মঙ্গলবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৪ ১৪২৬   ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
নেহা-আদিত্যর বিয়ে ১৪ ফেব্রুয়ারি সোয়া ৯ কোটি টাকা আত্মসাতে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা নৌকার গণজোয়ারে দিশেহারা বিএনপি প্রার্থী: তাপস এবার বিএনপি ছাড়ছেন কোষাধ্যক্ষ সিনহা! নারীর নিরাপত্তায় ৪৮ হাজার এলইডি লাইট লাগানোর প্রতিশ্রুতি আতিকের আতিকের নির্বাচনী কার্যালয়ে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক হাতিরঝিল—বনশ্রী হয়ে চট্টগ্রাম রোডে মিলবে পৃথক চারলেন ব্যাংককের ইমিগ্রেশন হচ্ছে শাহ আমানত বিমানবন্দরেও চীনে আটকে পড়াদের দেশে ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট পাঠাবে সরকার বিশ্ববিদ্যালয় জ্ঞান অর্জনের স্থান, র‌্যাগিং করার নয়- রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ-পাকিস্তানের টি টোয়েন্টি ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত ব্যস্ত মহাসড়কে মোটরসাইকেল চালাতে চালাতেই গোসল! ভিডিও ভাইরাল ক্যালিফোর্নিয়ায় হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় বাস্কেটবল তারকা নিহত হবিগঞ্জে বিশ্বের বড় কাঠবিড়াল সমালোচনা না করে দেশের সমস্যা সমাধানের আহ্বান তাজুলের বিদেশের মসজিদে আর অর্থ দেবে না সৌদি এত সুন্দরভাবে নির্বাচন হচ্ছে কীভাবে: ইসি সচিব জমাদিউস সানি শুরু আজ ভাঙা হৃদয় জোড়া লাগালেন ব্র্যাড পিট ও জেনিফার অ্যানিস্টন বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে ৫ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা
১৩

স্বীকৃতি পেল গোল্ডেন পেরিলা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২০  

পেরিলা। বৈজ্ঞানিক নাম Perilla frutescens। সম্প্রতি বাংলাদেশের আবহাওয়ায় পেরিলার সফল অভিযোজন সম্পন্ন হয়েছে রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি)। গত ১২ জানুয়ারি জাতীয় বীজ বোর্ড ‘সাউ পেরিলা-১ (গোল্ডেন পেরিলা বিডি)’ নামে পেরিলার নতুন এ জাতটির নিবন্ধন প্রদান করেছে। জাতটি সারাদেশে উৎপাদনক্ষম।

শেকৃবি কৃষিতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. এইচ এম এম তারিক হোসাইন’র অধীনে কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ুম মজুমদার পিএইচডি গবেষণায় পেরিলা নিয়ে গবেষণা সম্পন্ন করেছেন। গোল্ডেন পেরিলার নিবন্ধন প্রত্যয়নপত্রে বলা হয়েছে, ‘পেরিলা একটি ভোজ্যতেল ফসল যার শতকরা ৬৫ ভাগই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। এর তেল আমাদের শরীরের জন্য বেশ উপকারী বিশেষত হৃদযন্ত্র, মস্তিষ্ক ও ত্বকসহ ডায়াবেটিস রোগে এটি কার্যকর ভূমিকা রাখে।’ 

গবেষক আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ‘মূলত মানুষের সুস্বাস্থ্য ও দেশীয় জমির সর্বোচ্চ ব্যবহারের দিককে গুরুত্ব দিয়ে আমরা এ গবেষণা বেছে নিয়েছিলাম। মূল জমিতে পেরিলার জীবনকাল ৭০ থেকে ৭৫ দিন হওয়ায় সহজেই এটিকে চার ফসলি জমির আওতায় আনা সম্ভব হবে। পেরিলার প্রতিটি পুষ্পমঞ্জুরিতে ১০০ থেকে ১৫০ টি বীজ পাওয়া যায় বিধায় অন্য তেল ফসল থেকে এর উৎপাদনমাত্রা বেশি হওয়ার দাবি রাখে।’ 
গবেষণা তত্ত্বাবধায়ক ড. তারিক বলেন, ‘পেরিলার পাতা সবজি হিসেবে ও বীজকে তেল উৎপাদনে কাজে লাগিয়ে প্রধানত দুইভাবে এর ব্যবহার করা যায়। ফুল আসলে পেরিলা ক্ষেতে মৌমাছির ব্যাপক আনাগোনা বাণিজ্যিকভাবে মধু চাষেও সম্ভাবনা দেখাচ্ছে। আমাদের দেশে চাইনিজ, কোরিয়ান ও থাই রেস্টুরেন্ট গুলোতে বাইরে থেকে পেরিলা আনা হয়, সেক্ষেত্রে দেশে পেরিলা চাষের বিস্তৃতি আমাদের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারবে।’

গোল্ডেন পেরিলা’র ভবিষ্যত চিন্তা নিয়ে তিনি জানান, ‘আমাদের হাতে পর্যাপ্ত বীজ আছে। আমরা দেশের বিভিন্ন অ লে প্রদর্শনী প্লট বাস্তবায়নের মাধ্যমে চাষিপর্যায়ে জাতটি ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবো।

এই বিভাগের আরো খবর