• বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৮

  • || ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
আইন করলে হবে না, মানসিকতাও বদলাতে হবে: প্রধানমন্ত্রী নারীর প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করার ওপর গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর বেগম রোকেয়া ছিলেন দূরদৃষ্টিসম্পন্ন আধুনিক নারী রোকেয়া শুধু নারী শিক্ষার অগ্রদূত না, বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী খালেদা জিয়াকে যথেষ্ট উদারতা দেখিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী ফোর্বসের ১০০ ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় শেখ হাসিনা নেপাল ও ভুটানে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন করে উপকৃত হবে ঢাকা-দিল্লী মালিক ও শ্রমিকের মধ্যে সুসম্পর্ক থাকতে হবে : প্রধানমন্ত্রী শ্রমজীবী মহিলা হোস্টেলসহ ৮ স্থাপনার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী গ্রিন ফ্যাক্টরি অ্যাওয়ার্ড দিলেন প্রধানমন্ত্রী করোনার প্রভাব মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা দরকার- প্রধানমন্ত্রীর মেঘনা নামে কুমিল্লা ও পদ্মা নামে ফরিদপুর বিভাগ হবে: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক আরো দৃঢ় করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বিশ্ব শান্তি সম্মেলনে ‘ঢাকা শান্তি ঘোষণা’ গৃহীত শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়তে সম্পদ ব্যবহার করুন: প্রধানমন্ত্রী ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প গড়ে তোলার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর যুবকদের উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর দেশবাসীকে শপথ করানোর প্রস্তুতি নিতে নির্দেশনা উপকূলীয় এলাকার ৫৩ শতাংশ জমি সরাসরি লবণাক্ততায় আক্রান্ত

রিয়াদের সেই বল কি বৈধ ছিল?

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর ২০২১  

সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে শেষ বলে গিয়ে ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। তবে সেই শেষ বল জন্ম দিয়েছে নানা বিতর্ক। ক্রিকেট অভিধান মানলে যেখানে সম্ভাবনা ছিল ম্যাচের ফলাফল পরিবর্তন হওয়ার। তবে ভদ্রলোকের খেলা ক্রিকেটে দারুণ উদাহরণ সৃষ্টি করে গেলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ্‌ রিয়াদ। 

ম্যাড়ম্যাড়ে ম্যাচের শেষ ওভারে ৮ রানের দরকার ছিল পাকিস্তানের। বল হাতে নিলেন মাহমুদউল্লাহ্‌ নিজেই। প্রথম পাঁচ বলে একটি ছক্কা ও ৩ উইকেটের পতন ঘটল। কিন্তু মূল নাটকটি হয়েছে শেষ বলে।

যখন মাহমুদউল্লাহর বল খেলার চেষ্টা না করে তা ছেড়ে দিলেন মোহাম্মদ নওয়াজ। আর সে বল গিয়ে ভাঙল স্টাম্প। কিন্তু ডেড বল ঘোষণা করলেন আম্পায়ার। নতুন করে আবার বল করতেই চার মারলেন নওয়াজ। 

বল পিচে পড়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত স্ট্যান্স নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন নওয়াজ। তাই স্বাভাবিকভাবেই শেষ মুহূর্তে এমনভাবে বল ছেড়ে দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মূলত মাহমুদউল্লাহ্‌র কৌশল বুঝতে ব্যর্থ হয়েই শেষ মুহূর্তে বল ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। 

ক্রিকেটের আইনে এ ব্যাপারে ২০.৪.২.৫ ধারায় বলা হচ্ছে, 'যদি বল করার সময় ব্যাটসম্যান প্রস্তুত না থাকেন এবং বল করার পর সেটা খেলার চেষ্টা না করেন, তাহলে সে বল “ডেড বল” হিসেবে গণ্য করা হবে। আম্পায়ার যদি বিশ্বাস করেন, ওভাবে সরে যাওয়ার পেছনে যথেষ্ট যুক্তি আছে, তাহলে সে বলকে ওভারের অংশ হিসেবে ধরা হবে না।'

আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েই কোন প্রকার তর্ক-বিতর্কে জড়াননি মাহমুদউল্লাহ্‌। ডেড বল ঘোষণা করা বলটি পুনরায় করেন তিনি। ক্রিকেটের নিয়মে, এসব ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত আম্পায়ারের। তিনিই ঠিক করবেন, ব্যাটসম্যান আসলেই অপ্রস্তুত ছিলেন কী না।