• মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে পবিত্র রমজানে নিত্যপণ্যের সংকট হবে না: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী

৪৮ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মুদ্রাস্ফীতি দেখল পাকিস্তান

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

পাকিস্তানে ৪৮ বছরের মধ্যে মুদ্রাস্ফীতির হার সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) দেশটির পরিসংখ্যান ব্যুরো এ তথ্য জানিয়েছে। চলতি মাসে পাকিস্তানে মূল্যস্ফীতি রেকর্ড করা হয়েছিল ২৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ, যা ১৯৭৫ সালের মে মাসের পর থেকে সর্বোচ্চ। চলতি মাসে জাতীয় ভোক্তা মূল্য সূচক গত মাসের তুলনায় ২ দশমিক ৮৮ শতাংশ বেড়েছে।

বর্তমানে দেশটির অর্থনীতি মারাত্মক সংকটের মধ্যে রয়েছে। সংকট থেকে উত্তরণে দেশটি বিপুল পরিমাণের বৈদেশিক ঋণ সংগ্রহের চেষ্টা করছে।

বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তর জনসংখ্যগোষ্ঠীর দেশ পাকিস্তান। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকে এখন ৩ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার রিজার্ভ রয়েছে। এটি দিয়ে কেবল তিন সপ্তাহের আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব। তারল্য সংকটের কারণে করাচি বন্দরে হাজার হাজার কন্টেইনার পণ্য নিয়ে আটকা পড়ে আছে।

মার্কিন ডলারের কালোবাজারি দামের লাগাম টেনে ধরতে সরকার বিনিময় হারের ওপর নিয়ন্ত্রণ শিথিল করেছে। এর ফলে রুপির দর রেকর্ড নিম্নে নেমে গেছে। কৃত্রিমভাবে সস্তা পেট্রলের দামও বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রয়োজনীয় খাদ্য ও ওষুধ আমদানি ছাড়া অন্য কোনো পণ্যের জন্য এলসির অনুমতি দিচ্ছে না।

আমদানি বন্ধ এবং রুপির ব্যাপক অবমূল্যায়নের কারণে শিল্প খাত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সরকারি নির্মাণ প্রকল্পগুলো বন্ধ হয়ে গেছে, টেক্সটাইল কারখানাগুলো আংশিকভাবে বন্ধ হয়ে গেছে এবং অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ ধীর হয়ে গেছে।

দেশটির ব্রোকারেজ ফার্ম টপলাইন সিকিউরিটিজের সিইও মোহাম্মদ সোহেল বলেন, কয়েক দিন ধরে রুপির দরপতন, ভর্তুকি অপসারণ এবং কর বৃদ্ধির পর মূল্যস্ফীতির পরিসংখ্যান আশা করা হয়েছিল।

বন্দর নগরী করাচির জাফর ইকবাল নামে এক ব্যক্তি বলেন, ‘সড়কে ভিক্ষুকের সংখ্যা বেড়েছে, শ্রমিকের সংখ্যা কমেছে। মুদ্রাস্ফীতি এতটাই বেড়েছে যে খাদ্যপণ্য কেনার মতো অর্থ হাতে থাকছে না।’