• বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

  • || ১০ শা'বান ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আগামীকাল মিউনিখ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে নিমন্ত্রণ বাংলাদেশের গুরুত্ব বুঝায় গুণীজনদের সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে : রাষ্ট্রপতি একুশে পদকপ্রাপ্তদের অনুসরণ করে তরুণরা সোনার বাংলা বিনির্মাণ করবে আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সফর শেষে ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু, কারণ অনুসন্ধান করবে আইইডিসিআর দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী গাজায় যা ঘটছে তা গণহত্যা: শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ নেদারল্যান্ডস, যুক্তরাজ্য, আজারবাইজান থেকে বড় বিনিয়োগ আহ্বান জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক শান্তি ফর্মুলা বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার সহযোগিতা চাইলেন জেলেনস্কি কাতারের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন শেখ হাসিনা কিছু খুচরো দল তিড়িং বিড়িং করে লাফাচ্ছে: শেখ হাসিনা মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্বনেতাদের অভিনন্দন

পার্বত্য চট্টগ্রামে সড়ক যোগাযোগে সরকার ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

পার্বত্য অঞ্চলে শিক্ষা ও সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রামে সড়ক যোগাযোগে সরকার ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। বদলে যাচ্ছে দুর্গম পাহাড়ের চিত্র। শিগগিরই নানিয়ারচর উপজেলার বগাছড়ি-লংগদু উপজেলা পর্যন্ত সংস্কারের কাজ শুরু করবে রাঙ্গামাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগ। এতে বদলে যাবে প্রায় দুই লাখের অধিক মানুষের জীবনধারা।
বর্তমান সরকারের আমলে পাহাড়ে ব্যাপকহারে শিক্ষা ও যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হয়েছে। এরমধ্যে রাঙ্গামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলার চুনিলাল দেওয়ান সেতুটি (নানিয়ারচর সেতু)। এই সেতুর ফলে এ উপজেলার জীবনধারা পাল্টে গেছে। এখানকার উৎপাদিত কৃষিপণ্য নিয়ে সহজে বাজারজাত এবং যাতায়াতসহ মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হয়েছে। এবার উপজেলার বগাছড়ি থেকে লংগদু উপজেলা পর্যন্ত  প্রায় ৩৭ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক সংস্কার করা হলে দুই উপজেলার মধ্যে বাণিজ্যিক সর্ম্পক সহজে গড়ে উঠবে এবং পাহাড়ের প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের যাতায়াত পথ সুগম হবে।রাঙ্গামাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলার বগাছড়ি হতে লংগদু উপজেলা সদর পর্যন্ত প্রায় ৩৭ কিলোমিটার সড়ক। এরমধ্যে পাকা রাস্তা ১৭ কিলোমিটার এবং কাঁচা রাস্তা ২০ কিলোমিটার।

আরো জানা গেছে, ৩৭ কিলোমিটার সড়কের জন্য একটি ডিপিবি তৈরি করা হচ্ছে। যার প্রস্থ হবে ৫.৫মিটার। এই সড়কটি লংগদু উপজেলার সঙ্গে সংযোগ হবে। যদি সড়কটি লংগদুর সঙ্গে রাঙ্গামাটি সদরের সংযোগ দেওয়া যায়। তাহলে লংগদু এবং নানিয়ারচরের ২ লাখেরও অধিক মানুষের আত্মকর্মসংস্থান এবং ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সবদিকে উন্নত হবে।

নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান প্রগতি চাকমা জানান, নানিয়ারচর সেতু হওয়ার পর উপজেলা সদর বা সেনাজোন পর্যন্ত সাধারণ মানুষের আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থা উন্নত হয়েছে। বাকি ৩৭ কিলোমিটার সড়ক এটি যদি অচিরে হয়, তাহলে লংগদু মানুষের সঙ্গে নানিয়ারচর মানুষের যোগাযোগ বাড়বে। তাছাড়া পার্শ্ববর্তী উপজেলা বাঘাইছড়িসহ খাগড়াছড়ির দীঘিনালা সংযোগ স্থাপন হবে। তাই নানিয়ারচরবাসীর পক্ষ থেকে বর্তমান সরকারের কাছে আবেদন এই রাস্তাটি যেন অচিরে নির্মিত হয়।

রাঙ্গামাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ চাকমা জানান, রাঙ্গামাটি সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধীনে নানিয়ারচর-বগাছড়ি-লংগদু সড়কটি একটি জেলার মহাসড়ক। এই সড়কটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৩৭ কিলোমিটার। এরমধ্যে পাকা সড়ক রয়েছে ১৭ কিলোমিটার। তার মধ্যে বাকি কাঁচা ২০ কিলোমিটার সড়কের সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং পর্যায়ক্রমিকভাবে ভবিষ্যতে আরো সংস্কার করে ব্যবহারের উপযোগী করা হবে।

তিনি আরো জানান, বাকি ২০ কিলোমিটার সড়ক নানিয়ারচর হতে লংগদু এখানো অসংযোগ রয়েছে। এরইমধ্যে রাস্তাটি নির্মাণে রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার একটি চিঠি প্রদান করেছেন। নানিয়ারচর হতে লংগদু যোগাযোগ স্থাপন হলে দুর্গম পাহাড়ের অনেক লোকজন উপকৃত হবে। লংগদু এবং বাঘাইছড়ির লোকজন অতিদ্রুত রাঙ্গামাটি শহরের আসতে পারবে।