• মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য: সেই ইসলামি বক্তার বিরুদ্ধে আরেক মামলা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জের ধরে চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইবুনালে আরও একটি মামলা করা হয়েছে। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ড. ইউসুফ জিলানি (৪৫) নামে এক ইসলামি বক্তা বাদী হয়ে মামলাটি করেন। তিনি পাঁচলাইশ থানাধীন হামজারবাগ কাজি বিল্ডিং এলাকার হোসাইন আহমেদের ছেলে।

বুধবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ জহিরুল কবিরের আদালতে এ মামলা করা হয়।

মামলায় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানী এবং তার ইউটিউব চ্যানেলকে আসামি করা হয়েছে। আকরামুজ্জামান ইহইয়া-উস সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় বাদী ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত পেয়েছেন। আসামির বিরুদ্ধে সাইবার নিরাপত্তা আইন ২০২৩-এর ২৮ ও ৩১ ধারায় মামলা করা হয়েছে। আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।’

মামলার এজাহারে ড. ইউসুফ জিলানি উল্লেখ করেন, অভিযুক্ত শায়েখ আকরামুজ্জামান ইসলাম ধর্মের পবিত্র রাত শবে বরাত নিয়ে বলেছেন, ১৪ শাবান তথা শবে বরাতের রাত্রিতে এইভাবে মসজিদে ভিড় না করে যদি (প্রকাশঅযোগ্য স্থানে) সময় কাটাই তারপরেও এর চেয়ে ভালো। সারা রাত যদি সে (প্রকাশঅযোগ্য স্থানে) থাকে সেটাও ভালো। অন্য জায়গায় তিনি আরও বলেন, শবে বরাত জিনার চেয়েও খারাপ। এগুলো তার ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচার করেছে। আসামির এ বক্তব্যে বাদী সাক্ষীসহ কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শবে বরাত তথা ১৪ শাবানকে অবমাননার মাধ্যমে বাদীর ধর্ম বিশ্বাস ও অনুভূতিতে জঘন্যভাবে আঘাত করেছেন।

এজাহারে তিনি আরও উল্লেখ করেন, এই দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে যুগ যুগ ধরে মুসলমান সমাজে ১৪ শাবান তথা শবে বরাত পালন করে আসছে। সেখানে আসামির ওই বক্তব্য ধর্মবিরোধী ও ইসলামের অপব্যাখ্যা বলে প্রতীয়মান হয়। যা আসামি ইচ্ছাকৃতভাবে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

বক্তব্যে উসকানি প্রদানের লক্ষ্যে শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানী বক্তব্যের ভিডিও ধারণ করে তার ফেসবুক আইডিতে এবং ২ নম্বর আসামির ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করেছেন। যা ধর্মীয় অনুভূতি ও ধর্মীয় মূল্যবোধের ওপর আঘাত করা হয়েছে। আসামির এ বক্তব্যের কারণে এবং ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচারের কারণে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির বা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা-বিদ্বেষ সৃষ্টি হয়েছে এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে।

শায়েখ আকরামুজ্জামানের এ বক্তব্যের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে এবং আইনশৃঙ্খলা অবনতির উপক্রম হয়েছে।

বাদী ড. মো. ইউসুফ জিলানি বলেন, ‘পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আসামি যেসব কথা বলেছেন সেগুলো ইসলাম ও কোরআন-হাদিসবিরোধী। তার এ বক্তব্যে আমি এবং দেশের কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমান তাদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত পেয়েছেন। এ কারণে আমি আদালতে মামলা করেছি।’

এর আগে, একই অভিযোগে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালে আরও একটি মামলা হয় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানীর বিরুদ্ধে। মামলাটি করেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের সদস্য মো. ফুয়াদ বিন হাকিম। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ছাড়াও সোমবার রাতে নগরীর জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক আবুল আসাদ মোহাম্মদ জুবাইর পাঁচলাইশ থানায় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানীর  বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।