• বুধবার ১৯ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আলোকিত ভোলা
ব্রেকিং:
তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে কোরবানির পশু বেচাকেনা এবং ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তার নির্দেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে চীনের কাছে ঋণ চেয়েছি গ্লোবাল ফান্ড, স্টপ টিবি পার্টনারশিপ শেখ হাসিনাকে বিশ্বনেতৃবৃন্দের জোটে চায় শিশুর যথাযথ বিকাশ নিশ্চিতে সকল খাতকে শিশুশ্রমমুক্ত করতে হবে শিশুশ্রম নিরসনে প্রত্যেককে আরো সচেতন হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জিসিএ লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ আশ্রয়ণের ঘর মানুষের জীবন বদলে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী নতুন সেনাপ্রধান ওয়াকার-উজ-জামান প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছে সাড়ে ১৮ হাজার পরিবার শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন সোনিয়া গান্ধী মোদীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক আগামীতে আরো দৃঢ় হবে বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদী সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বিনিময় অ্যাক্রেডিটেশন দেশের অর্থনীতিকে সুদৃঢ় করতে সহায়তা করে: রাষ্ট্রপতি

প্রথমবারের মতো যুদ্ধ বন্ধের আগ্রহ দেখালো ইসরায়েল

আলোকিত ভোলা

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২৪  

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের কাছে থাকা জিম্মিদের ছাড়িয়ে নিতে ‘জিম্মি চুক্তির’ নতুন প্রস্তাব দিয়েছে দখলদার ইসরায়েল। যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ বিষয়ক ওয়েবসাইট এক্সিওস শনিবার (২৭ এপ্রিল) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, তাদের দুই ইসরায়েলি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চুক্তির প্রথম ধাপ শেষ হওয়ার পর ‘গাজায় স্থিতিশীলতা ফেরাতে’ অর্থাৎ যুদ্ধ শেষ করার ব্যাপারে আগ্রহী রয়েছেন তারা।

এছাড়া হামাসের কিছু দাবি মেনে নেওয়ারও ইঙ্গিত দিয়েছেন তারা। যার মধ্যে অন্যতম হলো সাধারণ গাজাবাসীকে তাদের বাড়িঘরে ফিরতে দেওয়া হবে। গাজার মাঝে দিয়ে তৈরি নতুন করিডোর থেকে ইসরায়েলি সেনাদের সরিয়ে নেওয়া হবে।

গত বছরের ৭ অক্টোবর হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হয়। এরপর ‘জিম্মি চুক্তির’ অংশ হিসেবে এবারই প্রথমবারের মতো গাজায় যুদ্ধ বন্ধ করার আলোচনার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছে ইসরায়েল।

জিম্মি চুক্তি করতে ইসরায়েলকে স্থায়ী যুদ্ধবিরতিতে রাজি হওয়ার দাবি জানিয়েছে হামাস। তারা বলেছে, জিম্মি চুক্তি করতে হলে অবশ্যই গাজায় হামলা ও বর্বরতা বন্ধ করতে হবে।

মিসরের গোয়েন্দা সংস্থার একটি প্রতিনিধি দল গত শুক্রবার ইসরায়েলে যায় এবং তারা দখলদার ইসরায়েলের অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থা সিন বেত, প্রতিরক্ষা বাহিনী এবং প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে জিম্মি চুক্তি এবং রাফাহতে ইসরায়েলি সেনাদের সম্ভাব্য হামলার ব্যাপারে আলোচনা করেন।

ওই আলোচনা শেষে মিসরের গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা হামাসের কাছে নতুন একটি প্রস্তাব পৌঁছে দেন। ওই প্রস্তাবে রয়েছে চুক্তির জন্য ইসরায়েল আরও ছাড় দিতে রাজি আছে।

শনিবার সকালে হামাস এক বিবৃতিতে জানায় তারা ইসরায়েলের কাছ থেকে নতুন প্রস্তাব পেয়েছে এবং এটি বিশ্লেষণ করে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাবে।

ইসরায়েলি কর্মকর্তারা সংবাদ বিষয়ক ওয়েবসাইট এক্সিউসকে জানিয়েছেন, নতুন প্রস্তাবটি যৌথভাবে প্রস্তুত করেছেন মিসর ও ইসরায়েলি প্রতিনিধিরা। এতে তারা হামাসের দাবি-দাওয়াগুলো বিবেচনায় নিয়েছেন এবং কোন কোন দাবি মেনে নেওয়া যায় সে ব্যাপারে কথা হয়েছে।

ইসরায়েল— হামাসের কাছে যে নতুন প্রস্তাব দিয়েছে তাতে বলা হয়েছে, চুক্তির দ্বিতীয়ধাপে গাজায় স্থিতিশীলতা (যুদ্ধবিরতি) ফিরিয়ে আনা হবে। যেটি প্রথম ধাপের পর হবে।

ইসরায়েলি এক কর্মকর্তা বলেছেন, “আমরা আশা করি হামাসকে আলোচনায় ফিরিয়ে আনতে আমরা পর্যাপ্ত প্রস্তাব দিয়েছি। আমরা আশা করি তারা বুঝতে পারবে আমরা সত্যিকার অর্থে চুক্তি চাই— এবং আমরা এ ব্যাপারে সিরিয়াস। তাদের বুঝতে হবে যদি চুক্তির প্রথম ধাপ কার্যকর হয় আমরা পরবর্তী ধাপে যেতে পারব এবং যুদ্ধের শেষে পৌঁছাতে পারব।”

ইসরায়েলি কর্মকর্তা আরও বলেছেন, “ইসরায়েল বিশ্বাস করে যে হামাস জানে যে তারা রাফাহতে হামলা চালাতে পারে। আর এই বিষয়টি চুক্তির ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে।”

হামাসের সঙ্গে কয়েক মাস ধরে ইসরায়েলের জিম্মি চুক্তির ব্যাপারে আলোচনা হচ্ছে। ইসরায়েল দাবি করেছিল চুক্তির প্রথম ধাপে নারী, শিশু, বৃদ্ধ ও অসুস্থ ৪০ জিম্মিকে মুক্তি দিতে হবে। তবে হামাস কয়েকদিন আগে জানিয়েছে তারা এখন এরকম ২০ জিম্মিকে মুক্তি দিতে পারবে। ইসরায়েল প্রথমে এটি মানতে না চাইলেও এখন কিছুটা নমনীয় হয়েছে। তারা বলেছে চুক্তির প্রথম ধাপে ৩৩ জিম্মিকে মুক্তি দিলে তারা এটি মেনে নেবে। এ ব্যাপারে ইসরায়েলর যুদ্ধকালীন মন্ত্রীসভাও সায় দিয়েছে।

যে বিষয়টির ওপর এখন সবার নজর: ইসরায়েলিরা এখন হামাসের জবাবের অপেক্ষায় রয়েছে। ফিলিস্তিনি এ সশস্ত্র গোষ্ঠী ইসরায়েলের নতুন প্রস্তাবের ব্যাপারে কি উত্তর দেয় এখন সবার নজর এটির ওপর। ধারণা করা হচ্ছে আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হামাস এ ব্যাপারে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানাবে।