• রোববার ২৬ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪৩১

  • || ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
ঢাকায় কোনো বস্তি থাকবে না, দিনমজুররাও ফ্ল্যাটে থাকবে অগ্নিসংযোগকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি বঙ্গবাজারে বিপণী বিতানসহ চারটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন নজরুলের বলিষ্ঠ লেখনী মানুষকে মুক্তি সংগ্রামে উদ্দীপ্ত করেছে জোটের শরিক দলগুলোকে সংগঠিত ও জনপ্রিয় করতে নির্দেশ সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে রেমাল বঙ্গবাজার বিপনী বিতানসহ ৪ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী কৃষিতে ফলন বাড়াতে অস্ট্রেলিয়ার প্রযুক্তি সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী বাজার মনিটরিংয়ে জোর দেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ‘বঙ্গবন্ধু শান্তি পদক’ দেবে বাংলাদেশ ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক রাইসি-আমির আব্দুল্লাহিয়ান মারা গেছেন: ইরানি সংবাদমাধ্যম সকল ক্ষেত্রে সঠিক পরিমাপ নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির ওজন ও পরিমাপ নিশ্চিতে কাজ করছে বিএসটিআই: প্রধানমন্ত্রী চাকরির পেছনে না ছুটে যুবকদের উদ্যোক্তা হওয়ার আহ্বান ‘সামান্য কেমিক্যালের পয়সা বাঁচাতে দেশের সর্বনাশ করবেন না’ ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আগামীকাল ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে বিচারকদের প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

চরফ্যাশনে তরমুজ চাষে সফল কৃষকরা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১৪ মার্চ ২০২৩  

চরফ্যাশন প্রতিনিধিঃ তরমুজ মৌসুম ভিত্তিক ফল। বছরে এই ফলটি একবার চাষ হয়ে থাকে। অন্যান্য ফসলের তুলনায় তরমুজ চাষ করা যেমন কষ্ট আবার ব্যয়বহুল। তরমুজের ফলন ভালো হলে চড়া দামেও বিক্রি করেন কৃষকরা। এবার তরজুম চাষে খুশি চাষীরা।

চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনূকুলে থাকায় ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার মুজিবনগরে আগাম জাতের তরমুজের ফলন ভালো হয়েছে। প্রচন্ড গরম পড়ার কারণে দাম ভালো থাকায় লাভের আশা করছেন মুজিবনগরের কৃষকরা। অনেকেই তরমুজ বিক্রি করে সফলতা পেয়েছেন। আগাম জাতের তরমুজের চাষের জন্য বিখ্যাত মুজিবনগর।

জানা যায়, আগাম জাতের তরমুজের বীজ পৌষ মাসের মধ্যে চাষাবাদ শুরু করা হয় এবং ফাল্পুন মাসে এখন বাজারে তরমুজ। চৈত্র মাসেও তরমুজ বিক্রি করবেন কৃষকরা। এতে তারা বেশি লাভমান হচ্ছে। বর্তমানে প্রতি একর জমিতে সব মিলিয়ে খরচ হয়েছে প্রায় ৮০ হাজার টাকা।

কৃষকদের ক্ষেত থেকে পাইকাররা তরমুজ কিনে নিয়েছে আবার কেউ তরমুজ কর্তন করে নিজ খরচে নিয়েছেন বিভিন্ন যায়গাতে। আবহাওয়া ভালো হলে বড় আকারের তরমুজ বিক্রি হয় শত ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মুজিবনগরের ২নং ওয়ার্ডে শামিম নামের এক কৃষক ক্ষেত থেকে বড়, মাঝারী ও ছোট আকারের তরমুজ সংগ্রহ করে ট্রলার বোঝাই করছেন। লঞ্চ যোগে ঢাকার নারায়ণগঞ্জ নিয়ে যাবেন বলে তিনি জানান। এর মধ্যে ক্ষেত থেকে তরমুজ সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন জেলাতে পাঠিয়েছেন পাইকাররা, পেয়েছেন চড়া দাম। এ ছাড়াও মুজিবনগরের বিভিন্ন কৃষকের জমিতে পেকে ওঠেছে আগাম জাতের তরমজু। আবার অনেকেই পানি দিচ্ছে তরমুজ গাছে। খুব শিঘ্রই বাকি তরমুজ পাকা শুরু হবে।

চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছরে চরফ্যাশন উপজেলায় তরমুজের চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়ছে ১২ হাজার ৫৫০ হেক্টর জমি। কিন্তু ১৫ হাজার ৮২৭ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষাবাদ হচ্ছে।

কৃষক শামিম পাটওয়ারী জানান, ১২ বছর যাবত তরমুজ চাষাবাদ করে আসছেন। আগাম জাতের তরমুজ ৮ বছর পর্যন্ত করা হয়নি। তাতে ব্যপক লোকসান গুনতে হয়েছে। গত ৩ বছর ধরে আগাম জাতের তরমুজ চাষাবাদ করে বেশ লাভমান হয়েছেন। এ বছর আড়াই একর জমিতে তরমুজ চাষাবাদ করেছেন। সার-ঔষধের দাম বেশি হলেও ফলন ভালো হয়েছে।

কৃষক হারুন সর্দার জানান, এই মৌসুমে সার ঔষধের দাম লাগামহীন। তারপরও তরমুজের ফলন বেশ ভালো হয়েছে আবহাওয়া ভালো থাকার কারনে। চলতি মৌসুমে একর প্রতি প্রায় ৮০ হাজার টাকা মতো খরচ হয়েছে। সার ঔষধের পাশাপাশি লোকজনের দামও বৃদ্ধি। সরকার সব ধরনের সহযোগীতা করলে সামনের দিনগুলোতে কৃষকরা আগাম জাতের তরমুজ চাষাবাদে ব্যাপক আগ্রহী হবে।

তরমুজ চাষী আলী হোসেন মিয়া জানান, এ বছর পাঁচ একর জমিতে তরমুজ চাষাবাদ করেছে। তার মধ্যে আগাম জাতের তরমুজ চাষাবাদ করেছে ২ একর জমিতে। এর মধ্যে পাইকারদের কাছে ২ একর জমির তরমুজ বিক্রি করেছেন ৪ লক্ষ টাকা। বাকি যে তরমুজ ক্ষেতে আছে, আবহাওয়া ঠিক থাকলে বেশি দামে বিক্রি হবে। বুদ্ধি করে কয়েক বছর যাবত আগাম জাতের তরমুজ চাষ করে আসছি।

চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ওমর ফারুক জানান, চরফ্যাশন উপজেলার মুজিবনগরে তরমুজের চাষাবাদ বেশি। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকাতেও তরমুজ চাষাবাদ হয়েছে। কৃষি অফিস থেকে সব সময় পরামর্শ দেওয়া হয়েছে কৃষকদের। আগাম জাতের তরমুজ চাষাবাদে কৃষকদের সহযোগিতা করা হবে।