• বৃহস্পতিবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশ, পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা সংঘাত-দুর্যোগে নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী জিয়া-খালেদা-তারেক খুনি: প্রধানমন্ত্রী জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল হবে: প্রধানমন্ত্রী সূচকের ওঠানামায় পুঁজিবাজারে চলছে লেনদেন দুপুরে সচিবদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ডা. মিলনের আত্মত্যাগ নতুন গতি সঞ্চার করে ডা. মিলন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র: রাষ্ট্রপতি মিছিল-মিটিংয়ে আপত্তি নেই, মানুষের ওপর হামলায় সহ্য করবো না ‘যারা গ্রেনেড দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে, তাদের সঙ্গে আলোচনা?

‘শত কোটি টাকা মূল্যের ম্যাগনেট পিলার’ প্রতারণা, গ্রেফতার ৪

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০২২  

কয়েকশ কোটি টাকা মূল্যের ম্যাগনেট পিলার দিতে চেয়েছিলেন কবির, মতিন, রফিক ও পারভেজ। এ জন্য তারা আশুলিয়ার স্থানীয় বাসিন্দা আমান উল্লাহ ও আসাদুজ্জামানের কাছ থেকে ধাপে ধাপে টাকা নিয়েছিলেন। কিন্তু পিলার আর দিতে পারছিলেন না। এ ঘটনায় মামলা ও তার পরিপ্রেক্ষিতে কবিরদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সাভারের আশুলিয়া থেকে এ চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রোববার (২ অক্টোবর) বিকেলে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাচিব সিকদার। এর আগে শনিবার (১ অক্টোবর) সকালে আশুলিয়ার টঙ্গাবাড়ি এলাকার থেকে তাদের আটক করা হয়।

এজাহারে গ্রেফতারকৃতদের পরিচয় দেওয়া হয়েছে- ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিন থানার দক্ষিণ বাটা মারা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মো. কবির হোসেন (৪২), ফরিদপুর জেলার মধুখালি থানার কানাইপুর গ্রামের করম আলীর ছেলে মাওলা মতিন (৭০), পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া থানার ঢাকাইয়া গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে মো. রফিক (৩৫) ও বরিশাল জেলার মুলাদী থানার চরকালেখা গ্রামের মিন্টুর ছেলে পারভেজ (৩৬)। তারা উত্তর পশ্চিম ডিএমপি থানা এলাকায় বসবাস করতেন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ভুক্তভোগী আমান উল্লাহ ও আসাদুজ্জামানের সঙ্গে জমি ব্যবসা নিয়ে পরিচয় হয় মওলা মতিনসহ বাকিদের। পরিচয়ের সূত্র ধরে মওলা মতিন ভুক্তভোগীদের ১ হাজার কোটি টাকা মূল্যের ম্যাগনেট পিলার ৩০০ কোটি টাকায় বিক্রি করবে বলে লোভ দেখান। পরে ভুক্তভোগীদের কাছে ১ লাখ টাকা চান মাওলা মতিন। সে অনুসারে টাকাও পাঠান আমান উল্লাহ ও আসাদুজ্জামান। পরে বিভিন্ন সময় আরও ১ লাখ টাকা নেন মতিন।

শনিবার তিনিসহ বাকিরা আশুলিয়া টঙ্গাবাড়ির আমান উল্লাহর বাড়িতে এসে ম্যাগনেট পিলার বাবদ ১০ লাখ টাকা দাবি করেন। ভুক্তভোগীরা টাকা দেওয়ার প্রমাণ হিসেবে একটি স্ট্যাম্প করতে চান। কিন্তু কবির, মতিন, রফিক ও পারভেজ এতে রাজি হতে অস্বীকার করেন। পরে প্রতারণার বিষয়টি সন্দেহে এলে স্থানীয় লোকজন তাদের আটকে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হাচিব সিকদার বলেন, বিষয়টি নিয়ে থানায় একটি প্রতারণার মামলা হয়েছে। এতে আসামিদের গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।