• বৃহস্পতিবার   ২৮ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১২ ১৪২৮

  • || ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
এসএসসি পরীক্ষা শুরু ১৪ নভেম্বর জাতীয় প্রয়োজনে সেনাবাহিনী সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে প্রস্তুত থাকবে ‘বাঙালির পিতার নাম শেখ মুজিবুর’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন বেসরকারি খাতে উদ্যোক্তা তৈরিতে প্রধানমন্ত্রীর গুরুত্বারোপ বাংলাদেশ হবে প্রাচ্য-পাশ্চাত্যের সেতু, এখানে বিনিয়োগ করুন বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিতে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ: শেখ হাসিনা দেশের ভাবমূর্তি নষ্টকারীদের বিষয়ে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী মাঝে মধ্যে কিছু ঘটিয়ে দেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন পায়রা সেতুতে হাঁটতে পারলে ভালো লাগতো: প্রধানমন্ত্রী সিলেট-ঢাকা চার লেনের নির্মাণকাজের উদ্বোধন বাংলাদেশকে কেউ আর পিছিয়ে রাখতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী স্বপ্নের পায়রা সেতু উদ্বোধন পায়রা সেতুর উদ্বোধন আজ, দক্ষিণাঞ্চলের আরেকটি স্বপ্নপূরণ নেতাকর্মীদের নজরদারি বাড়াতে বললেন শেখ হাসিনা কুমিল্লার ঘটনা দুঃখজনক, অপরাধীর বিচার হবে: প্রধানমন্ত্রী ‘দেশের সবচেয়ে বড় রপ্তানি পণ্য হবে ডিজিটাল ডিভাইস’ সরকারের ধারাবাহিকতা আছে বলেই উন্নয়ন সম্ভব হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী বিদেশে বিনিয়োগের প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী পূর্বাচলে প্রদর্শনীকেন্দ্র উদ্বোধন করবেন আজ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কঠোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ভোলায় মা ইলিশ রক্ষার অভিযানে নদীতে জেলা প্রশাসক! দুই জেলে আটক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ অক্টোবর ২০২১  

ভোলা প্রতিনিধি: মা ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে নদীতে সকল প্রকার মাছ শিকার নিষিদ্ধ ঘোষনা করেছে সরকার। আজ ০৪ অক্টোবর থেকে আগামী ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত এই ২২ দিন চলবে  এই অভিযান।  এ সময় ইলিশ আহরণ,পরিবহন, মজুদ, ক্রয় ও বিক্রিতে সম্পন্ন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সরকার। তার ধারাবাহিকতায় ভোলার মেঘনা নদীতে অভিযান পরিচালনা করেন ভোলা জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা পুলিশ সুপার সরকার মুহাম্মদ কায়সার, জেলা মৎস্য অফিসার এস এম আজহারুল ইসলাম। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা মৎস্য অফিসার জামাল হোসাইন।

জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়, ভোলার চরফ্যশন উপজেলা প্রশাসন নেতৃত্বে একটি টহল টিম উপজেলার মেঘনা নদীতে থেকে মাছ ধরার অপরাধে ২ জেলেকে আটক করা হয়েছে ।

অভিযান পরিচালনা কালে জেলা মৎস্য অফিসার এস এম আজহারুল ইসলাম বলেন, ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার জলসিমায় ইলিশের প্রজনন মৌসুম উপলক্ষে সকল প্রকার মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তাই মা ইলিশ রক্ষায় ভোলার নদীতে জেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগের যৌথ অভিযানে জেলার ৭ উপজেলায় ২৪ টি টিমে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও কোস্ট গার্ড এক যোগে কাজ করছে । পাশাপাশি অভিযান পূর্বে জেলার প্রায় প্রতিটি মাছ ঘাটে সচেতনতা মূলক সভা করা হয়েছে। আশাকরি সকলের সহযোগিতায় ইলিশের যে নিরাপদ প্রজনন ক্ষেত্র তা সফল করতে সক্ষম হবো।

এ সময় জেলা পুলিশ সুপার সরকার মুহাম্মদ কায়সার বলেন, ২২ দিন ব্যপি মা ইলিশ সংরক্ষণ  অভিযান আজ থেকে শুরু হয়েছে। এই অভিযানকে সফল করার জন্য আমাদের জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সর্বাত্তক প্রচেষ্টা আমরা অবগত রেখেছি। জেলার প্রতিটি থানায় এই অভিযানকে কেন্দ্র করে ৫ জন করে পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।  এবং সকাল থেকে আমরা নদীতে পর্যবেক্ষন করেছি নদীতে কোন মাছ ধরার নৌকা চোখে পরেনি। আশা করি অভিযান সফল হলে ইলিশে সমৃদ্ধ হবে ভোলা জেলা।

এ সময় জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী বলেন- অভিযানের শুরুর পূর্বেই সরকারের পক্ষ থেকে জেলেদের জন্য যেই মৎস্য ভিজিএফ  বরাদ্দ পেয়েছি তা ইতিমধ্যে জেলার ৭ উপজেলার ইউএনও দের চিঠি দেওয়া হয়েছে। আশাকরি এই সপ্তাহের মধ্যে সকল নিবন্ধিত জেলেরা বরাদ্দকমত চাল পেয়ে যাবে। এবং যারা বেদে সম্প্রদা আছে তাদের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ২০ কেজি করে চালের একটি বরাদ্দ রয়েছে তারাও অতি শিগরই পেয়ে যাবেন। এছাড়া জেলেরা বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নিয়েছেন। তাদের কথা চিন্তা করে  ভোলার এনজিও গুলোতে চিঠি পাঠিয়েছি যাতে করে অভিযানের এই ২২ দিন জেলেদের থেকে কোন কিস্তির টাকার জন্য চাপসৃষ্টি না করা হয়।

এ ছাড়াও তিনি আরও বলেন, অভিযানের এই ২২ দিন ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম। এ সময় ইলিশ রক্ষায় ইলিশ ধরা, বিক্রয়, সংরক্ষণ, মজুদ, পরিবহন করা থেকে বিরত থাকলে আমাদের দেশের ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধিতে সফলতা আসবে বলে জানান তিনি।