• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১০ মুহররম ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে বঙ্গমাতার মনোভাব প্রতিফলিত হয়েছে বঙ্গমাতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা স্বাধীনতার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর সারথি ছিলেন আমার মা: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গমাতা কঠিন দিনগুলোতে ছিলেন দৃঢ় ও অবিচল: রাষ্ট্রপতি ফজিলাতুন নেছা মুজিব দৃঢ়চেতা-বলিষ্ঠ চরিত্রের অধিকারী ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ বাংলাদেশে সহায়তা অব্যাহত রাখবে চীন: ওয়াং ই চীনে ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবে বাংলাদেশ মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছি মায়ের দুধ শিশুর সর্বোত্তম খাবার: রাষ্ট্রপতি শেখ কামাল ছিলেন বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী: প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল ছিলেন ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা সুকুমার মনোবৃত্তির মানুষ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেশের মর্যাদাকে সমুন্নত করবে যুবসমাজ ‘শেখ হাসিনার কাছ থেকে শিখুন’ ঘাতকরা আজও তৎপর, আমাকে ও আ’লীগকে সরাতে চায়: প্রধানমন্ত্রী বিচারকদের সততা-নিষ্ঠা নিয়ে দায়িত্ব পালন করতে হবে: রাষ্ট্রপতি একনেকে ২ হাজার কোটি টাকার ৭ প্রকল্প অনুমোদন বাঁধ টেকসই করতে বেশি করে ঝাউগাছ লাগানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ‘আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার’ পেলো বাংলাদেশ বিএনপির আমলে মানুষের ভোটের অধিকার ছিল না: প্রধানমন্ত্রী

হাতিয়ায় ১৩ মণ মাছসহ ৭২ জেলে আটক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ জুলাই ২০২২  

নোয়াখালীর হাতিয়ায় নির্দেশনা অমান্য করে মাছ ধরায় ৭২ জেলেকে আটক করেছে কোস্টগার্ড। এসময়ে ট্রলারে তল্লাশি চালিয়ে ১৩ মণ মাছ উদ্ধার করা হয়। পরে চার ট্রলারকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকালে ওই জরিমানা আদায় করা হয়। এর আগে সোমবার রাতে হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটের দক্ষিণ পাশে মেঘনা থেকে ট্রলারগুলো আটক করা হয়।

কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. কে এম শাফিউল কিঞ্জল জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেঘনা নদীতে অভিযান চালায় কোস্টগার্ড। এ সময় সাগর থেকে মাছ ধরে মোকামে ফেরার পথে চারটি ট্রলারকে থামানো হয়। পরে ট্রলারগুলো তল্লাশি করে সামুদ্রিক মাছসহ তমরদ্দি কোস্টগার্ড ক্যাম্পে আনা হয়। 

পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সেলিম হোসেন বলেন, চার ফিশিং ট্রলার থেকে জরিমানার ৪০ হাজার টাকা ও জব্দকৃত ১৩ মণ মাছ এক লাখ ৩০ হাজার টাকায় নিলামে বিক্রি করে সমুদয় অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া হয়েছে। 

অন্যদিকে ৭২ মাঝি-মাল্লাকে নিষিদ্ধ সময়ে মাছ না ধরার শর্তে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

হাতিয়া মৎস্য কর্মকর্তা অনিল কুমার দাস বলেন, সমুদ্রে মৎস্য প্রজনন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকার ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই সমুদ্রে সকল ধরনের মাছ শিকার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে। এ ঘোষণা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সমুদ্রে অভিযান করছে কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও সরকারের একাধিক আইন শৃংখলা বাহিনী। 

এসময় আইন অমান্য করে সমুদ্রে মাছ শিকারে যাওয়ায় মাছ ধরা ট্রলার ও জেলেদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।