• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২১ ১৪২৯

  • || ১১ রজব ১৪৪৪

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জনগণের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে আসিনি: প্রধানমন্ত্রী সবাইকে হিসাব করে চলার অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে কৃষি উন্নয়নের বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী ক্রীড়া শিক্ষায় বাস্তবমুখী পদক্ষেপ নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী জনস্বাস্থ্য নিশ্চিতে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্যের বিকল্প নেই জনগণকে বিশ্বাস করি, তারা যদি চায় আমরা থাকবো: প্রধানমন্ত্রী ২০২২-২৩ অর্থবছরে ১০ বিলিয়ন ডলারের বেশি রেমিট্যান্স এসেছে ভাষা-সাহিত্য চর্চাও ডিজিটাল করার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ মানহীন শিক্ষায় উচ্চশিক্ষিত বেকার বাড়ছে: রাষ্ট্রপতি গণতান্ত্রিক ধারাকে বাধাগ্রস্ত করতে চায় এক শ্রেণির বুদ্ধিজীবী মুসলিম উম্মাহকে ফিলিস্তিনের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকলেই মানুষের উন্নতি হয়: প্রধানমন্ত্রী আমি জোর করে দেশে ফিরেছিলাম, আ.লীগ পালায় না: শেখ হাসিনা আজ ১১ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী ১-৭ মার্চ মোবাইলে কল করলেই শোনা যাবে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ পুলিশি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিন: প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস রুখে দিতে প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখে যাচ্ছে পুলিশ

মায়ের বুকের দুধে মাইক্রো প্লাস্টিক পেলেন বিজ্ঞানীরা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০২২  

প্লাস্টিক দূষণের আরেকটি ভয়াবহ রূপ মাইক্রো প্লাস্টিক। মাইক্রো প্লাস্টিক হচ্ছে প্লাস্টিকের ক্ষুদ্রতম কণা। এর আগে মানুষের রক্ত ও মলে প্লাস্টিক পাওয়া গেলেও এবার বিজ্ঞানীরা দিলেন নতুন তথ্য। প্রথমবারের মতো মায়েদের বুকের দুধে পাওয়া গেছে মাইক্রোপ্লাস্টিক। ইতালির একদল বিজ্ঞানী তাদের গবেষণায় এ প্রমাণ পেয়েছেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম দ্যা গার্ডিয়ান।
মায়ের বুকের দুধে মাইক্রো প্লাস্টিক পেলেন বিজ্ঞানীরা


 
মাইক্রোপ্লাস্টিক হলো ৫ মিলিমিটারের কম দৈর্ঘ্যের যেকোনো ধরনের প্লাস্টিকের টুকরো। বিজ্ঞানীরা তাদের পূর্ববর্তী গবেষণা মানব কোষ লাইন, ল্যাবের প্রাণী এবং সামুদ্রিক প্রাণীতে মাইক্রোপ্লাস্টিকের বিষাক্ত প্রভাব দেখিয়েছিলেন, কিন্তু জীবিত মানুষের ওপর প্রভাব অজানা রয়ে গেছে। সাম্প্রতিক গবেষণায়, বিজ্ঞানীরা মাইক্রোপ্লাস্টিকের কারণে সৃষ্ট ঝুঁকিগুলি তুলে ধরেছেন।
 
যাদের বুকের দুধ স্যাম্পল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে, তাদের খাদ্যে প্লাস্টিক প্যাকেটজাত পণ্য ব্যবহার, সামুদ্রিক প্রাণি খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করা এবং প্লাস্টিকযুক্ত ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি পণ্য ব্যবহারের রেকর্ডও বিজ্ঞানীরা নিয়েছেন। কিন্তু বিজ্ঞানীরা বুকের দুধে মাইক্রোপ্লাস্টিকের উপস্থিতির সঙ্গে কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাননি।
 
সেক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা বলছেন, পরিবেশে মাইক্রোপ্লাস্টিকের সর্বব্যাপী উপস্থিতির কারণে আসলে নির্দিষ্ট কোনো পণ্য ব্যবহার নয়, তা বাদেই কোনো না কোনোভাবে মানুষের শরীরে মাইক্রোপ্লাস্টিকের উপস্থিতি পাওয়া যাচ্ছে। গবেষক দলের একজন ইতালির ইউনিভার্সিটির পলিটেকনিকা ডেলে মার্চের ডা. ভ্যালেন্টিনা নোটারস্টেফানো জানাচ্ছেন, মায়ের দুধে মাইক্রোপ্লাস্টিকের উপস্থিতির প্রমাণ শিশুদের অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। সেই সঙ্গে জনসংখ্যার জন্য আমাদের উদ্বেগ বাড়িয়ে দিয়েছে।
 

তিনি আরও বলেন, ‘কিন্তু এটা ঠিক দূষণকারী মাইক্রোপ্লাস্টিকের উপস্থিতি সত্ত্বেও স্তন্যপান করানোর সুবিধা উপকারিতা অনেক। এ কারণে শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ানো কমানো যাবে না, বরং দূষণ কমানোর আইন বাস্তবায়নের জন্যে রাজনীতিবিদদের চাপ দেয়ার জন্য জনসচেতনতা বাড়াতে হবে।’
 
পলিমার জার্নালে প্রকাশিত এ গবেষণায় মায়ের বুকের দুধে পলিথিন, পিভিসি এবং পলিপ্রোপিলিনের সমন্বয়ে মাইক্রোপ্লাস্টিক পাওয়া গেছে। এর আগে ইতালীর এই বিজ্ঞানীরা ২০২০ সালে মানুষের প্ল্যাসেন্টাসে মাইক্রোপ্লাস্টিক সনাক্ত করেছে।

দ্য গার্ডিয়ানের জানিয়েছে, সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, বোতলের দুধ খাওয়ানো শিশুরা দিনে লাখ লাখ মাইক্রোপ্লাস্টিক গ্রাস করতে পারে এমনকি গরুর দুধে প্লাস্টিকের ছোট ছোট টুকরাও থাকতে পারে।
 
এদিকে ভ্যালেন্টিনা নোটারস্টেফানো পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, আমরা গর্ভবতী নারীদের প্লাস্টিক, প্রসাধনী এবং মাইক্রোপ্লাস্টিকযুক্ত টুথপেস্ট এবং সিন্থেটিক কাপড়ের তৈরি পোশাক, প্যাকেটজাত খাবার এবং পানীয় এড়ানোর জন্য আরও বেশি মনোযোগ দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।