• মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী

গুলশানে পরিচয়, বিয়ের দাবিতে ভোলায় অনশনে তরুণী

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০২৩  

গাজীপুর থেকে ভোলায় এসে প্রেমিকের বসতঘরের সামনে বিয়ের দাবিতে অনশনে বসেছেন এক তরুণী। সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম চর কালি গ্রামের হারুন মাস্টারের বাড়িতে অনশনে বসেন তিনি। অভিযুক্ত প্রেমিকের নাম মো. হাফিজুর রহমান সজিব।
তরুণীর অভিযোগ, তিনি ঢাকার গুলশান-২ এ একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। সেই সুবাদে মো. হাফিজুর রহমান সজিবের সঙ্গে তার পরিচয়। এক বছর ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। বিয়ের আশ্বাস দিয়ে সজিব মেয়েটির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন। একপর্যায়ে বিয়ে জন্য চাপ দিলে সজিব কাউকে কিছু না বলে পালিয়ে গ্রামের বাড়ি ভোলায় চলে আসেন।

অনশনে বসা মেয়েটি বলেন, অনেক কষ্টে হাফিজুর রহমান সজিবের বাড়ির ঠিকানা জোগাড় করে আমি এসেছি। কিন্তু তার বাড়ির লোকজন বসতঘরের গেট বন্ধ করে তালা ঝুলিয়ে রেখেছেন। সজিব বসতঘরের ভেতরেই আছেন। তার বাবা-মাও ঘরেই আছেন। সজিব আমাকে বিয়ে না করলে বাড়ির সামনেই আত্মহত্যা করবো।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত হাফিজুর রহমান সজিবের মোবাইল নম্বরে কয়েকবার ফোন দিলে রিসিভ করেননি। একপর্যায়ে রিসিভ করে সংবাদকর্মীর পরিচয় শুনে কল কেটে ফোনটি বন্ধ রাখেন।

ভেলুমিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. ইমজামুল হোসেন বলেন, বিষয়টি শুনে রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে তরুণীর সঙ্গে কথা বলেছি। পুলিশের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করতে বলেছি। কিন্তু মেয়েটি এখনো অভিযোগ দেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।