• বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৯ ১৪৩১

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৬

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ ‘চীন কিছু দেয়নি, ভারতের সঙ্গে গোলামি চুক্তি’ বলা মানসিক অসুস্থতা দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী : প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকার ব্যবসাবান্ধব সরকার ফুটবলের উন্নয়নে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে সরকার যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিশ্বমানের খেলোয়াড় তৈরি করুন চীন সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নে পরিকল্পিত ও দক্ষ জনসংখ্যার গুরুত্ব অপরিসীম বাংলাদেশে আরো বিনিয়োগ করতে চায় চীন: শি জিনপিং চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

মনপুরায় ইউপি নির্বাচনে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে প্রার্থীরা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৪ মার্চ ২০২৪  

ভোলা প্রতিনিধিঃ আগামী ৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে মনপুরা উপজেলার প্রথম ধাপের ২টি ইউপি নির্বাচন। নির্বাচনে প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা যাছাই করতে নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার লক্ষে ব্যাস্ত সময় পার করছেন প্রার্থী, সমর্থক ও কর্মীরা। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে প্রার্থীদের ব্যাস্ততা ততই বাড়ছে। প্রতিদিন প্রার্থী ও প্রার্থীর সমর্থক কর্মীরা বাড়ী বাড়ী গিয়ে পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাচ্ছেন।

প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের। প্রতিদিন কাক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট ভিক্ষা চাচ্ছেন। উঠান বৈঠক ,পথ সভা ,বাড়ী বাড়ী গিয়ে ব্যাপক গনসংযোগ করছেন প্রার্থীসহ কর্মীসমর্থকরা। পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করার লক্ষে দিনরাত পরিশ্রম করে  যাচ্ছেন। জমে উঠছে নির্বানী মাঠ। চায়ের দোকানে, হাট-বাজারে, অফিস আদালতে ,জেলে পল্লীতে সর্বজায়গায় প্রার্থীর যোগ্যতা, প্রার্থীর ব্যবহার, আচার-আচরন নিয়ে চুল ছেরা বিশ্লেষন করছেন ভোটাররা। কাকে ভোট দিলে সঠিক বিচার শালিশ পাওয়া যাবে, কাকে সহযে বাড়ী পাওয়া যাবে, কে সাধারন মানুষের সুখ দুঃখের খবর শোনার সাথে সাথেই তাড়াতাড়ি এগিয়ে আসবে, যে কোন ঘটনায় কাকে মোবাইলে ফোন করলে সহযে পাওয়া যাবে,কে সাধারন ভোটারকে মূল্যায়ন করবে, কে হবে জনগনের চেয়ারম্যান, কে হবেন গরীব অসহায় সাধারন মানুষের আপন জন,কোন প্রার্থীকে সহযে পাওয়া যাবে এই নিয়ে চলছে শুধু আলোচনা চুল ছেড়া বিশ্লেষন। 

চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে পাল্লা দিয়ে ইউপি মেম্বার ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বাররাও ভোটারদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে নিজেদের পক্ষে ভোট চাচ্ছেন। জমে উঠছে নির্বাচনী আমেজ। ব্যানার,পোষ্টার, লিপলেট হাটবাজার, চায়ের দোকান, রাস্তার অলি-গলিতে ছেয়ে গেছে। জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচারনা। সাধারন ভোটারদের বেড়েছে কদর।

উপজেলার ২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের মধ্যে ৫নং কলাতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ আলাউদ্দিন হাওলাদার ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য নিলুফা আক্তার ১,২,ও ৩ নং ওয়ার্ডের বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হওয়ায় সেই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে তেমন কোন আলোচনা নেই।  ৫নং কলাতলী ইউনিয়নে সাধারন সদস্য পদে ৪৪ জন এবং সংরক্ষিত সদস্য পদে ৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। মেম্বরদের মধ্যে ব্যাপক প্রতিযোগীতা মূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

১নং মনপুরা ইউনিয়ন পরিষদে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করলেও মূলত ২ জন প্রার্থীর মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডা হাড্ডি। চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ১নং ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি আমানত উল্যাহ আলমগীর (মোটর সাইকেল মার্কা) ও ১নং মনপুরা ইউনিয়ন আ’লীগ সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা আ’লীগ কোষাধক্ষ বিশিষ্ট মৎস্য ব্যাবসায়ী মোঃ লোকমন হোসেন হাওলাদার(আনারস মার্কা) প্রতিক এর মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি। অপর ৩ জন প্রার্থীর প্রচার প্রচারনা তেমন একটা দেখা যায়নি। অপর ৩ জন প্রার্থী হলেন ১নং মনপুরা ইউনিয়ন আ’লীগ সাধারন সম্পাদক মোঃ নিজাম উদ্দিন মিঞা(চশমা), মোঃ শরিফ হাওলাদার(রজনীগন্ধা) এবং মোঃ শাহাবউদ্দিন(দুই পাতা) প্রতিক।

