• বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৯ ১৪৩১

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৬

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

বান্ধবীকে গাড়ি উপহার, কোটি টাকার মালিক পুলিশ কনস্টেবল

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি করে বান্ধবীকে উপহার দিয়েছেন মোটা অঙ্কের অর্থ ও দামি গাড়ি। বিষয়টি নজরে আসে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তাদের। এতো অর্থের উৎস কোথায় জানতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই কনস্টেবলকে ডেকে নেন তারা।  

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমের রামপুরহাট থানার কনস্টেবল তিনি। নাম - মনোজিৎ বাগীশ। তার বাড়ি বারুইপুর এলাকায়। এই কনস্টেবলকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে রামপুরহাট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে রাজ্য পুলিশের দুর্নীতি দমন শাখা (এসিবি)।  

এসিবি সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম টিভি নাইনের খবরে বলা হয়, সম্প্রতি প্রায় ১ কোটি রুপি তুলেছিলেন কনস্টেবল মনোজিৎ বাগীশ। এরপর সেই টাকা থেকে প্রায় ২১ লাখ রুপি তিনি তার বান্ধবীর অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করেন।  এছাড়া সেই বান্ধবীকে ১১ লাখ ৭৫ হাজার রুপি দিয়ে একটি গাড়িও কিনে দেন মনোজিৎ।

এতেই শেষ নয়; ওই পুলিশ কনস্টেবলের ৭৩ লাখ রুপির একটি ফিক্সড ডিপোজিটেরও সন্ধান পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে দুর্নীতি দমন শাখার কর্মকর্তা।

এসব খবরে চোখ ছানাবড়া পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দাদের। চার বছরে কনস্টেবলের চাকরি করেছেন মনোজিৎ। বছর দেড়েক আগেই রামপুরহাটে বদলি হয়েছিল তার। এর আগে ওই কনস্টেবলের পোস্টিং ছিল হাওড়ায়।

সে হিসেবে এই চার বছরে বেতন বাবদ তার আয় হওয়ার কথা প্রায় ১১ লাখ টাকা।

সেখানে মনোজিতের এই বিপুল সম্পত্তি কীভাবে হলো?

তা জানতে মনোজিতের ওই বান্ধবীর খোঁজে নেমেছেন রাজ্যের দুর্নীতি দমন শাখার তদন্তকারী অফিসাররা। কিন্তু উপহার দেওয়া গাড়ির রেজিস্ট্রেশনে ঠিকানা ভুল দেওয়ায় তাকে খুঁজে পেতে বেগ পেতে হচ্ছে তাদের। তবে তার নাম জানা গেছে।  

বুলা কর্মকার নামের ওই বান্ধবীর খোঁজ পাওয়া গেলে, দুজনকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাইছেন দুর্নীতি দমন শাখার তদন্তকারী অফিসাররা।