শুক্রবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ৮ ১৪২৬   ২৬ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
উন্নত দেশ গড়তে বেসরকারি সহযোগিতা প্রয়োজন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুজিববর্ষে বিএনপিকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে: কাদের ভণ্ডপীরসহ ৯ জনের কারাদণ্ড প্রধানমন্ত্রী সব সময় শিক্ষাকে গুরুত্ব দেন: পরিকল্পনামন্ত্রী মুজিব বর্ষে নতুন শিল্প কারখানা স্থাপন করা হবে: শিল্প প্রতিমন্ত্রী আসন্ন সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের শঙ্কা নেই : বিদ্যুৎ বিভাগ একুশে পদক হাতে তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস শুক্রবার একুশে পদক মেধা ও মনন চর্চার ক্ষেত্র সম্প্রসারিত করবে : রাষ্ট্রপতি এনামুল বাছিরের পদোন্নতির আবেদন হাইকোর্টে খারিজ সমৃদ্ধ দেশ গড়তে সুস্থ যুব সমাজের বিকল্প নেই : প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ ডাকঘর সঞ্চয়ের সুদহার পুনর্বিবেচনা করা হবে : অর্থমন্ত্রী মুঠোফোন প্রতারক জিনের বাদশা গ্রেফতার করোনাভাইরাস নিয়ে গুজবে কান দিবেন না : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাগর তীরে উঁচু স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিএনপি জ্বালাও-পোড়াও না করলে দেশ আরো এগিয়ে যেত : তথ্যমন্ত্রী শহীদ দিবসে জঙ্গি হামলার কোনো সম্ভাবনা নেই : ডিএমপি কমিশনার দেশে ব্রয়লারসহ কোন পশু-পাখির মধ্যে করোনা পাওয়া যায়নি : আইইডিসিআর বিশ্ববাসীর কাছে বাংলাদেশ এখন অনুকরণীয়: শ ম রেজাউল ওআইসিকে শক্তিশালী করতে চাই: ড. মোমেন
৮১

শীতে শিশুর গোসল যেভাবে করাবেন

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২০  

শীতের সময় শিশুদের গোসল নিয়ে অনেকেই বেশ টেনশনে থাকেন; অনেকে দ্বিধায় পড়েন। অথচ এ সময় নিয়মিত গোসল করানো ভালো। না করালে বরং ত্বকে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। শীতকালে বাতাসের আর্দ্রতা কম থাকায় ত্বক শুষ্ক থাকে, খসখসে ভাব হয়। শরীর ঘেমেও যায়। এই ঘাম থেকে দুর্গন্ধ হয়, ত্বকে ফুসকুড়ি ওঠে, ত্বকে সংক্রমণ হতে পারে। তাই কিছু করণীয় হলো—

►   জন্মের পর নবজাতককে (২৮ দিন বয়স পর্যন্ত) ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত গোসল না করানো উচিত। এরপর প্রতি এক দিন পর পর গোসল করানো যেতে পারে। এ ছাড়া শিশুর অন্য কোনো সমস্যা না থাকলে নিয়মিত গোসল করানো উচিত।

►   শিশুকে সহনীয় হালকা উষ্ণ পানি দিয়ে গোসল করান। হালকা গরম পানিতে গোসল করালে শরীরের বন্ধ লোমকূপ খুলে যায় এবং রক্ত চলাচলের গতি বেড়ে যায়।

►   গোসলের আগে শিশুকে কিছুক্ষণ রোদে রাখার পর অলিভ অয়েল বা সরিষার তেল শরীরে মালিশ করলে ঠাণ্ডা লাগার আশঙ্কা কমবে। ত্বকও থাকবে অনেক ভালো।

►   কানে যাতে পানি না ঢোকে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

►   ৩০ দিনের বেশি বয়সী শিশুদের প্রতিদিন গোসল করাবেন। তবে নিউমোনিয়া বা ঠাণ্ডার লক্ষণ থাকলে না করানোই উচিত।

►   শীতে শিশুদের জন্য গ্লিসারিনযুক্ত সাবান ব্যবহার করুন। গোসল শেষে নরম তোয়ালে দিয়ে শরীর মুছে দিন। এরপর ত্বক শুকিয়ে যাওয়ার আগেই তাড়াতাড়ি ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে দিন। এতে শিশুর ত্বক ভালো থাকে।

►   গোসলের সময় এক দিন পর পর চুল ভালোভাবে শ্যাম্পু করান। এতে মাথার ত্বক ভালো থাকবে এবং মাথায় কোনো ফুসকুড়ি উঠবে না।