• বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৫ ১৪৩১

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব না খাটানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর দলের নেতাদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানায় শেখ হাসিনা মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা বর্তমান প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানতে পারবে মুজিবনগর দিবস বাঙালির ইতিহাসে অবিস্মরণীয় দিন: প্রধানমন্ত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস আজ নতুন বছর মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রেরণা জোগাবে : প্রধানমন্ত্রী আ.লীগ ক্ষমতায় আসে জনগণকে দিতে, আর বিএনপি আসে নিতে: প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা রাষ্ট্রপতির দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী কিশোর অপরাধীদের মোকাবেলায় বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্রের প্রতি বিএনপির কোনো দায়বদ্ধতা নেই : ওবায়দুল কাদের ব্রাজিলকে সরাসরি তৈরি পোশাক নেওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর জুলাইয়ে ব্রাজিল সফর করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী আদর্শ নাগরিক গড়তে প্রশংসনীয় কাজ করেছে স্কাউটস: প্রধানমন্ত্রী

ধনাঢ্য ব্যক্তিরাই প্রতারক ইভার মূল টার্গেট

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২৩  

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবিপ্রধান) হারুন অর রশীদ বলেছেন, ধনাঢ্য ব্যক্তিরাই প্রতারক ইভার মূল টার্গেট ছিলেন। সম্প্রতি সময় সংবাদকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানান তিনি।

ডিবিপ্রধান জানান, কাগজে কলমে ১০টির অধিক বিয়ে করেছেন ইভা এবং ১০০ এর অধিক পুরুষের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে তাদের ব্ল্যাকমেইলিং করে প্রচুর টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তারা দেশে প্রতারণার রাজ্য গড়ে তুলেছে। সরকারি কর্মকর্তা এমন ২০ থেকে ২৫ জন আছেন যাদের তিনি প্রতারিত করেছেন।

ডিবি পুলিশ সূত্রে জানানো হয়, তানজিনা আক্তার ইভা ওরফে মেরি ওরফে মাহি। রাজধানীসহ দেশের তারকা হোটেল এবং বিভিন্ন বারে তার পদচারণা ছিল। অভিজাত এলাকার এসব হোটেল কিংবা বারে যত খরচ হয় তার একটি টাকাও বহন করতে হয় না তাকে। একেক দিন তার সঙ্গী হন একেকজন। তারাই বহন করেন সব খরচ।

ফেসবুকে সম্পর্ক হওয়ার পর কোনো তারকা হোটেল কিংবা বারে সাক্ষাত করেন তারা। টার্গেট ব্যক্তিকে মাতাল করার পর ধারণ করা হয় ভিডিও। পরে সেসব ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে শুরু হয় ব্ল্যাকমেইলিং। ইভার ফাঁদে পা দিয়ে শতাধিক ব্যক্তি খুঁইয়েছেন কোটি কোটি টাকা। এ তালিকায় রয়েছেন দুই ডজনেরও বেশি সরকারি কর্মকর্তাও। গ্রেফতারের পর গোয়েন্দা পুলিশ জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত তানজিনা আক্তার ওরফে ইভার দশটি বিয়ের তথ্য পাওয়া গেছে।

ডিবিপ্রধান জানান, ধনাঢ্য ব্যক্তিদের টার্গেট করেন ইভা আর বন্ধুত্ব হয় ফেসবুকে। মেসেঞ্জারে পাঠান নিজের আপত্তিকর ছবি এবং ভিডিও। সম্পর্ক হওয়ার পর কোনো তারকা হোটেলে করেন সাক্ষাত। সেখানে টার্গেট ব্যক্তিকে মাতাল করার পর ধারণ করা হয় ভিডিও। পরে সেসব ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে শুরু হয় ব্ল্যাকমেইলিং। এমন অসংখ্য অভিযোগের পর তাকে গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেফতার করেছে রাজধানী থেকে। গত ১১ জানুয়ারি মাসুম বিল্লাহ ফারদিন ওরফে রাজুকে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্যে জানা যায় তানজিনা আক্তার ইভা সম্পর্কে।

ফারদিন এবং ইভাকে একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ বলে জানান হারুন অর রশীদ।

ফারদিন এবং ইভার কাছ থেকে এরকম আরও অনেকের নাম পাওয়া গেছে, তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলমান আছে বলেও জানান তিনি।