• মঙ্গলবার   ১৮ মে ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৮

  • || ০৫ শাওয়াল ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
রাজধানীতে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার ৩ দিনের রিমান্ডে মামুনুল দুর্নীতি করলে ব্যাংক কর্মকর্তাদের জরিমানা, হবে ফৌজদারি মামলা ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় ৩২ জনের মৃত্যু শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নের কান্ডারি : সেতুমন্ত্রী ইতিহাস আর কেউ কোনো দিন বিকৃত করতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী আরও তিনদিনের রিমান্ডে মামুনুল হক ২৪ ঘণ্টা করোনায় আরও ৪০ মৃত্যু, আক্রান্ত ১১৪০ আল-আকসা মসজিদে হামলায় প্রধানমন্ত্রীর নিন্দা খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকার আন্তরিক: হানিফ ড. ওয়াজেদ মিয়া দেশে আণবিক গবেষণার পথিকৃৎ: রাষ্ট্রপতি লাইলাতুল কদর এক মহিমান্বিত রজনী: প্রধানমন্ত্রী ২৪ ঘণ্টায় করোনায় দেশে ৪৫ মৃত্যু খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই : হানিফ তাণ্ডবকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনলাইনে পরীক্ষা নিতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আজই ফিরছেন সাকিব-মুস্তাফিজ খালেদা জিয়ার আবেদন পেয়েছি, দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে: আইনমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২০ মিলিয়ন টিকা চেয়েছে বাংলাদেশ: আব্দুল মোমেন গ্রামে বাড়ি নির্মাণে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি লাগবে: তাজুল

১ম ও ২য় ডোজের মোট টিকা নিয়েছেন সাড়ে ৮৮ লাখ

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২১  

সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৮৬ হাজার ৯২৭ জন। আর প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছে ১০ জন।

এদের মধ্যে কারো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া (যেমন: জ্বর, টিকা দেওয়া স্থানে লাল হাওয়া ইত্যাদি) দেখা যায়নি। আর এ পর্যন্ত প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন ৫৮ লাখ ১৯ হাজার ৭১৯ জন। এবং দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছে ৩০ লাখ ২৩ হাজার ১৬৯ জন। প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছে মোট ৮৮ লাখ ৪২ হাজার ৮৮৮ জন।

এদের মধ্যে মোট পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে ৯৯৮ জনের। পাশাপাশি টিকার জন্য মোট নিবন্ধন করেছে ৭২ লাখ ৪৮ হাজার ৮২৮ জন।

সোমবার (৩ মে) রাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (এমআইএস) অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রথম ডোজের মোট টিকা নিয়েছেন ১০ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৮ জন এবং নারী ২ জন। আর দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৮৬ হাজার ৯২৮ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৫৩ হাজার ৯০৯ জন এবং নারী ৩৩ হাজার ১৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোলরুমের তথ্য অনুসারে, গত ২৭ জানুয়ারি দেশে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করে। প্রথম দিন টিকা দেওয়া হয় ২৬ জনকে। আর ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে টিকা কার্যক্রম শুরু হয়।

সোমবার (৩ এপ্রিল) দুপুরে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর আয়োজিত ভার্চুয়াল স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র ও অধিদফতরের সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের (সিডিসি) লাইন ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. মো. নাজমুল ইসলাম জানান, করোনার টিকার মজুত খুব বেশি নেই। এ পর্যন্ত যে পরিমাণ টিকা সংগ্রহ করেছিলাম সেটি কিন্তু একেবারেই শেষের পর্যায়ে চলে এসেছে।

তিনি বলেন, টিকা আসুক, আসতে দেরি হোক, যাই হোক না কেন, যতক্ষণ হাতে টিকা না আসে ততক্ষণ মাস্কই আমাদের সবচেয়ে বড় টিকা। আমরা যেন সেই বড় টিকাটি যেটি খুব সহজলভ্য, সেটি যেন নিয়ম মেনে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে (মাস্ক) ব্যবহার করি এবং অন্যকেও ব্যবহার করতে উৎসাহিত করি।

নাজমুল ইসলাম বলেন, করোনার ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম একটি চলমান প্রক্রিয়া। সরকার রাশিয়া ও চীন থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আশা করি, মে মাসের মধ্যেই টিকা পাওয়া যাবে। প্রথম ডোজের জন্য যারা রেজিস্ট্রেশন করেছেন কিন্তু ভ্যাকসিন পাননি , প্রথম চালান আসলেই প্রথমে টিকা প্রদান শুরু হয়ে যাবে।