• শনিবার   ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৬ ১৪২৮

  • || ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
লবিস্ট নিয়োগের অর্থ বিএনপি কোথায় পেল ব্যাখ্যা দিতে হবে ‘সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ের কাছাকাছি পৌঁছানো যায়’ জাতির পিতাকে হত্যার পর প্রতিবাদ করেছেন কবিরা: প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন কমিশন বিল সংসদে পাস দেশে এক বছরে প্রায় পৌনে ১৬ কোটি ডোজ টিকাদান সমৃদ্ধ অঞ্চল গড়তে ভারতের সাথে কাজ করবে বাংলাদেশ ৭ লাখ ৪১ হাজার বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়েছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী টিকা আবিষ্কারের আগেই সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছিলাম: প্রধানমন্ত্রী আমদানি-রপ্তানিতে কাস্টমস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে: রাষ্ট্রপতি ব্যবসায়ীদের উন্নত ডিজিটাল সেবা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার প্রজাতন্ত্র দিবসে মোদীকে শুভেচ্ছা জানালেন শেখ হাসিনা পুলিশের সেবা প্রার্থীরা যেন হয়রানির শিকার না হয়: রাষ্ট্রপতি বারবার প্রকল্প সংশোধনে বিরক্তি প্রকাশ প্রধানমন্ত্রীর দেশীয় উদ্যোক্তারা বিদেশে সার কারখানা নির্মাণে বিনিয়োগ করতে পারবে গণঅভ্যুত্থানের চেতনায় সমৃদ্ধ দেশ গঠনের আহ্বান রাষ্ট্রপতির করোনায় ভয়াবহ কিছু হবে না: অর্থমন্ত্রী শহীদ আসাদ গণতন্ত্রপ্রেমী মানুষের মাঝে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন গণতন্ত্রের ইতিহাসে শহীদ আসাদ দিবস একটি অবিস্মরণীয় দিন ‘বাংলাদেশকে আর কেউ অবহেলা করতে পারবে না’ সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে চুপ থাকবে না বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

ফাইজারের মুখে খাওয়ার ওষুধ যুক্তরাষ্ট্রে অনুমোদন

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৩ ডিসেম্বর ২০২১  

যুক্তরাষ্ট্র করোনা চিকিৎসায় ফাইজারের মুখে খাওয়ার ওষুধ ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে। এটি করোনা চিকিৎসায় যুক্তরাষ্ট্রে অনুমোদন পাওয়া প্রথম অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দেশটির ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এই অনুমোদনের কথা জানায়।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

এফডিএ জানিয়েছে, ১২ বছরের ঊর্ধ্বে করোনা আক্রান্তরা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে অ্যান্টিভাইরাল প্যাক্সলোভিড ট্যাবলেট সেবন করতে পারবে।  

যখন ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের প্রভাবে দেশটিতে সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী ঠিক সেই সময়ে ও ওষুধের অনুমোদন দেওয়া হলো। ফাইজারের সঙ্গে এক কোটি কোর্স ওষুধের জন্য চুক্তি করেছে মার্কিন সরকার। প্রতি কোর্সের দাম ধরা হয়েছে ৫৩০ ডলার। ২০২২ সালের মধ্যে প্যাক্সলোভিডের ১২ কোটি পিল উৎপাদনের লক্ষ্য ফাইজারের।

প্রতিষ্ঠানটির ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, গুরুতর অবস্থা বা হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজনীয়তা ঠেকাতে ৯০ শতাংশ কার্যকর এই ওষুধ। সাম্প্রতিক গবেষণায় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধেও এ ওষুধের কার্যকারিতার প্রমাণ মিলেছে।

এই ওষুধ দিনে দু’বার তিনটি করে মোট পাঁচ দিন খেতে হবে। সে হিসেবে একজন রোগীকে ডোজ পূর্ণ করতে মোট ৩০টি ওষুধ খেতে হবে।