১নং মনপুরা ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সাধারন সদস্য পদে ৩০ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১২ জন প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, নবগঠিত ৫নং  কলাতলী ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ৭৮৫২জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪০৭৬জন এবং মহিলা ভোটার ৩৭৭৬ জন। ১নং মনপুরা ইউনিয়নে মোট ভোটার ৬৭১৪জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩২৬৫ এবং মহিলা ভোটার ৩৪৪৯ জন। প্রতিটি ইউনিয়নে ভোট কেন্দ্র ৯টি করে। 

ভোটারদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, এবার নির্বাচনে ভোটারদের মূল্যায়ন বাড়ছে। আ’লীগ ও বিএনপির দলীয় মনোনীত কোন প্রার্থী না থাকায় ভোটারদের কদর বেড়েছে। ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন। তারা তাদের যোগ্য প্রার্থীকে এবার নির্বাচনে বিজয়ী করতে পারবেন। এতোদিন তারা অবহেলিত ছিলেন। কাকে ভোট দিলে এলাকার উন্নয়ন হবে সেই প্রার্থীকে তারা ভোট দিবেন।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ লোকমান হোসেন হাওলাদার(আনারস মার্কা) ব্যাক্তি ইমেজকে কাজে লাগিয়ে সাধারন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। নির্বাচিত হলে সাধারন ভোটাররা তাকে সহজে পাবেন। যে কোন ঘটনায় তাকে ফোন দিলেই তিনি হাজির হবেন। তাকে পাওয়ার জন্য সারাদিন বাসায় বসে থাকতে হবেনা। তিনি নির্বাচনে বিজয়ী হলে চরফ্যাশন মনপুরার উন্নয়নের রুপকার আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপির সাথে সমন্বয় করে এলাকার সকল অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করবেন। তিনি সঠিক বিচার শালিশ করবেন। গরীব অসহায় দিনমজুর শ্রমিক জেলে সাধারন মানুষের সকল সমসা সমাধানের জন্য দিনরাত কাজ করে যাবেন। সবসময় জনগনের পাশে থাকবেন এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

অপর দিকে চেয়ারম্যান প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আমানতউল্যাহ আলমগীর(মোটর সাইকেল) প্রতিক নিয়ে জনগনের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। তিনি বিগত ৭ বছর জনগনের খেদমত করেছেন। বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ করছেন।তিনি সাধারন মানুষের মাঝে বয়স্ক ভাতা, বিধাব ভাতা, মার্তৃত্বকালীন ভাতা, জেলেদের মাঝে ভিজিএফ,প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর,প্রতিবন্ধী ভাতাসহ সকল সুযোগ সুবিধা সাধারন মানুষকে দিয়েছেন। তিনি সঠিক বিচার শালিস করেছেন। কারও কাছ থেকে কোন টাকা পয়সা নেননি। তিনি গরিবের চেয়ারম্যান ছিলেন।  সাধারন মানুষ তার বিগত শাসন আমলে সকল কর্মকান্ড বিবেচনা করে তাকে আবারও বিপুল ভোটের ব্যবদানে মনপুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করবন।

আগামী ৯মার্চ অনুষ্ঠিত হবে মনপুরা ২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। মনপুরা ইউপি নির্বাচনে ব্যাক্তি ইমেজ,সততা, ন্যায় নিষ্ঠা,পারিবারিক ঐতিয্য কাজে লাগিয়ে দুই প্রার্থী সাধারন ভোটারদের মন জয় করার জোর চেষ্ঠা তদবীর করে যাচ্ছেন। দুই প্রার্থী হেভিওয়েট। ভোটের মাঠে সাধারন ভোটাররা ব্যক্তি ইমেজ ও সততা ন্যায় নিষ্ঠার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে ভোট দিলে সেই ক্ষেত্রে লোকমান হোসেন হাওলাদার বিজয়ী হওয়ার সম্ভবনাই বেশী।

অপর দিকে বিগত ৭ বছর বর্তমান চেয়ারম্যান আমানতউল্যাহ আলমগীর যে উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড করেছেন সেই দিক বিবেচনা করে ভোট দিলে সেই ক্ষেত্রে তিনি জয়ী হওয়ার সম্ভবনা আছে।  তবে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী লোকমান  হোসেন হাওলাদার(আনারস) ও বর্তমান চেয়ারম্যান আমানতউল্যাহ আলমগীর(মোটর সাইকেল) প্রার্থীর মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি।