• বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

  • || ১০ শা'বান ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আগামীকাল মিউনিখ সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে নিমন্ত্রণ বাংলাদেশের গুরুত্ব বুঝায় গুণীজনদের সম্মাননা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে : রাষ্ট্রপতি একুশে পদকপ্রাপ্তদের অনুসরণ করে তরুণরা সোনার বাংলা বিনির্মাণ করবে আজ একুশে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগদান শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী মিউনিখ সফর শেষে ঢাকার পথে প্রধানমন্ত্রী বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু, কারণ অনুসন্ধান করবে আইইডিসিআর দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিন: প্রধানমন্ত্রী গাজায় যা ঘটছে তা গণহত্যা: শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ নেদারল্যান্ডস, যুক্তরাজ্য, আজারবাইজান থেকে বড় বিনিয়োগ আহ্বান জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক শান্তি ফর্মুলা বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার সহযোগিতা চাইলেন জেলেনস্কি কাতারের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন শেখ হাসিনা কিছু খুচরো দল তিড়িং বিড়িং করে লাফাচ্ছে: শেখ হাসিনা মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্বনেতাদের অভিনন্দন

ভোলায় বসছে ক্ষুদে বিজ্ঞানিদের মেলা

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

ভোলা প্রতিনিধিঃ ভোলায় বসেছে ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের মেলা। স্কুল-কলেদের শিক্ষার্থীরা নিজেদের প্রচেষ্টায় উদ্ভাবন করেছেন বিজ্ঞান বিষয়ক বিষয় যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তি। যা ব্যবহারেরর মাধ্যমে স্বল্প সময়ে মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের পাশাপাশি বিজ্ঞান বিষয়ে ধারনা পাবে শিক্ষার্থীরা। দুইদিন ব্যাপী দুইদিন ব্যপী জাতীয় ৪৫ তম জাতীয় বিজ্ঞান ওপ্রযুক্তি সপ্তাহ মেলা এবং ৮ম বিজ্ঞান অলিম্পয়াডে ঢল নেমেছে দর্শনার্থী, ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের।

আয়োজকরা বলছেন, এমন মেলার মাধ্যমে ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীরা তাদের মেধা খাটিয়ে আরও বেশি এগিয়ে যাবে এবং নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে আগ্রহ পাবে। যার মধ্যমে তাদের প্রতিভার বিকাশ ঘটবে।

কেউ তৈরী করেছেন লাইফবয়া, কেউ গ্রীন হাউজ, ওয়ার্টার এর্লাম, পানি-বাতাস দুষন ও ট্রেন দুর্ঘটনা রোধের সংকেত যন্ত্র। স্রোতের সাহায্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও ফসলের ক্ষেত থেকে ক্ষতিকর পোকা-মাকড় দূর করার যন্ত্রও আবিস্কার করেছেন কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। এ যেন ক্ষুদে বিজ্ঞানিদের মেলা। যা দেখতে ভীড় জমাচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেনী  পেশার মানুষ।

এ বছর মেলার প্রতিপাদ্য ছিলো 'বিজ্ঞান ও প্রযুক্ত' উদ্ভাবনেই সমৃদ্ধি। বিজ্ঞানের এসব উদ্ভাবন ব্যবহারের মাধ্যমে জীবনযাত্রাবরার মান উন্নয়ন ও সহজ হবে বলে মনে করছেন শিক্ষার্থীরা। 

ভোলা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে অংশ নেওয়া ক্ষুদে বিজ্ঞানী ছামিউল ইসলাম বলেন, আমার প্রজেক্টের নাম “রিভার ক্লিনার এক্সপ্রেস”এই প্রজেক্টের মাধ্যমে নৌপথে চলাচল করা বিভিন্ন  যানবাহনের সাথে থাকবে। এর মাধ্যমে নদীর মধ্যে থাকা পলিথিন, বোতল, কচুরিপানা সহ বিভিন্ন ময়লা পরিষ্কার করবে। এর মাধ্যমে নদী দূষন কমে আসবে।

