩ এপ্রিলে নিজের ছোট ছেলেকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন তিনি। পরে বুরসা শহরে এক হাসপাতালে নিয়ে যান। চিকিৎসকদের বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের কারণে মারা গেছেন তার ছেলে কাসিম। 

শ্বাসযন্ত্রের সমস্যার কারণে যেহেতু মারা গেছে ছেলেটি, তাই ডাক্তাররাও সন্দেহ করেননি। তবে ডাক্তারকে ফাঁকি দিলেও নিজের বিবেককে ফাঁকি দিতে পারেননি সিভহার। হত্যার দশ দিন পর নিজেই পুলিশের কাছে ধরা দিয়েছেন।

স্বিকার করেছেন হত্যার মূল রহস্য, ‘ও ঘুমিয়ে ছিল। বালিশ দিয়ে আমি ওর মুখ চেপে ধরি। প্রথমে একটু প্রতিরোধ করতে চাইলেও পরে আর পেরে ওঠেনি। পনেরো মিনিট ধরে ওর মুখে বালিশ চেপে রাখি। আস্তে আস্তে নিস্তেজ হয়ে যায় ওর শরীর’।

তিনি আরো বলেন, আমি ওকে কখনই চাইনি। কেন জানি ওকে সহ্যই করতে পারতাম না। জন্ম থেকেই ওকে ভালো লাগতো না আমার। এটাই একমাত্র কারণ ও মারা যাওয়ার পেছনে, আমি ওকে পছন্দ করতাম না।

নিজের কোনো মানসিক সমস্যা নেই বলে পুলিশকে জানিয়েছেন ইলদ্রিমস্পোর ক্লাবে খেলা এ সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার। 

খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর