• শুক্রবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর ব্যাংক খাতের পরিস্থিতি জানানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ১০ ডিসেম্বর বিএনপির মহাসমাবেশ, পরিবহন ধর্মঘট না ডাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা সংঘাত-দুর্যোগে নারীদের দুর্দশা বহুগুণ বাড়ে: প্রধানমন্ত্রী সচিবদের যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী জিয়া-খালেদা-তারেক খুনি: প্রধানমন্ত্রী জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল হবে: প্রধানমন্ত্রী সূচকের ওঠানামায় পুঁজিবাজারে চলছে লেনদেন দুপুরে সচিবদের নিয়ে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ডা. মিলনের আত্মত্যাগ নতুন গতি সঞ্চার করে ডা. মিলন এক উজ্জ্বল নক্ষত্র: রাষ্ট্রপতি মিছিল-মিটিংয়ে আপত্তি নেই, মানুষের ওপর হামলায় সহ্য করবো না ‘যারা গ্রেনেড দিয়ে আমাকে হত্যার চেষ্টা করেছে, তাদের সঙ্গে আলোচনা?

ভোলায় ৭০ জন জেলেদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে জেলা প্রশাসক

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০২১  

ভোলা প্রতিনিধিঃ গেছে বৈন্নয়ায় সিডরের কালে সাগরের নামাদিয়া  দমার বাড়ির লগে ট্রলার কাইত কইরা লাইছে। হেইকালে দুইডা ছোড ছোড বাঁশ ধইরা আল্লাহ আল্লাহ করছি, এই বুঝু হাত ছুইটা গেলো। হাতের ধারে কিচ্ছু পাইনাই। ট্রলারের হগলে যে যার মতো দূরাইতাছে, কেউ কেউ পানিত ঝাপদিছে। হেইয়া মনে ওঠলে আইজও কান্দন আহে। স্যারেরা আইজ একটা ট্রলারের লইগা ২ ডা কইরা বয়া আর ৫ টা কইরা লাইব জ্যাকেট দিছে, এহন আর গাংঙ্গে আর সাগরে ভয়নাই। এ ভাবেই আবেগে আপ্লুত হয়ে অনেকটা অশ্রু চোখে কথা গুলো বলছিলেন ভোলা সদর উপজেলার ৪নং কাচিয়া ইউনিয়ন কাঠির মাথা মাছঘাট এলাকার মোতালেব মাঝি।

তার মতো গতকাল মঙ্গলবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকেলে ভোলা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের লোকাল গভর্নমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক) প্রকল্পের আওতায় সদর উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ওই ইউনিয়নের ৭০জন জেলেদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন 'লজিক''।

এ সময় কাচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম নকিব এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা প্রশাসক কার্যালয় স্থানীয় সরকার শাখার উপ-পরিচালক রাজিব আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, স্থানীয় সরকার শাখার সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নুসরাত ফাতেমা চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলার মৎস্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা প্রতীক দে, লজিক প্রকল্পের ভোলা ডিস্ট্রিক্ট ক্লাইমেট চেঞ্জ কোঅর্ডিনেটর  নুরুল মোমেন সিদ্দিকী রায়হান প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন লজিক প্রকল্পের ভোলা ডিস্ট্রিক্ট ক্লাইমেট ফাইন্যান্স এর জেলা কো-অর্ডিনেটর হেলাল উদ্দিন।

এ সময় কাচিয়া ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম নকিব বলেন, ভোলা জেলা একটি নদী মাতৃক এলাকা। এ জেলায় কিছু বিচ্ছিন্ন দ্বীপ-চর রয়েছে সেখানে বসবাস করা অধিকাংশ মানুষ  জেলে পেশা করে জীবিকা নির্বাহ করে। এই ঝরের সময় তারা নদী সাগরে মাছ শিকারে গিয়ে নানা প্রতিকূলতার মুখোমুখি হয়। তাদের কথা মাথায় রেখে সরকার লজিক প্রকল্পের মাধ্যমে যে সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে তাকে আমরা সাধুবাদ জানাই। কিন্তু আমার কাচিয়া ইউনিয়নের মাঝের চরে যেই পরিমান মানুষ ঝরের সাথে যুদ্ধ করে জীবন যাপন করে তাদের শতকরা ১০% মানুষ ও এই লজিক এর সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন না, এতে করে ঝরের কবলে পরে শতভাগের মধ্যে ৮০ ভাগ মানুষ ক্ষয়ক্ষতির সম্মক্ষীন হতে হচ্ছে। তাই তিনি সরকার প্রধানের কাছে বিশেষ করে দ্বীপ-চরে বসবাসরত বাসিন্দাদের শতভাগ এই লজিক প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসার আহবান জানান।

আর প্রধান অতিথি রাজিব আহমেদ বলেন, ক্লাইমেট চেঞ্জ এর ফলে আমরা যেই ক্ষতির মুখে পরছি তার থেকে প্রতিরোদের জন্য সরকার "লজিক" প্রকল্পের মাধ্যমে নানা রকমেরনকাজ করে আসছে। যেহেতু ভোলা জেলা একটি প্রাকৃতিক দুযোর্গপ্রবণ এলাকা। প্রতিনিয়ত দুযোর্গের সাথে যুদ্ধ করে নদী ও সমুদ্র মাছ করে এখানকার জেলেরা। দেখাযায় সমুদ্রে যে কোন সময় সাইক্লোন, টর্নেডো, জলোচ্ছ্বাস সৃষ্টি হয়। ঝরের কবলে পরে সাগরে থাকা অনেক মাছ ধরার ট্রলার নিখোঁজ হয়ে যায় তখন তাদের কাছে সুরক্ষা সামগ্রী থাকলে তারা অন্তত জীবন রক্ষা করতে সক্ষম হয়। এই দৃষ্টিকোন থেকে সমুদ্রের উপকূলীয় এলকায় লজিক এর মাধ্যমে জেলেদের সুরক্ষা সামগ্রী হিসেবে একটি ট্রলারে ২ টি করে বয়া ও ৫ টি করে লাই জ্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে। এই সুরক্ষা সামগ্রী দুযোর্গ সময় জেলেদের সুরক্ষা কবচ হিসাবে কাজ করবে ।

উল্লেখ্য, সমুদ্র উপকূল অঞ্চলের মানুষের দুয়ারে জলবায়ু অভিযোজনের সুফল পৌঁছে দিতে সরকার ও উন্নয়ন অংশীদার সংস্থাগুলো জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে স্থানীয় সরকারের উদ্যোগে লোকাল গভর্নমেন্ট ইনিশিয়েটিভ অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (লজিক) প্রকল্প কাজ করে আসছে। ভোলা জেলার সমুদ্র তীরবর্তী উপকূলীয় মাঝঘাট ও জেলে পল্লিতে প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় ঝুঁকিপূর্ণ জেলেদের সুরক্ষার জন্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও তার ব্যবহার সম্পর্কে প্রশিক্ষন দিচ্ছে লজিক।