ভোলা এ রব মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে অংশ নেওয়া রাহাত বলেন, আমি নৌপথে লঞ্চ দুর্ঘটনা কমিয়ে আনার জন্য একটি প্রজেক্ট নিয়ে এসেছি। যেহেতু ভোলা একটি দ্বীপ জেলা। এই জেলার সাথে রাজধানী সহ বিভিন্ন জেলার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে লঞ্চ। ঝড়ের কবলে পড়ে এই লঞ্চ গুলো অনেক সময় দুর্ঘটনার স্বীকার হয়। তাই লঞ্চ দুর্ঘটনা থেকে যাত্রী ও লঞ্চ কে রক্ষা করতে আমার এই প্রজেক্ট কাজ করবে।

ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইলমি জানান, আমরা বন্যপ্রাণী রক্ষা ও ট্রেন দুর্ঘটনার হাত থেকে মানুষের প্রাণ বাঁচাতে একটি প্রজেক্ট নিয়ে এসেছি। বাংলাদেশে এমন কিছু জায়গা আছে যেখানে বনের মধ্যে দিয়ে ট্রেন লাইন গিয়েছে। যেমন লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান।

এখানে অনেক প্রাণী এসে দল বেঁধে ট্রেন লাইনের উপর থাকয় ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়ে মারা যায়। তাই আমাদের এই প্রজেক্ট এর মাধ্যমে ট্রেনের বিকট শব্দ পেয়ে সেন্সারের মাধ্যমে কাজ করবে।তখন প্রাণীরা ট্রেন লাইনের উপর থেকে  সরে যাবে। এর মাধ্যমে প্রাণীরা জীবন সুরক্ষা দেওয়া যাবে।এছাড়াও বাংলাদেশের রেল লাইনের লেভেল ক্রসিং পদ্ধতিটি হচ্ছে সনাতন। আমাদের এই ডিভাইসের সেন্সরের মাধ্যমে আগে থেকেই এলার্ম ও লাইট জ্বলে  উঠবে। মানুষের সহযোগিতা  ছাড়াই এটি নিজে নিজেই রাস্তা বক্ল করে দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করতে সহযোগীতা করবে।
মেলার প্রথম দিনেই বিপুল সংখ্যক মানুষের ঢল নেমেছে। মেলা দেখতে এসে অনেকেই প্রযুক্তির ব্যাবহার ও নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারে উৎসাহ পেয়েছেন।

ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সজল চন্দ্র শীল বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে বিজ্ঞান শিক্ষার বিকল্প নেই। এধরনের মেলার মাধ্যমে অনেকেই বিজ্ঞানের প্রতি আকৃষ্ট হবে। শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান শিক্ষায় আকৃষ্ট করতে আমাদের এমন আয়োজন।

এসময় প্রধান অতিথি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছেন। তার এই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের সহযোগিতার প্রয়োজন। সেই কারণে আমরা বিজ্ঞান মেলার আয়োজন করেছি। এই মেলা থেকে শিক্ষার্থীরা স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে নিজেদেরকে তৈরি করতে পারবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন কলেজ ও মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বরত শিক্ষক-শিক্ষিকা ও সাংবাদিকবৃন্দ।

মেলায় ১৭টি স্টল স্থান পেয়েছে। এতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা এতে অংশগ্রহন করে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে তারা মেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরছেন।
মেলায় পরিবেশ দূষণ, উপকূলীয় বেড়িবাঁধ রক্ষা, নদীভাঙ্গন রোধ, পানি পরিশোধন, স্যাটেলাইট শহর প্রতিষ্ঠা, সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধ, যানজট নিরসনসহ সমসাময়িক সমস্যা সমাধানের কৌশল নিয়ে উদ্ভাবিত প্রযুক্তি মেলায় উপস্থাপন করছেন ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পৃষ্টপোশকতায় ও জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের তত্ত্বাবধানে ভোলা উপজেলা প্রশাসন এ অলিম্পয়াডের আয়োজন করে। বুধবার পুরস্কার বিতরনের মধ্যদিয়ে এর সমাপ্তি ঘটবে।