• সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

অন্য দেশে হর্ন দেওয়া গালির মতোই: পরিবেশমন্ত্রী

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ জুন ২০২৩  

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন বলেছেন, শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ করতে আমরা প্রকল্প গ্রহণ করেছি। এজন্য সচেতনতা বাড়াতে হবে। ইউরোপ-আমেরিকায় আমরা দেখেছি যখন কোনো একটি গাড়ি থেকে হর্ন বাজানো হয়, পেছনের গাড়ি তাকে জিজ্ঞাসা করে হর্ন কেন দেওয়া হয়েছে। হর্ন দেওয়া গালি দেওয়ার মতো। অন্য দেশগুলোতে সেভাবেই এটিকে মনে করে।

রোববার (৪ জুন) সচিবালয়ে তথ্য অধিদপ্তরের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা এবং জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষমেলা ২০২৩ উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের মানুষকে সচেতন করতে হবে। বিশেষ করে হাইড্রোলিক হর্ন বন্ধ করতেই হবে। হাইড্রোলিক হর্নের কারণে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। সেজন্য আমরা একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছি। যার মাধ্যমে প্রতিটি বিভাগীয় শহরে একটা করে সভা করেছি। পরে জেলা শহরে মসজিদের ইমাম ও পুরোহিতসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও চালকদের নিয়ে সভা করেছি। তারা যাতে হর্ন না বাজায়, সে বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করতে চেষ্টা করেছি। আমরা খুবই গুরুত্ব দিয়ে বিষয়টি দেখেছি।

পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবদুল হামিদ বলেন, এবার সারাদেশে আমরা আন্তর্জাতিক শব্দদূষণ দিবস পালন করেছি। গত মাসে আমরা দিবসটি পালন করার সময় একদিনে সবচেয়ে বেশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছি। হাজার হাজার হাইড্রোলিক হর্ন জব্দ করে ধ্বংস করেছি। একই সঙ্গে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা ২০০৬ সংশোধন করে হালনাগাদ করার চেষ্টা করছি।

শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে কোনো দৃশ্যমান অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে না, এ বিষয়ে জানতে চাইলে পরিবেশ সচিব ফারহিনা আহমেদ বলেন, হর্ন নিয়ন্ত্রণে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে আমরা আরেকটি প্রকল্প নিয়েছি।

ভ্রাম্যমাণ আদালতে পরিচালনা করে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে জনভোগান্তি হবে। সে কারণে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআরটিএ) শক্তিশালী করা হচ্ছে। পাশাপাশি পুলিশ বাহিনীকেও প্রশিক্ষণের আওতায় নিয়ে আসবো। যাতে মানুষকে ভোগান্তি না দিয়ে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে আমরা পদক্ষেপ নিতে পারি, যোগ করেন তিনি।

সচিব বলেন, প্রতিটি গাড়িতে ‘নো হর্ন’ স্টিকার ব্যবহার করতে হবে। সড়ককে শতভাগ ‘নো হর্ন’ প্রচারের আওতায় নিয়ে আসতে চাচ্ছি। সরকারি ও সরকারি ঋণ নিয়ে যেসব কর্মকর্তা গাড়ি কিনছেন, তাদের জায়গা থেকেও হর্ন না-বাজানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে চাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, মাইক্রোফোন ব্যবহার করে রাস্তাঘাটে বিভিন্ন প্রচার করা হচ্ছে। তাতে আমরা শব্দদূষণের শিকার হচ্ছি। এ কাজটি করতে গেলে আমাদের ব্যাপক সামাজিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

শাহাব উদ্দিন বলেন, আপনারা বলেছেন মন্ত্রীরা হর্ন বাজানো বন্ধ করলে শব্দদূষণ অনেকটা বন্ধ হয়ে যাবে। আমি আপনাদের আশ্বস্ত করতে চাই, আপনাদের মাধ্যমে আমি জানাতে চাই, মন্ত্রী ও সরকারি কর্মকর্তারা এ শব্দদূষণ নীতিমালা মেনে চলবেন। তাহলে সাধারণ মানুষ হর্ন না-বাজাতে উৎসাহিত হবেন।

শব্দদূষণ কবে বন্ধ হবে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, চলমান প্রক্রিয়ায় এটি করতে হবে। শব্দদূষণ ব্যবহারে আপনাদের সহযোগিতা চাই। আপনারা যত প্রচার করবেন, সাধারণ মানুষ তত সচেতন হবেন।

এসময়ে পরিবেশ উপ-মন্ত্রী হাবিবুন নাহার, সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহা পরিচালক ড. আবদুল হামিদও উপস্থিত ছিলেন।