• শুক্রবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
আওয়ামী লীগ কারও পকেটের সংগঠন নয়: প্রধানমন্ত্রী তারেককে এনে সাজা বাস্তবায়ন করা হবে: শেখ হাসিনা নয়াপল্টনে লাশ ফেলার দুরভিসন্ধি কার্যকর করেছে বিএনপি: কাদের ক্রিকেট দলের জয়ের ধারা আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে: রাষ্ট্রপতি ২০২৪-এর জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন, ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী মিরাজের অবিশ্বাস্য সেঞ্চুরি, বাংলাদেশের ২৭১ সমুদ্রকে নিরাপদ রাখতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চলমান সকল যুদ্ধ থামান: বিশ্ব নেতাদের প্রতি শেখ হাসিনা বৈশ্বিক বাণিজ্যের স্বার্থে সমুদ্রকে নিরাপদ রাখা আবশ্যক ছাত্রলীগের প্রার্থীদের জীবনবৃত্তান্ত যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সমুদ্র সৈকতে ইন্টারন্যাশনাল ফ্লিট রিভিউ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে বিকেলে জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী আজ দ্বিতীয় ওয়ানডে, ভারতের বিপক্ষে আরেকটি সিরিজ জয়ের হাতছানি জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে আ.লীগকে ভোট দেয়: শেখ হাসিনা ব্যাংকে টাকা আছে, সমস্যা নাই: প্রধানমন্ত্রী জনগণ স্বতস্ফুর্তভাবে আ.লীগকে ভোট দেয়: শেখ হাসিনা ছাত্রলীগকে গুজবের জবাব দেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ৩০০ কোটি মানুষের বাজার ধরতে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান কৃষি জমি নষ্ট করে শিল্পকারখানা নয়: প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে অঙ্গীকারবদ্ধ: শেখ হাসিনা

প্রশ্নের জন্য শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকরাও টাকা দিতেন

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০২২  

‘চলতি এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র লাগবে কি না জানতে চেয়ে ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে একটি পোস্ট দেওয়া হয়েছিল। সেখানে প্রশ্নপত্র নিতে আগ্রহীদের ইনবক্সে যোগাযোগ করতে বলা হয়। প্রশ্ন দেওয়ার আগে চক্রের সদস্যরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নেয়। টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন পেতে ছাত্রদের পাশাপাশি অভিভাবকরাও যোগাযোগ করেন।’

শনিবার (১ অক্টোবর) বিকেলে এ তথ্য জানান গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়ি চুরি প্রতিরোধ টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মধুসূদন দাস।

তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর উত্তরা পূর্ব থানার আজমপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসএসসির ভুয়া প্রশ্নফাঁস চক্রের সদস্য মনজির আহমেদ মিশু ওরফে মাসুম মোল্লা (২২) ও মো. শমেস আহমেদ ওরফে সাব্বিরকে (২০) গ্রেফতার করা হয়। তারা দুজনেই এসএসসি পাস। কয়েক বছর আগে তারা ফেসবুক গ্রুপ থেকে ভুয়া প্রশ্নপত্র কিনে এসএসসি পরীক্ষা দেন। ভুয়া প্রশ্নপত্র কিনে টাকা খুইয়ে নিজেরাই জড়িয়ে পড়েন প্রতারণার সঙ্গে।

গুগল থেকে আগের বছরের এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্ন ডাউনলোডের পর এডিট করতো চক্রটি। এরপর চলতি বছরের প্রশ্ন বলে ফেসবুকের বিভিন্ন পেজ ও গ্রুপে পোস্ট দিয়ে আগ্রহীদের ইনবক্সে যোগাযোগ করতে বলা হয়। সেই অনুযায়ী যারা যোগাযোগ করেন তাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটি। গ্রেফতারদের মোবাইল ব্যাংকিং পর্যালোচনা করে দেখা গেছে— চলতি এসএসসি পরীক্ষায় তাদের মোবাইল ব্যাংকিংয়ে অর্ধশতাধিক লেনদেন হয়েছে।

মধুসূদন দাস বলেন, প্রশ্নপত্র লাগবে জানিয়ে শিক্ষার্থী সেজে একটি গ্রুপে যোগাযোগ করে গোয়েন্দা পুলিশ। চক্রটি প্রশ্ন দিয়ে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে টাকাও নেয়। পরে অবস্থান শনাক্ত করে রাজধানীর উত্তরা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার এড়াতে ফেক আইডি দিয়ে মোবাইল ব্যাংকিং আ্যকাউন্ট খোলেন তারা।

যেসব অভিভাবক প্রশ্ন পেতে লেনদেন করেছেন তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান এ গোয়েন্দা কর্মকর্তা।