• শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২৯ ১৪৩১

  • || ০৫ মুহররম ১৪৪৬

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী চীন সফর সংক্ষিপ্ত করে আজ দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-বেইজিং ৭ ঘোষণাপত্র, ২১ চুক্তি সই চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে চীনের প্রতি সহযোগিতার আহ্বান বাংলাদেশে বিনিয়োগের এখনই উপযুক্ত সময় তিয়েনআনমেন স্কয়ারে চীনা বিপ্লবীদের প্রতি শেখ হাসিনার শ্রদ্ধা চীন-বাংলাদেশ হাত মেলালে বিশাল কিছু অর্জন সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশে বিনিয়োগের এখনই সময়: চীনা ব্যবসায়ীদের প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী বেইজিং পৌঁছেছেন, শি জিংপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক আজ দ্বিপক্ষীয় সফরে চীনের পথে প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী চীন সফরে যাচ্ছেন আজ সর্বজনীন পেনশনে যুক্ত হতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান শেখ হাসিনার পড়াশোনা নষ্ট করে কোটাবিরোধী আন্দোলনের কোনো যৌক্তিকতা নেই পিজিআরকে ‘চেইন অব কমান্ডে’র প্রতি আস্থাশীল থেকে অর্পিত দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনের নির্দেশ রাষ্ট্রপতির টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিতে কৃষি ও কৃষকের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে সরকারের কৃষিবান্ধব নীতির ফলে টেকসই কৃষি প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত হয়েছে এমডি পদের জন্য এত লালায়িত কেন, কী মধু আছে: প্রধানমন্ত্রী

ঋণের তৃতীয় কিস্তি ১.১১ বিলিয়ন ডলার অনুমোদন আইএমএফের

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০২৪  

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) বোর্ড ওয়াশিংটনে সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ে বাংলাদেশের ঋণের তৃতীয় কিস্তির ১১১ কোটি ৫০ লাখ (১ দশমিক ১১৫ বিলিয়ন) ডলার অনুমোদন করেছে। আগামী দুই দিনের মধ্যে ঋণের অর্থ ছাড় করা হবে।

তৃতীয় কিস্তির ঋণের অর্থ পাওয়ার মাধ্যমে আইএমএফ থেকে ৪ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার ঋণের তিন কিস্তিতে মোট ২২৭ কোটি ৩৩ লাখ (২ দশমিক ২৭ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার পাবে বাংলাদেশ।

সোমবার (২৪ জুন) ওয়াশিংটনের আইএমএফ বোর্ড সভায় এ ঋণ অনুমোদন করে। এদিন সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. মেজবাউল হক।

উল্লেখ্য, ২০২২ সালের জুলাই মাসে বাংলাদেশ আইএমএফের কাছে ঋণ চায়। ছয় মাস পর সংস্থাটি গত ২০২৩ সালের ৩০ জানুয়ারি ৪৭০ কোটি ডলার ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। ২০২৬ সাল পর্যন্ত সাড়ে তিন বছরে মোট সাত কিস্তিতে এ অর্থ পাওয়া যাবে।

ঋণের প্রথম কিস্তির ৬৮ কোটি ২০ লাখ ডলার ২০২৩ সালের ২ ফেব্রুয়ারি পায় বাংলাদেশ। এরপর ঋণের দ্বিতীয় কিস্তির ৪৭ কোটি ৬৩ লাখ ডলার পায় ২০২৩ সালের ১৩ ডিসেম্বর। আর আজ সোমবার ঋণের তৃতীয় কিস্তির ১১১ কোটি ৫০ লাখ ডলার অনুমোদন করলো আইএমএফ এর বোর্ড সভা। দুই দিনের মধ্যেই এ অর্থ ছাড় হবে।