• রোববার   ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১০ ১৪২৭

  • || ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
ঢাকা শুধু বাসযোগ্য নয়, বিনোদন কেন্দ্রে পরিণত হবে: তাজুল করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২২, শনাক্ত ৪৩৬ সবার আগে আমি ভ্যাকসিন নেব : অর্থমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৫৮৪ সার্জেন্টের ওপর হামলাকারী সেই যুবক গ্রেপ্তার পিকে হালদারের দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে দুদক প্রতিক্রিয়াশীলতা বিএনপির রাজনৈতিক চরিত্র: কাদের সরকারের সাফল্যে বিএনপি উদ্ভ্রান্ত হয়ে গেছে : তথ্যমন্ত্রী বাইডেন কমলাকে রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন সীমান্তে শান্তি-শৃঙ্খলা বিরাজ করছে : সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় পৌঁছে গেছে করোনার টিকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে উড়িয়ে শুভ সূচনা টাইগারদের পৌর নির্বাচনে নৌকার বিপক্ষে গেলেই কঠোর ব্যবস্থা: কাদের রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা দিতে ভাসানচরে নতুন থানা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রথমে ঢাকায় টিকা কর্মসূচি শুরু হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০, শনাক্ত ৭০২ চলতি অর্থবছরে ১২ শিল্পনগরী স্থাপন হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী বিদ্রোহী প্রার্থীদের সঙ্গে কোনো আপস নয়: কাদের মেডিক্যালে ভর্তি পরীক্ষা এপ্রিলে, বাড়ছে ১১শ’ আসন করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৬, শনাক্ত ৬৯৭

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে হাস্যকর কর্মসূচি বিএনপির

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০২০  

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে বেশকিছু কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বিএনপি। যা হাস্যকর ও লোক দেখানো বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্টজনরা। সম্প্রতি সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপির সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও সদস্য সচিব আব্দুস সালাম কর্মসূচির বিষয়ে বিস্তারিত জানান।

বিশিষ্টজনদের মতে, যে দল তাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের যোগ্যতা রাখে না ও ক্ষমতার লোভে স্বাধীনতাবিরোধীদের নিয়ে জোট গঠন করে- সেই দলের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন শুধুই হাস্যকর। শুধু তাই-ই নয়, জনগণের সঙ্গে বড় ধরনের প্রতারণাও বটে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবীরা বলেন, বিএনপি নেতারা শুধু নিজ স্বার্থে রাজনীতি করেন। তারা জনস্বার্থে কোনো কর্মসূচি পালন করেন না। জনগণ এসব ষড়যন্ত্র বুঝতে পেরে তাদের কখনো সমর্থন করে না।

তারা বলেন, বিএনপির এখনো মূলশক্তি স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াত। তারা জামায়াতের কাঁধে ভর করে ক্ষমতায় গিয়েছিল। যুদ্ধাপরাধীদের হাতে দেশের পতাকা তুলে দিয়েছিল। সেই স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে এখনো তাদের সখ্যতা বিদ্যমান। এমন একটি দল যদি স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে চায় তাহলে সেটা হবে দেশের জনগণের সঙ্গে বড় ধরনের প্রতারণা।

সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবে প্রাথমিকভাবে যেসব কর্মসূচি বিএনপি নিয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- বছরব্যাপী কেন্দ্র থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়ে আলোচনা সভা, দেশব্যাপী সমাবেশ, জেলা-উপজেলা ও মহানগর পর্যায়ে জনসমাবেশ ও র‌্যালির আয়োজন করা। এছাড়া, বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনসমূহ স্ব স্ব কর্মসূচি নেবে।