• সোমবার ১৭ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ২ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

এন্টিঅক্সিডেন্ট এর উপকারিতা ও মানবদেহে এর প্রভাব

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০১৯  

মানবদেহে অনেক প্রকার কাজ এর সমন্বয় হয়।আমাদের দেহের এসব কাজ গুলো অনেকগুলো রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে হয়।এমন একটি বিক্রিয়ার নাম হলো জারন বিক্রিয়া। জারন বিক্রিয়ায় উৎপন্ন হওয়া রাসায়নিক দ্রব্য গুলো দেহের জন্য ক্ষতিকর।এসব ক্ষতিকর পদার্থ থেকে বাচার জন্য প্রাকৃতিক ভাবে এন্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের দেহে তৈরি হয়।এছাড়া বিভিন্ন ফল, সবজি তে এটি বিদ্যমান। সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে এন্টিঅক্সিডেন্ট এর জুড়ি মেলা ভার।তাই আজ লিখছি এন্টি অক্সিডেন্ট নিয়ে।

**এন্টিঅক্সিডেন্ট ক্যানো প্রয়োজনঃ

বিভিন্ন কারণে শরীরে অ্যান্টি অক্সিডেন্টের প্রয়োজন। এন্টি অক্সিডেন্ট শরীরে খুব সামান্য, তবে অবশ্যই প্রয়োজন আছে। শরীরে যেসব কারণে অ্যান্টি অক্সিডেন্টের প্রয়োজন হয়, তা হলো—
*অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখে
*সারা দিনের ক্লান্তি দূর করে
*ভিটামিন ‘সি’ ও ‘এ’-এর অভাবজনিত ক্ষতি দূর করে
*প্রাণোচ্ছলতা বজায় রাখে
*স্মৃতিশক্তি বজায় রাখে
*ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বিশেষ উপকারী
একটি গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্যানসার প্রতিরোধ করতে সক্ষম। একজন ব্যক্তি যত বেশি অ্যান্টি অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ খাবার খাবেন, তাঁর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তত বেশি হবে।

**কোন কোন খাবারে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে
*শাকসবজি ও ফলমূলে অ্যান্টি অক্সিডেন্টের পরিমাণ বেশি। এ ছাড়া যেসব খাবারে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে, তা হচ্ছে ভিটামিন ‘ই’, ভিটামিন ‘সি’, বিটা ক্যারোটিন, কাঠবাদাম, গ্রিন টি, আনারাস, আঙুর, ভুট্টা, লাল আটা, বাদাম তেল, জলপাই, খেজুর, উদ্ভিজ তেল, ব্রোকলি প্রভৃতি।
*প্রতিদিনের খাবারে শাকসবজি অবশ্যই থাকা উচিত। ক্যালসিয়াম ও আঁশসমৃদ্ধ খাবারেও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে। সারা দিনে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করা উচিত। কারণ, পানিতেও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে।

*বিভিন্ন রকমের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যেমন বিটা ক্যারোটিন চোখের জন্য খুব উপকারী, ফ্লাভানোয়েড হার্টের জন্য ভালো।

*অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ত্বকের অতি বেগুনি রশ্মির কারণে যে ক্ষতি হয়, তা প্রতিরোধ করে।

*হৃদ্রোগ, চোখের বিভিন্ন রোগ, স্মৃতিশক্তিজনিত যেকোনো সমস্যা প্রতিরোধ করে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট।

*অ্যান্টি অক্সিডেন্টের ফলে ত্বকের সৌন্দর্য বজায় থাকে, চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ে। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট চুল পড়া রোধ করে। এটি আয়রন লেভেল কার্যকরভাবে রক্ষা করে হিমোগ্লোবিনের সমতা বজায় রাখে। যাঁরা ওজন কমাতে চান, তাঁরা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট গ্রহণ করলে শরীর দুর্বল হয় না।

**অ্যান্টি অক্সিডেন্টের অভাবে কী হতে পারে?

অ্যান্টি অক্সিডেন্ট মূলত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এর অভাবে লিভারে সমস্যা হতে পারে, ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট হয়, খুব কম বয়সে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে যায় এবং অনেক সময় রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা একেবারেই নষ্ট হয়ে যায়।
সুতরাং সবারই প্রতিদিনের খাদ্যের তালিকায় অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে এমন খাবার রাখা উচিত।

আমাদের শরীরে কিছু পরিমান এন্টিঅক্সিডেন্ট আপনা আপনি তৈরি হয়।কিন্তু এপরিমাণ এন্টিঅক্সিডেন্ট রোগপ্রতিরোধ এবং অন্যান্য কার্যক্রম সঠিকভাবে চলার জন্য যথেষ্ট নয়।তাই এই বাড়তি এন্টিঅক্সিডেন্ট এর যোগান ঠিক রাখার জন্য দরকার সুষম এন্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত খাদ্যগ্রহন করা।উপরিউক্ত এন্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত খাদ্য, আপনার খাদ্য তালিকায় থাকলে আপনি চিন্তামুক্ত। তবে যদি খাদ্যতালিকায় না থেকে থাকে তবে অবশ্যই এগুলো আপনার খাদ্য তালিকায় যুক্ত করে নিন।