• শনিবার   ১৩ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর বিষয়ে পরিষ্কার ব্যাখ্যার নির্দেশ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত মানবাধিকার কমিশনকে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ জ্বালানি নিরাপত্তা: বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার অবদান রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের মর্যাদাকে সমুন্নত করবে যুবসমাজ ‘শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন’ ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু হত্যা: মার্কিন সমর্থন চেয়েছিলো খুনিচক্র

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ আগস্ট ২০২২  

মুজিব সরকার উৎখাত ও বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে মেজর ফারুক রহমান ও মেজর আবদুর রশিদের ষড়যন্ত্র ১৯৭২ সাল থেকেই চলছিল। মুজিব সরকারের অগোচরে কয়েকবার তারা মার্কিন দুতাবাসে গিয়ে অস্ত্র সংগ্রহের জন্য বৈঠক করে।  মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দলিল থেকে জানা যায় এসব তথ্য।

বঙ্গবন্ধু হত্যার তিন দশক পর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশ করে বাংলাদেশ সম্পর্কিত নানা গোপন নথি।  

নথির ৩১৫৬ নং সিক্রেট ডকুমেন্টে বলা হয়, ১৯৭২ সালে মুজিব সরকারের অগোচরে মেজর সৈয়দ ফারুক রহমান ঢাকার মার্কিন দূতাবাসে গিয়েছিলেন অস্ত্র সংগ্রহের ব্যাপারে আলোচনা করতে।

১৯৭৩ সালের ১১ জুলাই একইভাবে অস্ত্র সংগ্রহের জন্য মার্কিন দুতাবাসে যান মেজর ফারুকের ভায়রা মেজর আব্দর রশিদ। ব্রিগেডিয়ার জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে গঠিত একটি কমিটির পক্ষে সেনাবাহিনীর জন্য অস্ত্র ক্রয় নিয়ে কথা বলতে তাকে পাঠানো হয় বলে দাবি করেছিলেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত ডেভিদ ইউজিন বোস্টারের পাঠানো তারবার্তা ২১৫৮ নং সিক্রেট ডকুমেন্টে উঠে আসে আরও ভয়ানক তথ্য। 

১৯৭৪ সালের ১৩ মে ফারুক রহমান উচ্চতম পর্যায়ের বাংলাদেশ সেনা কর্মকর্তার নির্দেশে শেখ মুজিবুর রহমানের সরকার উৎখাতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সহায়তা চান।

এর ঠিক ১৫ মাসের ব্যবধানে ১৫ আগষ্টের নির্মমতা দেখে বিশ্ববাসী।