• বৃহস্পতিবার   ০৫ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ২১ ১৪২৮

  • || ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী জাতি গঠনে শিক্ষা-ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক চর্চা অপরিহার্য শেখ কামালের ৭২তম জন্মদিন আজ দোকানপাট খুলবে ১১ আগস্ট কিছু বেইমান-মুনাফেকের জন্য তার দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গঠন সম্ভব হয়নি নিম্ন আয়ের মানুষও আমাদের প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী মুজিবের দেশে প্রতিটি মানুষ সুন্দর ও উন্নত জীবন পাবে জাতিসংঘের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী বস্তিবাসীদের আধুনিক ফ্ল্যাট দিলেন প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু হত্যায় ষড়যন্ত্রকারী কারা, ঠিকই আবিষ্কার হবে’ ‘বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতায় এগিয়ে খালেদা জিয়া’ দেশের নাম বদলে দিতে চেয়েছিল পঁচাত্তরের খুনি চক্র: প্রধানমন্ত্রী এক সময় নিজেই রক্তদান করতাম: প্রধানমন্ত্রী হত্যার বিচার করেছি, ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা এখনও আবিষ্কার হয়নি শোকের মাস আগস্ট শুরু একনেক বৈঠক শুরু, অনুমোদন হতে পারে ১০ প্রকল্প করোনা টেস্টে গ্রামীণ জনগণের ভীতি নিরসনে কাজ করতে হবে জয়ের কাছ থেকেই আমি কম্পিউটার শিখেছি : প্রধানমন্ত্রী মানুষকে ব্যাপকভাবে ভ্যাকসিন দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন হবে দেশেই: শেখ হাসিনা

পুলিশ দেখে ঝুম বৃষ্টিতে দৌড়ে পালালো ৫০০ অতিথিসহ বর-কনে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৯ জুন ২০২১  

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া করে চলছিল বিয়ের অনুষ্ঠান। ৫/৬ শ অতিথির উপস্থিতিতে রীতিমতো সাজসাজ রব। কেউ খাচ্ছেন, কেউ বা আবার উপহার বুঝিয়ে দিয়ে পান চিবুতে চিবুতে খোশ গল্পে মেতে উঠেছেন। এমন মুহূর্তে বেরসিক পুলিশের আগমন। তা দেখে খাবার ফেলে ঝুম বৃষ্টির মধ্যেই বর-কনেসহ অতিথিরা যে যেদিকে পারেন দৌড়ে পালিয়ে যান।
সোমবার দুপুরে এমন দৃশ্য দেখা গেছে চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের চট্টগ্রাম-কাপ্তাই রোড সংলগ্ন কর্ণফুলী কনভেনশন হলে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রাউজান-রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।

জানা গেছে, কর্ণফুলী কনভেনশন হলের সামনে পুলিশের গাড়ি দাঁড়াতেই হুলস্থূল পড়ে যায়। পুলিশ দেখে এদিক-ওদিক ছোটাছুটি শুরু করে দেয় সবাই। কমিউনিটি সেন্টার কর্ণফুলী কনভেনশন হলের ম্যানেজার এবং বর-কনের মা-বাবা পালিয়ে যান। প্লেট, খাবার, উপহার ফেলে দৌড়ে পালাতে শুরু করে অতিথিরা। সুযোগ বুঝে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন বর রফিকুল ইসলাম এবং কনে শাহনাজ বেগম। উৎসবে সরগরম কমিউনিটি সেন্টারটি মুহূর্তেই ভুতুড়ে বাড়িতে রূপ নেয়।

এর দুই ঘণ্টা পর কর্ণফুলী কনভেনশন হলের ম্যানেজার জামাল উদ্দিন বাদশা এবং পাত্রীর বাবা মো. জামাল উদ্দিনের হদিস মেলে। পরে তারা মুচলেকা দেন যে- তারা সরকারি নিষেধাজ্ঞার মধ্যে আর কখনো এমন অনুষ্ঠানের আয়োজন করবেন না।

এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, আনুমানিক ৫০০-৬০০ অতিথির উপস্থিতিতে সেখানে বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। আমাদের দেখেই তারা যে যার মতো দৌড়ে পালিয়ে যান। তাৎক্ষণিক অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়ে কমিউনিটি সেন্টার কর্তৃপক্ষ এবং আয়োজকদের সতর্ক করা হয়েছে।