• রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১০ ১৪২৮

  • || ১৭ সফর ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
নভেম্বরে এসএসসি ও ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী জরুরি ভিত্তিতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন জোরদারের দাবি প্রধানমন্ত্রীর করোনার টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ ঘোষণার আহ্বান কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক দেশের বিভিন্ন প্রতিশ্রুতিশীল খাতে মার্কিন বিনিয়োগের আহ্বান এসডিজি’র উন্নতিতে জাতিসংঘে পুরস্কৃত বাংলাদেশ নিউইয়র্কে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী টিকা নেওয়ার পর খোলার সিদ্ধান্ত নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয় নিতে পারবে বঙ্গবন্ধু ভাষণের দিনকে এবারও ‘বাংলাদেশি ইমিগ্রান্ট ডে’ ঘোষণা ফিনল্যান্ডে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শীর্ষ অর্থনীতির দেশগুলোর অংশগ্রহণ চান প্রধানমন্ত্রী `লাশের নামে একটা বাক্সো সাজিয়ে-গুজিয়ে আনা হয়েছিল` টকশোতে কে কী বলল ওসব নিয়ে দেশ পরিচালনা করি না: প্রধানমন্ত্রী উপহারের ঘরে দুর্নীতি তদন্তে দুদককে নির্দেশ দিলেন প্রধানমন্ত্রী জিয়াকে আসামি করতে চেয়েছিলাম: প্রধানমন্ত্রী এটা তো দুর্নীতির জন্য হয়নি, এটা কারা করল? ওজোন স্তর রক্ষায় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতকেও এগিয়ে আসতে হবে ওজোন স্তর রক্ষায় সিএফসি গ্যাসনির্ভর যন্ত্রের ব্যবহার কমাতে হবে ১২ বছরের শিক্ষার্থীরা টিকার আওতায় আসছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দিবেন প্রধানমন্ত্রী

দুই বাহুতে রক্তচাপের পার্থক্য মানেই ভয়ানক বিপদ

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০২১  

আমাদের মধ্যে অনেকেই রক্তচাপের সমস্যায় ভুগেন। দেখা যায়, যখন রক্তচাপের সমস্যা হয় তখন আমরা তার পরিমাপ করার জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে রোগীর একটি বাহুই ব্যবহার করে থাকি। যা মোটেও সঠিক নয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রক্তচাপ দুই বাহুতেই মাপা উচিত। আর তাতে যদি দুরকম ফল আসে, তবে সতর্ক হতে হবে। বিশেষ করে মারাত্মক হৃদরোগের প্রাথমিক লক্ষণ হতে পারে রক্তচাপের এই পার্থক্য।

সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, দুই বাহুর রক্তচাপের পার্থক্য ৫ পয়েন্ট বা তার বেশি হলেই হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেকটা বেড়ে যায়।

ভারতীয় হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ড. জেফরি বারজার বলেন, ‘এটা দুর্ভাগ্যই যে রক্তচাপটা দুই বাহুতে মাপার প্রচলন নেই। তবে আমি মনে করি এটা করা উচিত। এটা খুব সাধারণ একটা কাজ।’

স্বাস্থ্যবিদরা আরো জানান, দুই বাহুতে রক্তচাপের পার্থক্যটা প্রাথমিকভাবে অ্যাথেরোস্কেলেরোসিস-এর লক্ষণ। যার মানে হলো ধমনীতে ‘প্লাক’ জমেছে। এই প্লাক তথা রক্তনালীতে জমাট বাঁধার পেছনে চর্বি, কোলেস্টেরল, ক্যালসিয়াম; এসবই দায়ী। আর ধমনীর কোনো জায়গায় এ বাধাটা প্রকট আকার নিয়েছে কিনা সেটা বোঝার সহজ একটা উপায় হলো দুই বাহুর দুই রকম রক্তচাপ দেখতে পাওয়া।

‘হাইপারটেনশন’নামের একটি জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ৫৪ হাজার লোকের ওপর গবেষণা করে দেখা গেছে দুই বাহুতে রক্তচাপের পার্থক্য প্রতি ১ পয়েন্ট বেড়ে যাওয়া মানে পরবর্তী ১০ বছরের মধ্যে তার হার্ট অ্যাটাকেরও ঝুঁকিও ১ শতাংশ বেড়ে যাওয়া। আর পার্থক্যটা সিস্টোলিক (উপরের দিকের) রক্তচাপের ক্ষেত্রেই বেশি প্রযোজ্য।

গবেষকরা জানালেন, দুই বাহুর রক্তচাপ ঠিক করে ফেলার কোনো সমাধান নেই। কারো ক্ষেত্রে নিয়মিত ব্যায়াম ও স্বাস্থ্যকর খাবারই যথেষ্ট, আবার কারো ক্ষেত্রে প্রয়োজন হতে পারে ওষুধের।