• বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪৩১

  • || ১১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
শেখ হাসিনার ভারত সফর: আঞ্চলিক ভূ-রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হতে পারে ফিলিস্তিনসহ দেশের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে

ই-কমার্স লেনদেনের নীতিমালা দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

ই-কমার্স প্ল্যাটফরমে কেনাকাটায় প্রতারণা ঠেকাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এসক্রো সার্ভিস নামের বিশেষ যে সেবা চালু করেছে, তা এখন ৫ হাজার টাকা বা তার চেয়ে বেশি মূল্যের একক কেনাকাটার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এসক্রো সেবার মাধ্যমে কোনো ই-কমার্স থেকে ৫ হাজার টাকা বা তার চেয়ে বেশি মূল্যের একক কেনাকাটার অর্থ সরাসরি বিক্রেতার কাছে যাবে না। ক্রেতা অর্থ পরিশোধ করলে তা ব্যাংক, এমএফএস বা অর্থ পরিশোধের পরিষেবা (পিএসও/পিএসপি) প্রতিষ্ঠানের কাছে যাবে। টাকা সংরক্ষিত থাকবে এসব প্রতিষ্ঠানের কাছে। বিক্রেতাকে নিশ্চয়তা দেওয়া হবে ক্রেতা কুরিয়ারের মাধ্যমে পণ্য বুঝে পেলে টাকা পাওয়া যাবে। ক্রেতাকে পণ্য বুঝিয়ে দিয়ে বিক্রেতা প্রাপ্তি রসিদ দেখালে তখন এসক্রো সেবা থেকে বিক্রেতার ব্যাংক হিসাবে পণ্যমূল্য পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ‘মার্চেন্ট অ্যাকোয়ারিং ও এসক্রো সেবা নীতিমালা ২০২৩’ শীর্ষক নীতিমালায় এমন শর্তের কথা বলা হয়েছে। মূলত অনলাইন কেনাকাটায় প্রতারণা থেকে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়কে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য তৈরি হয়েছে এই নীতিমালা।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, ই-কমার্সে এমন লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংক, এমএফএস, পিএসও ও পিএসপি প্রতিষ্ঠান ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয় পক্ষের কাছ থেকে কোনো মাশুল নিতে পারবে না। এই সেবায় অংশগ্রহণকারী কুরিয়ার প্রতিষ্ঠানগুলোকে আবশ্যিকভাবে বাংলাদেশ মেইলিং অপারেটর ও কুরিয়ার সার্ভিস লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে অনুমোদিত হতে হবে। সরকার কর্তৃক সেন্ট্রাল বা কেন্দ্রীয় কুরিয়ার হাব প্রতিষ্ঠার পর সব কুরিয়ার প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় কুরিয়ার হাবে যুক্ত হবে। শুধু কেন্দ্রীয় কুরিয়ার হাব কর্তৃক ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা ওটিপি ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হবে।

এসক্রো সেবা নিশ্চিত করতে অর্থ পরিশোধ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো মার্চেন্ট বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হবে। তাদের পক্ষে গ্রাহকের কাছ থেকে পণ্য বা সেবামূল্য সংগ্রহ করবে। এ ক্ষেত্রে অর্থ পরিশোধ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট মার্চেন্ট অ্যাকোয়ারের বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে সেবার আওতায় নিয়ে আসতে মুখ্য ভূমিকা পালন করে। প্রধানত তিন ধরনের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পরিশোধ পরিষেবাগুলো চুক্তিবদ্ধ হয়ে মার্চেন্ট হিসাব খুলে দেবে। সেগুলো হলো—ফিজিক্যাল স্টোরভিত্তিক মার্চেন্ট, অনলাইনভিত্তিক মার্চেন্ট এবং ফিজিক্যাল স্টোর ও অনলাইন উভয়ভিত্তিক মার্চেন্ট।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মতে, এই উদ্যোগ ডিজিটাল পরিশোধ ব্যবস্থার প্রসারে ভূমিকা রাখবে। কারণ ই-কমার্সের ক্ষেত্রে সশরীর উপস্থিত থেকে লেনদেন না করতে পারায় অনেক বিক্রেতা সুযোগ গ্রহণ করে। টাকা নিয়ে পণ্য দেয় না। আবার পণ্যের ক্রয়াদেশ দিয়ে অনেক ক্ষেত্রে কুরিয়ার থেকে পণ্য গ্রহণ না করার মানসিকতা অনেক ক্রেতার মধ্যেও আছে। ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কে সুরক্ষা দিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উদ্যোগে এই নীতিমালা করেছে। যেসব প্রতিষ্ঠান এই সেবা নিয়ে কাজ করবে, তারা নীতিমালার কোনো ব্যত্যয় করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও এতে উল্লেখ করা হয়েছে।