• শুক্রবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
আওয়ামী লীগ কারও পকেটের সংগঠন নয়: প্রধানমন্ত্রী তারেককে এনে সাজা বাস্তবায়ন করা হবে: শেখ হাসিনা নয়াপল্টনে লাশ ফেলার দুরভিসন্ধি কার্যকর করেছে বিএনপি: কাদের ক্রিকেট দলের জয়ের ধারা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে: রাষ্ট্রপতি ২০২৪-এর জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন, ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী মিরাজের অবিশ্বাস্য সেঞ্চুরি, বাংলাদেশের ২৭১ সমুদ্রকে নিরাপদ রাখতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চলমান সকল যুদ্ধ থামান: বিশ্ব নেতাদের প্রতি শেখ হাসিনা বৈশ্বিক বাণিজ্যের স্বার্থে সমুদ্রকে নিরাপদ রাখা আবশ্যক ছাত্রলীগের প্রার্থীদের জীবনবৃত্তান্ত যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সমুদ্র সৈকতে ইন্টারন্যাশনাল ফ্লিট রিভিউ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে বিকেলে জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী আজ দ্বিতীয় ওয়ানডে, ভারতের বিপক্ষে আরেকটি সিরিজ জয়ের হাতছানি জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে আ.লীগকে ভোট দেয়: শেখ হাসিনা ব্যাংকে টাকা আছে, সমস্যা নাই: প্রধানমন্ত্রী জনগণ স্বতস্ফুর্তভাবে আ.লীগকে ভোট দেয়: শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে গুজবের জবাব দেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ৩০০ কোটি মানুষের বাজার ধরতে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান কৃষি জমি নষ্ট করে শিল্পকারখানা নয়: প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে অঙ্গীকারবদ্ধ: শেখ হাসিনা

কিশোরীকে ধর্ষণে ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০২২  

খুলনায় কিশোরীকে গণধর্ষণ মামলায় পাঁচ আসামির মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তা‌দের ২০ হাজার টাকা করে জ‌রিমান করা হয়েছে। বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে খুলনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব‌্যুনাল-৩ এর বিচারক আব্দুস ছালাম খান এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসা‌মিরা হলেন- আলী আকবর ওরফে হৃদয়, মেহেদী হাসান ওরফে ইবু, সোহেল, আব্দুল্লাহ ও মোহন। আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী স্পেশাল পি‌পি ফ‌রিদ আহ‌মেদ এ তথ্য নি‌শ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ২০১১ সা‌লের ২৩ মার্চ সন্ধ্যায় খালিশপুর ১ নং বিহারী ক্যাম্পে ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরী বাড়ির পাশে একটি টিউবওয়েলে পানি আনতে যায়। এ সময় মোহন নামে একটি ছেলে খাওয়ানোর কথা বলে তাকে ডেকে নিয়ে যায়। মেয়েটিকে শিয়া মসজিদের কাছে নিয়ে গেলে সেখান থেকে আকবর আলী নামে আরেকজন ও মোহন তাকে চরেরহাট কলাবাগানে নিয়ে সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ৫ জন মিলে ধর্ষণ করেন। ভিকটিম অসুস্থ হয়ে পড়লে তারা তাকে রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাড়ির পাশে একটি মসজিদের রাস্তায় ফেলে দিয়ে চলে যায়। আসামিরা ভিকটিমকে হুমকি দেয় যদি এ ব্যাপারে মামলা করে বা কাউকে বলে তাহলে জীবন শেষ করে দেবে। ভিকটিম বাসায় গিয়ে পরিবারকে বিষয়টি বলে। তখন তার পরিবার তাকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে এবং পুলিশের সহায়তায় মামলা করে।

আদালত সূত্র জানায়, ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে খা‌লিশপুর থানায় মামলা করেন। একই বছরের ২০ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কাজী রেজাউল ক‌রিম পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে আদালতে অভিযোগপত্র দা‌খিল ক‌রেন। মামলায় ১৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ১২ জন আদালতে সাক্ষ্য দেন। এই মামলায় পাঁচজন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত তাদের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। মামলার দুইজন আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন এবং তিনজন পলাতক রয়েছেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেন, এটি একটি ঐতিহাসিক রায়। আসামিরা উচ্চ আদালতে আপিল করলেও যেন তাদের এই রায় বহাল থাকে সেই প্রত্যাশা করি।