• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৬ ১৪২৯

  • || ৩০ জ্বিলকদ ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
পদ্মা সেতুতে নাশকতার চেষ্টা: আটক ১ সঞ্চয় বাড়ানোর পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা হচ্ছে নতুন মুদ্রানীতি সব ধরনের অপ্রয়োজনীয় ব্যয় কমাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট পাস হচ্ছে আজ নির্মল রঞ্জন গুহের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক সায়মা ওয়াজেদের মমত্ববোধ রেল ক্রসিংয়ে ওভারপাস করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়কে সেতু-উড়াল সড়ক নির্মাণের নির্দেশ ব্যবসা বৃদ্ধিতে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী তিন বাহিনীর সমন্বয়ে নিশ্চিত হবে পদ্মা সেতুর নিরাপত্তা চাকরির একমাত্র বিকল্প শিক্ষিত বেকারদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা পদ্মা সেতুতে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে স্বপ্নজয়ের পর অপার সম্ভাবনার হাতছানি পদ্মা সেতু: প্রধানমন্ত্রীকে এশিয়ার পাঁচ দেশের অভিনন্দন ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের সুষ্ঠু বিকাশে কাজ করছে সরকার পদ্মা সেতুর সফলতায় প্রধানমন্ত্রীকে কুয়েতের রাষ্ট্রদূতের অভিনন্দন নতুন প্রজন্মকে প্রস্তত হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী আমরা বিজয়ী জাতি, মাথা উঁচু করে চলবো: প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

হার্ট দুর্বল কি না, বুঝবেন যেসব লক্ষণে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৭ মে ২০২২  

আমাদের দেশে হার্টের সমস্যা একটি কমন সমস্যা। যত দিন যাচ্ছে তত হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বাড়ছে। বয়স্ক থেকে অল্প বয়সী প্রায় সব বয়সের মানুষের হার্টে সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই নিজের হার্টের সমস্যার দিকটি খেয়াল রাখতে হবে। সচেতন থাকতে হবে হার্টের দুর্বলতা সম্পর্কেও।

করোনা নিয়ে মানুষের ভাবনার শেষ নেই। তবে এ পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়েও হার্টকে ভুলে গেলে চলবে না। কারণ করোনার কারণে হার্টের অবস্থার অনেক অবনতি হয়েছে। অনেকের হার্টের সমস্যা কোভিড থেকে সেরে ওঠার পর দেখা যাচ্ছে। হার্ট ফেইলিওর, হার্ট অ্যাটাক ইত্যাদি রোগের আশঙ্কাও অনেকটাই বেড়েছে।

এক্ষেত্রে হার্টবিট বেড়ে যাওয়া, ক্লান্তি, দুর্বলতা, বুকে ব্যথা, শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিলে অবশ্যই সতর্ক হয়ে যান। কারণ এর পেছনে থাকতে পারে গুরুতর হার্টের রোগের লক্ষণ। অনেক সময় কোভিড হার্টকে দুর্বল করে দেয়। তাই আপনার হার্ট দুর্বল কিনা বুঝতে কিছু লক্ষণ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

হৃদগতি বেড়ে যাওয়া: আমাদের হৃদয় প্রতি মুহূর্তে কম্পিত হচ্ছে। কিন্তু এরপরও আমরা বুঝতে পারি না। কারণ এটা স্বাভাবিক। এবার হৃদগতি হঠাৎ করে বেড়ে গেলে প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই সতর্ক হতে হবে। সেক্ষেত্রে পালস রেট ৬০ থেকে ১০০ এর ভিতরে থাকলে তেমন সমস্যা নেই। তবে এর বেশি কম হলেই বুঝবেন কোনো বড় সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই সতর্ক হয়ে যাওয়া ছাড়া কোনো গতি নেই।

দুর্বলতা ও ক্লান্তি: সারাদিন কাজ করার পর ক্লান্তি আসতেই পারে। কিন্তু কোনো কাজ না করেই ক্লান্তি দেখা দিলে বুঝতে হবে হার্টে কোনো না কোনো সমস্যা অবশ্যই হচ্ছে। আসলে সারা দেহে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তকে পাম্প করে পৌঁছে দেয় হার্ট। এবার হার্ট দুর্বল হয়ে গেলে কিন্তু রক্ত ঠিকমতো সারা দেহে পৌঁছায় না। তখন দুর্বলতা, ক্লান্তি দেখা দেওয়াটাই স্বাভাবিক।

বুকে ব্যথা: বুকে ব্যথা হলো হার্টের রোগের অন্যতম লক্ষণ। এক্ষেত্রে বুকে ব্যথা হলে প্রথম থেকেই বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে। তবেই ভালো থাকতে পারবেন আপনি। এক্ষেত্রে বুকের মাঝে ব্যথা হলে বেশি মাত্রায় সতর্ক থাকুন।

শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা: করোনা থেকে সেরে ওঠার পরও শ্বাসকষ্ট দেখা দিতে পারে। এমনকী এ সমস্যা চলতে পারে অনেকদিন। তাই প্রতিটি মানুষকে অবশ্যই এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে। এক্ষেত্রে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা দূর করতে চাইলে অবশ্যই এ বিষয়গুলোর দিকে নজর রাখতে হবে।

হার্টের দিকে খেয়াল না রাখতে পারলে অনেক সমস্যাই দেখা দিতে পারে। তাই এ দিকটায় অবশ্যই নজর রাখা উচিত। তবেই সুস্থভাবে বাঁচতে পারবেন।