• মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী

৫০০ কোটি ডলার ব্যয়ে চাঁদের মতো রিসোর্ট হচ্ছে দুবাইয়ে

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

পৃথিবীতেই চন্দ্রপৃষ্ঠে হেঁটে বেড়ানোর অনুভূতি পাওয়া যাবে। আর সেটি সম্ভব হবে দুবাইয়ে। পর্যটকদের আকৃষ্ট করতেই চাঁদের মতো এমন বিলাসবহুল রিসোর্ট বানানোর পরিকল্পনা করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। যেখানে ব্যয় হবে ৫ বিলিয়ন অর্থাৎ ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার।

কানাডার একটি স্থাপত্য প্রতিষ্ঠান মুন ওয়ার্ল্ড রিসোর্ট ইনকরপোরেশন (এমডব্লিউআর) রিসোর্টটি নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা সান্দ্রা জি ম্যাথুস ও মিখায়েল আর হ্যান্ডারসন জানিয়েছেন, প্রস্তাবিত রিসোর্টের ভবনের উচ্চতা হবে ৭৩৫ ফুট বা ২২৪ মিটার। এটি নির্মাণে ব্যয় হবে ৫০০ কোটি ডলার। নির্মাণ কাজ আগামী ৪৮ মাসের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করছেন তারা।

দুবাই শহরটিকে ঘিরে উচ্চাভিলাষী স্থাপত্য প্রকল্পের বিষয়টি আকস্মিক নয়। এরই মধ্যে বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন বুর্জ খলিফা নির্মাণ করা হয়েছে সেখানে।

শহরটি পাম জুমেইরাহ সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে স্থাপত্য প্রকল্পের চ্যালেঞ্জগুলো গ্রহণ করার ক্ষমতা প্রদর্শন করেছে এবং বিশ্বের বৃহত্তম ফেরিস হুইলের মতো ছোট প্রকল্পগুলোও বাস্তবায়ন হয়েছে সেখানে। সুতরাং, দুবাই যখন চাঁদের স্টাইলযুক্ত রিসোর্ট তৈরি করার কথা ভাবে তখন এটি ঠিক চাঁদের ছবি নয়।

পর্যটকদের জন্য রিসোর্টে থাকবে স্পা, নাইটক্লাব, সম্মেলনকক্ষ, লাউঞ্জ, ব্যক্তিগত আবাসের ব্যবস্থাসহ আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। ভবনটি মহাকাশ প্রতিষ্ঠান ও নভোচারীরা প্রশিক্ষণের কাজেও ব্যবহার করতে পারবেন। বিলাসবহুল এ রিসোর্টে প্রতিবছর এক কোটি পর্যটকের আনাগোনা সম্ভব হবে।

মুন ওয়ার্ল্ড রিসোর্টের বিশেষ সুবিধা পর্যটকরা চন্দ্রপৃষ্ঠে ভ্রমণের মতো অনুভূতি পাবেন। সেখানে লুনার কলোনি নামে একটি স্থান থাকবে। সেখানে বছরজুড়ে ২৫ লাখ ভ্রমণকারী চন্দ্রপৃষ্ঠে ভ্রমণে যাওয়ার মতো স্বাদ পাবেন। দুবাইয়ের মুন ওয়ার্ল্ড রিসোর্টে আরও থাকবে ‘স্কাই ভিলা’। যেখানে চাঁদের আবাসন এলাকায় বসবাসের মতো অনুভূতি পাবেন পর্যটকরা।

বিলাসবহুল এই রিসোর্ট নির্মাণের দায়িত্ব পাওয়া প্রতিষ্ঠানটি বলছে, মুন ওয়ার্ল্ড রিসোর্ট, পর্যটন, বাণিজ্যিক, আবাসন, অবকাঠামো, আর্থিক সেবাপ্রতিষ্ঠান, বিমান চলাচল, জ্বালানি সম্পদ, কৃষি, প্রযুক্তি, শিক্ষাসহ সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই ছাড়াও ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা ও এশিয়ায় আরও তিনটি চাঁদের আদলে বিলাসবহুল রিসোর্ট নির্মাণের পরিকল্পনা করছে কানাডার স্থাপত্য প্রতিষ্ঠানটি।