• মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১১ ১৪৩১

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
ড. ইউনূস কর ফাঁকি দিয়েছেন, তা আদালতে প্রমাণিত: প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না’ অভিন্ন নদীর টেকসই ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতার পথ নিয়ে আলোচনা করেছি সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে বহুমাত্রিক করেছে: প্রধানমন্ত্রী অনেক হিরার টুকরা ছড়িয়ে আছে, কুড়িয়ে নিতে হবে বারবার ভস্ম থেকে জেগে উঠেছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত: প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্র রক্ষায় আ. লীগ নেতাকর্মীদের সর্বদা প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী আজ ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ১০ চুক্তি সই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আগামীকাল দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে রাজকীয় সংবর্ধনা হাসিনা-মোদী বৈঠক আজ সংলাপের মাধ্যমে বাণিজ্য প্রতিবন্ধকতা দূর করার আহ্বান বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলোর বিনিয়োগকে অগ্রাধিকার দেয় বঙ্গবন্ধুর চার নীতি এবং বাংলাদেশের চার স্তম্ভ সুফিয়া কামালের সাহিত্যকর্ম নতুন প্রজন্মের প্রেরণার উৎস শুক্রবার ভারত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

‘বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম বাজারে পরিণত হবে বাংলাদেশ’

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

জার্মানী ও যুক্তরাজ্যকে পেছনে ফেলে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম বাজারে পরিণত হবে বাংলাদেশ। ভোক্তা ও ভৌগলিক অবস্থান বিবেচনায় এমন আশার কথা শোনালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০৩০ সাল নাগাদ দেশে সচ্ছল জনগোষ্ঠীর সংখ্যা সাড়ে ৩ কোটির পরিসংখ্যান দিয়ে প্রধানমন্ত্রী আজকের বাংলাদেশকে সাফল্যের গল্পগাঁথা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

আজ (বুধবার) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে কমনওয়েলথ বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বিষয়ক ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে একথা বলেন তিনি।

টেকসই পরিবেশবান্ধব বিনিয়োগ উৎসাহিত করতে বাংলাদেশ সরকার ও কমনওয়েলথের যৌথ উদ্যোগে প্রদান করা হয় কমনওয়েলথ বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু গ্রীণ ইনভেস্টমেন্ট অ্যাওয়ার্ড।

বক্তব্যে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের ধারাবাহিকতায় উন্নয়ন অগ্রযাত্রা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি-জামায়াত ও সামরিক শাসনামলে অর্থনীতি বন্ধ্যাত্বের কবলে পড়েছিল দেশ।

সরকারপ্রধান বলেন, ২০০৯ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর আমরা দেশকে সুপরিকল্পিতভাবে এগিয়ে নিয়ে যাই। আমরা স্বল্প, মধ্যম এবং দীর্ঘ পরিকল্পনা নিয়ে দেশ গঠনের কাজে মনোনিবেশ করি। গণতান্ত্রিক পরিবেশ, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, সরকারের ধারাবাহিকতা এবং পরিকল্পিত উন্নয়ন কর্মসূচি দ্রুত বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছে।

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম বাজারে পরিণত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ভৌগলিক দিক থেকে বাংলাদেশের অবস্থান তিনশ’ কোটি মানুষের বাজারের কেন্দ্রস্থল। ২০৩০ সালে জার্মানি ও যুক্তরাজ্যের বাজারকে পেছনে ফেলে তৃতীয় বড় বাজার হবে বাংলাদেশ বলেও জানান তিনি।

২০৩৭ সালে আমরা বিশ্বের ২০তম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হবে-এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি আরও বলেন, ঘনবসতিপূর্ণ দেশ হওয়া সত্ত্বেও খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে বাংলাদেশ। বিদ্যুৎ থেকে আবাসন; সবক্ষেত্রেই মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বাড়ছে৷

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সুবিধা দেয়ারও আশ্বাস দেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।