• রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন চলছে: রেলমন্ত্রী দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৪৫ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৪০ জন বাস ভাড়া যৌক্তিক সমন্বয়, প্রজ্ঞাপন আজই: ওবায়দুল কাদের এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবো না: প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে এসএসসির ফল প্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল ১২টার পরিবর্তে ১১টায় প্রকাশ হবে এসএসসির ফল করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৭৬৪ পদ্মাসেতুর সাড়ে ৪ কি.মি. দৃশ্যমান, বসল ৩০তম স্প্যান পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যান বসছে আজ একদিনে সর্বোচ্চ আড়াই হাজার শনাক্ত, মৃত্যু ২৩ জনের বিকেল ৪টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে দোকান-শপিংমল দেশে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২ হাজার ছাড়ালো, মৃত্যু ১৫ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১ মে থেকে গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত দেশে একদিনে নতুন শনাক্ত ১৫৪১, মৃত্যু ২২ জীবন বাঁচাতে জীবিকাও সচল রাখতে হবে: কাদের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৮৭৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু আরও ২০ জনের মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফোন মোংলা ও পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত মহাবিপদ সংকেত জারি সকালে, রাতের মধ্যে আসতে হবে আশ্রয় কেন্দ্রে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন
২৬

সাকিবের সেই অশ্লীল ইঙ্গিত নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন শফিউল

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৭ মে ২০২০  

বছর ছয়েক আগের ঘটনা। মিরপুরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডের পর কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছিল সাকিব আল হাসানকে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, ক্যামেরার দিকে অশ্লীল ইঙ্গিতের। যার জন্য তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা, সঙ্গে আবার ৩ লাখ টাকা জরিমানাও গুনতে হয় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে।

কি করেছিলেন সাকিব? আউট হয়ে ফেরার পর ড্রেসিংরুমে খালি গায়ে তোয়ালে জড়িয়ে বসে ছিলেন দেশসেরা অলরাউন্ডার। এ সময় তার দিকে বার কয়েক ক্যামেরা ধরা হয়। এক পর্যায়ে দেখা গেল, ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে স্পর্শকাতর জায়গার দিকে হাতে ইঙ্গিত করেন সাকিব।

তার এমন আচরণ নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। এই ঘটনার পুরো দায় সাকিবের ঘাড়েই পড়েছে। তবে আসলে সেদিন কেন এমন আচরণ করেছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার, জানা যায়নি তখন।

ঘটনার সময় ড্রেসিংরুমে সাকিবের পাশেই বসা ছিলেন শফিউল ইসলাম। তাকেও হাসতে দেখা যায়। অবশেষে বিতর্কিত সেই ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন টাইগার পেসার।

সম্প্রতি এক ফেসবুক লাইভ চ্যাটে শফিউল জানান, সাকিবকে আসলে ওই ঘটনার জন্য পুরোপুরি দোষী করা যায় না। কারণ ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময় ছিল তখন। সাকিব ভীষণ চিন্তিত ছিলেন, ক্যামেরাম্যানকে ভিডিও করতে নিষেধও করেছিলেন।

শফিউল বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য খুব ক্লোজ ম্যাচ ছিল। সাকিব ভাই গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আউট হয়ে যান। তিনি খুব উত্তেজিত ছিলেন। চেঞ্জ রুম থেকে ফ্রেস হয়ে তিনি একটি টাওয়েল জড়িয়েই চলে আসেন। কি হচ্ছে বুঝতে পারছিলেন না তখন, ক্যামেরাম্যানকে ছবি নিতে নিষেধও করেছিলেন। তার হাতটা সেখানে মনের অজান্তেই চলে যায়।’

সাকিবের ওই ঘটনায় শুনানিতে ডাকা হয়েছিল শফিউলকেও। জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, আসলে কি বলেছেন সাকিব। এই বিষয়ে টাইগার পেসার বলেন, ‘ড্রেসিংরুমে আমাদের মধ্যে খুনসুঁটি চলছিল, আমি তখন হাসতে শুরু করি। এ কারণে যখন আমাকে ডাকা হয়েছিল আমি বলেছি, সাকিব ভাই কিছু বলেনি।’

সাকিব যা কিছুই করেছেন, সেটি ইচ্ছে করে নয় বরং ম্যাচের উত্তেজনার বশেই, মনে করেন শফিউল। তার ভাষায়, ‘সম্ভবত, আউট হওয়ার পর তিনি হতাশ ছিলেন। এরপর যখন ক্যামেরা তার দিকে তাক করা হলো, সেটা নিতে পারেননি। আমার মনে হয়, এটা (অশ্লীল ভঙ্গি) ইচ্ছেকৃত ছিল না। কেউই বুঝতে পারেনি, ঘটনাটা এতদূর গড়াবে।’

খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর