• শনিবার   ১৩ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের মর্যাদাকে সমুন্নত করবে যুবসমাজ ‘শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন’ ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী

কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণের নির্দেশ শিল্প মন্ত্রণালয়ের

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৩০ জুন ২০২২  

দেশব্যাপী ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর চামড়া যথাযথভাবে ছাড়ানো, সংরক্ষণ, বর্জ্য অপসারণ এবং নির্ধারিত দামে ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য সমন্বিত ব্যবস্থা ও কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করার নির্দেশ দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব জাকিয়া সুলতানা সাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিটি জেলা প্রশাসকদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ঈদুল আজহার সময় দেশব্যাপী মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী স্থানীয়ভাবে চামড়া ক্রয় করে আড়তদারদের মাধ্যমে ট্যানারি মালিকদের কাছে বিক্রি করে। কোরবানির পর স্বল্প সময়ে কাঁচা চামড়া আড়তে পৌঁছানো না হলে বা স্থানীয়ভাবে লবণ দিয়ে সংরক্ষণ করা না হলে তা নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যা জাতীয় অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। 

এছাড়া কোরবানির পশু জবাই, পশুর দেহ থেকে চামড়া ছাড়ানো ও চামড়া সংরক্ষণে অনভিজ্ঞতা ও অদক্ষতার জন্যও এর মূল্য ও গুণগত মান দুটোই কমে যায়। দেশের এ মূল্যবান সম্পদ রক্ষার্থে এ বিষয়ে জনসচেতনতা ও সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রতিবছর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কাঁচা চামড়ার দাম নির্ধারণ করে থাকে। স্থানীয় চামড়া ব্যবসায়ী, আড়তদার ও ট্যানারি মালিকরা বাজার পরিস্থিতি বিবেচনা করে নিজ নিজ ক্রয় পরিকল্পনা গ্রহণ করে এবং ব্যাংক ও অন্যান্য উৎস থেকে অর্থ সংগ্রহ করে থাকেন। স্থানীয় পর্যায়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যে চামড়া ক্রয়-বিক্রয়, চামড়া নিয়ে গুজব ও বিশৃঙ্খলা রোধ এবং চামড়া যাতে কোনো পর্যায়ে নষ্ট না হয় সেজন্য স্থানীয় অংশীজনদের সাথে ঈদের আগেই আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা প্রয়োজন।

বিজ্ঞপ্তিতে স্থানীয় চেম্বার অব কমার্স, চামড়ার আড়তদার, মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী, ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মসজিদের ঈমাম, মাদ্রাসার শিক্ষক, এতিমখানা, পৌরসভা বা সিটি করপোরেশন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিভাগীয় কার্যালয়, পরিবেশ অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পুলিশ বিভাগের প্রতিনিধিদের সাথে সভা করে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।